বর্তমান তারিখ:23 August, 2019

রেজর (Razer) রিলিজ করলো তাদের নতুন গেমিং স্মার্টফোন

রেজর

গেমিং ফোকাসড অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন তৈরি করার ট্রেন্ডটি কিন্তু রেজর (Razer) প্রথম শুরু করেছিলো,  যে কোম্পানিটি সাধারনত গেমিং ল্যাপটপ এবং অন্যান্য গেমিং অ্যাক্সেসোরিস তৈরি করে থাকে। গত বছর তারা তাদের তৈরি প্রথম গেমিং স্মার্টফোন বাজারে এনেছিলো, যার নাম রাখা হয়েছিলো, রেজর ফোন (Razer Phone), যেটাকে তারা বলেছিলো, A smartphone built for Gamers। স্পেকস, ডিজাইন এবং ফিচারস সবদিক থেকেই এটি পারফেক্ট একটি গেমিং স্মার্টফোন ছিলো। স্মার্টফোনপ্রেমী এবং গেমারদের মধ্যে বেশ ভালো রকম সাড়াও ফেলতে সক্ষম হয়েছিলো রেজর এই স্মার্টফোনটির সাহায্যে। সেই সুত্র ধরেই রেজর এবছর অ্যানাউন্স করেছে তাদের পরবর্তী নতুন গেমিং স্মার্টফোন, রেজর ফোন ২ (Razer Phone 2)।

রেজরের তৈরি এই নতুন গেমিং স্মার্টফোনটির সাথে তাদের আগের স্মার্টফোনটির বেশ ভালোরকম মিল রয়েছে ডিজাইনের ক্ষেত্রে। স্মার্টফোনটির ব্যাক প্যানেলে নতুন লুক এবং নতুন ডিজাইনের দেখা মিললেও ফোনের ফ্রন্ট সাইড থাকছে একেবারে আগের মডেলটির মতোই। অর্থাৎ দেখা মিলছে না কোন বেজেল-লেস বা চিকন বেজেলের ডিসপ্লে কিংবা আইফোন ১০ এর বা পিক্সেল ৩ এর মতো কোন নচ-এর। সাধারন স্মার্টফোন ইউজারদের জন্য এটি বেশ বড় ইস্যু হলেও গেমারদের জন্য এই ডিজাইনটিই পারফেক্ট বলেই ধারনা করছে রেজর। তাই তারা এবছরও অন্যান্য কোন স্মার্টফোনের ট্রেন্ড ফলো না করাটাই বেটার মনে করেছে।

খুব সাধারনভাবেই রেজরের এই নতুন স্মার্টফোনে থাকছে ২.৮ গিগাহার্জের স্ন্যাপড্রাগন ৮৪৫ চিপসেট, যা বর্তমানে কোয়ালকমের তৈরি বেস্ট এবং সবথেকে পাওয়ারফুল চিপসেট। গ্রাফিক্স হ্যান্ডেল করার জন্য থাকছে অ্যাড্রেনো ৬৩০ জিপিইউ যা এখনো পর্যন্ত মার্কেটে এভেইলেবল মোস্ট পাওয়ারফুল স্মার্টফোন জিপিইউ। রেজরের মতে এবছর তারা এই ফোনটিতে ভেপর কুলিং (Vapor Cooling) টেকনোলজী ব্যাবহার করেছে যা সাধারনত তারা ল্যাপটপের ক্ষেত্রে ব্যাবহার করে থাকে।

এর ফলে ইন্টেনসিভ টাস্ক করার সময়ও এই ফোনটি খুব বেশি গরম হবে না বলে রেজর দাবী করে। এছাড়াও থাকছে ৮ জিবি র‍্যাম এবং ৬৪ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ। স্মার্টফোনটি আপাতত রান করছে অ্যান্ড্রয়েড ৮.১ অরিও অপারেটিং সিস্টেমে, যদিও আগামী কিছুদিনের মধ্যেই অ্যান্ড্রয়েড ৯.০ আপডেট দেওয়ার পরিকল্পনা করা হয়েছে। সম্পূর্ণ ফোনটিকে ব্যাকআপ করছে ৪০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি যা ফোনটিকে বেশ ভালো ব্যাটারি ব্যাকআপ দিতে সক্ষম হবে বলে আশা করা যায়।

রেজর ফোন ২ এর সবথেকে বড় আপগ্রেডটি হচ্ছে এর ব্যাক সাইডের ডিজাইন। এই স্মার্টফোনটির ব্যাক সাইডে অন্যান্য ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোনগুলোর মতোই গ্লাস ব্যাবহার করা হয়েছে। তবে এবার রেজরের এই নতুন ফোনটিতে থাকছে ক্রুমা লাইটিং। ফোনটির ব্যাক সাইডের রেজর লোগোটির ব্যাক লাইট ইউজাররা নিজেদের ইচ্ছামতো কাস্টোমাইজ করতে পারবেন। ফোনের সেটিংস থেকে এই লোগোটির পেছনের লাইটটি নিজের ইচ্ছামতো যেকনো কালারে কাস্টোমাইজ করা সম্ভব হবে যা ফোনটির ডিজাইনে অনেক বেশি পার্সোনালাইজেশন এনে দেয়। এছাড়া আগের মডেলের মতো রেজর ফোন ২ তেও থাকছে ১২০ হার্জ রিফ্রেশ রেটের ডিসপ্লে, যার সাইজ ৫.৭ ইঞ্চি এবং রেজুলেশন কোয়াড এইচডি (২৫৬০*১৪৪০)।

রেজরের গত বছরের মডেলের সবথেকে ভালো হার্ডওয়্যারটি ছিলো এর দুটি ফ্রন্ট ফেসিং স্পিকার। রেজর ফোন ২ তেও থাকছে গত বছরের মতো যথেষ্ট ভালো স্পিকার, যা আগের মতোই ফোনের ফ্রন্ট সাইডে ওপরে এবং নিচে থাকছে। গত বছরের মডেলের ক্যামেরা দুটি অন্যান্য ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোনের তুলনায় খুব বেশি ভালো ছিলো না। তবে রেজর এবছর দাবী করছে যে নতুন রেজর ফোন ২ এর ডুয়াল ১২ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা (১ টি নরমাল এবং আরেকটি ওয়াইড অ্যাঙ্গেল) আগের তুলনায় অনেক বেশি ইম্প্রুভড এবং বর্তমানের অন্যান্য ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোনের সাথে তুলনা করার যোগ্য।

রেজর ফোন ২ ঠিক কবে নাগাদ মার্কেটে অফিশিয়ালি বিক্রির জন্য রিলিজ করা হবে সে বিষয়ে রেজর এখনো তেমন কিছুই জানায়নি। তবে ফোনটির ইউএস প্রাইসিং ৭৯৯ ইউএস ডলার হবে বলে জানিয়েছে রেজর।


WiREBD এখন ইউটিউবে, নিয়মিত টেক/বিজ্ঞান/লাইফ স্টাইল বিষয়ক ভিডিও গুলো পেতে WiREBD ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুণ! জাস্ট, youtube.com/wirebd — এই লিংকে চলে যান এবং সাবস্ক্রাইব বাটনটি হিট করুণ!