WireBD

নোকিয়া ৮.১ প্লাস : থাকছে HDR সাপোর্টেড ডিসপ্লে এবং হেডফোন জ্যাক

বছরের প্রথমদিকে এইচএমডি গ্লোবালের রিলিজ করা আপার-মিডরেঞ্জ নোকিয়া ৭ প্লাস স্মার্টফোনটি গ্রাহকদের মাঝে বেশ ভালো সাড়া ফেলতে পেরেছিলো এর ব্যালেন্সড হার্ডওয়্যার এবং স্টক অ্যান্ড্রয়েড সফটওয়্যারের কারনে। নোকিয়া ৭ প্লাসের সাফল্যের সুত্র ধরেই এইচএমডি গ্লোবাল অ্যানাউন্স করেছে তাদের নতুন মিডরেঞ্জ স্মার্টফোন, নোকিয়া ৮.১ প্লাস। আগের মডেল, নোকিয়া ৭ প্লাসের একটি পারফেক্ট আপগ্রেড নোকিয়া ৮.১ প্লাস।

নোকিয়া ৭ প্লাস এবং ৮.১ প্লাসের বিল্ড কোয়ালিটি এবং ডিজাইনে তেমন কোন পার্থক্য নেই। তবে নোকিয়া ৮.১ প্লাসে ডিসপ্লের ওপরে আছে একটি নচ, যা নোকিয়া ৭ প্লাসে ছিলো না। তাছাড়া নোকিয়া ৮.১ প্লাসের ২১৬০*১৪৪০ রেজুলেশনের ডিসপ্লেটি এইচডিআর ১০ সাপোর্টেড। তাছাড়া নোকিয়া ৮.১ এর হার্ডওয়্যারেও আপগ্রেড এনেছে এইচএমডি গ্লোবাল। আগের মডেল, নোকিয়া ৭ প্লাস রান করছিলো স্ন্যাপড্রাগন ৬৬০ প্রোসেসরে। আর আপগ্রেডেড মডেল, নোকিয়া ৮.১ প্লাসে ব্যাবহার করা হয়েছে স্ন্যাপড্রাগন ৭১০ প্রোসেসর যা একটি আপার মিডরেঞ্জ প্রোসেসর হলেও স্ন্যাপড্রাগন ৬৬০ এর থেকে কিছুটা বেটার পারফরমেন্স প্রোভাইড করতে পারবে।

তাছাড়া ফোনটির অন্যান্য হার্ডওয়্যার স্পেসিফিকেশন আপনি এই প্রাইস পয়েন্টে যেমন আশা করবেন তেমনই রাখা হয়েছে। থাকছে ৪ জিবি র‍্যাম এবং ৬৪ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ যা মাইক্রো এসডি কার্ডের সাহায্যে ৪০০ জিবি পর্যন্ত এক্সপ্যান্ড করা যাবে। সম্পূর্ণ সিস্টেমটিকে ব্যাকআপ করার জন্য আছে ৩৫০০ এমএএইচ ব্যাটারি। আরেকটি ভালো দিক হচ্ছে, যেখানে এখন সব স্মার্টফোন ম্যানুফ্যাকচারাররা তাদের স্মার্টফোনগুলো থেকে হেডফোন জ্যাক সরিয়ে নিতে ব্যাস্ত, সেখানে নোকিয়া ৮.১ প্লাসে আছে একটি হেডফোন জ্যাক। সফটওয়্যার হিসেবে আউট অফ দ্যা বক্স অ্যান্ড্রয়েড ৯ (পাই) থাকছে।

নোকিয়া ৮.১ প্লাসের রিয়ারে থাকছে ডুয়াল ক্যামেরা সেটাপ যার প্রাইমারি সেন্সরটি ১২ মেগাপিক্সেল এবং এফ ১.৮ অ্যাপারচারযুক্ত এবং সেকেন্ডারি সেন্সরটি একটি ১৩ মেগাপিক্সেল সেন্সর যা পোরট্রেইট ছবি তোলার ক্ষেত্রে সাহায্য করবে। আর ফ্রন্টে থাকছে ২০ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরা। নোকিয়ার অন্যান্য স্মার্টফোনের মতো এটিতেও থাকবে Bothie ফিচার, যার সাহায্যে একই সাথে ফ্রন্ট ক্যামেরা এবং ব্যাক ক্যামেরায় ছবি তোলা যাবে।

নোকিয়া ৮.১ প্লাস আগামী ২০১৯ সালের জানুয়ারি ১৪ তারিখে যুক্তরাজ্য এবং ইউরোপিয়ান মার্কেটে এভেইলেবল হবে এবং এর প্রাইস হবে ৩৮০ পাউন্ড, যা প্রায় ৪৮৩ ইউএস ডলারের সমান। এই স্মার্টফোনটি কবে গ্লোবাল রিলিজ হবে এবং সাউথ এশিয়ান মার্কেটে এভেইলেবল হবে এবং এভেইলেবল হলে এখানে প্রাইস কেমন হবে তা এখনো সঠিকভাবে জানা যায়নি।

ওয়্যারবিডি নিউজ

সোশ্যাল মিডিয়া

লজ্জা পাবেন না, সোশ্যাল মিডিয়া গুলোতে টেকহাবসের সাথে যুক্ত হয়ে সকল আপডেট গুলো সবার আগে পান!