WireBD
বেস্ট ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগইন, যেগুলো ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করার পরেই প্রয়োজনীয়!

ওয়ার্ডপ্রেস গীকঃ পর্ব ৫; বেস্ট ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগইন, যেগুলো ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করার পরেই প্রয়োজনীয়!

ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট এর গুরুত্বপূর্ন একটি বিষয় হচ্ছে আপনি এখানে কি কি ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগইন ইনস্টল করেছেন। কার্যকরী কিছু প্লাগইন এর মাধ্যমে আপনার যেমন অনেক সুবিধা হয়, তেমনি ওয়েবসাইটের পারফর্মেন্স বেড়ে যেতে পারে কয়েকগুনে। ওয়ার্ডপ্রেসকে যদি আমরা অপারেটিং সিস্টেম এর সাথে তুলনা করি, তবে প্লাগইন হল এই অপারেটিং সিস্টেম এর সফটওয়্যার বা অ্যাপ। আজকে আমি কিছু প্রয়োজনীয় তথা অত্যাবশ্যকীয় ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগইন সমূহ উল্লেখ করব; ওয়ার্ডপ্রেস ইনস্টল তথা নতুন একটি ওয়ার্ডপ্রেস সাইটে যেসব প্লাগইন আপনি অবশ্যই ব্যবহার করবেন।

ব্যাকআপ প্লাগইন

ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট স্থানান্তর তথা ওয়ার্ডপ্রেস হোস্টিং পরিবর্তনগত কারনে; আবার ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট এর সমস্ত ডাটা রক্ষার নিরাপত্তাগত কারনে নিয়মিত ওয়েবসাইট এর ব্যাকআপ সংরক্ষন করা উচিত। আর ম্যানুয়ালি এই কাজের চাপ যেহেতু নেয়া খুবই কষ্টসাধ্য ; সেহেতু আমরা এখানে ব্যবহার করতে পারি কিছু ফ্রী প্লাগইনস। আপনি কখনই চাইবেন না, আপনার সাধের কাজ সহজেই হারিয়ে যাক। সর্বদা ব্যাকআপ রাখা অত্যন্ত প্রয়োজনীয়, যেকোনো সময় সমস্যা তৈরি হতে পারে, হতে পারে হ্যাকার আপনার সাইট হ্যাক করে নিল, ব্যাস ব্যাকআপ রিস্টোর করে দিন, আর আগের অবস্থায় ফিরিয়ে নিয়ে যান সাইটকে!

All-in-One WP Migration

একটি ওয়ার্ডপ্রেস সাইট থেকে ডাটাবেজ, মিডিয়া ফাইল, প্লাগইনস, থীম এসব ট্রান্সফার করার দরকার পড়লে এই প্লাগইন তথা টুলটি খুবই কাজের। ওয়ার্ডপ্রেস সাইট এর হোস্ট পরিবর্তন করলে ;এই প্লাগিনটি ব্যবহার করে একদম ফ্রী ওয়েবসাইটের সকল ডাটা নতুন হোস্টেড ওয়ার্ডপ্রেস সাইটে রপ্তানি করা যাবে। যেকোন প্রকার ওয়েবহোস্ট এমনকি লোকাল হোস্টের সাথে এই প্লাগিনটি সমানভাবে সাপোর্টেড। ম্যাক ওএস, উইন্ডোজ এমনকি বহুল ব্যবহৃত লিনাক্স যেকোনো হোস্টের সাথে এই টুলটি সমান কার্যকর। এটি গুগল ড্রাইভ,ড্রপ বক্স,অ্যামাজন এস৩ এর মত ক্লাউড স্টোরেজেও ওয়েবসাইট এর ব্যাকআপ সংরক্ষন করতে পারে। আবার সরাসরি কম্পিউটারে ব্যাকআপ ডাউনলোড করে নিতে পারে।

UpDraftPlus

এটি অন্যতম জনপ্রিয় ফ্রী ব্যাকআপ প্লাগিন বা টুল। বর্তমানে প্রায় মিলিয়ন সক্রিয় ব্যবহারকারী   এই প্লাগইনটি ব্যবহার করছে। এই প্লাগইনটি সম্পূর্ণ ওয়ার্ডপ্রেস সাইট এবং এর ডাটাবেস এর ব্যাকআপ কেবল কম্পিউটারে নয়, ক্লাউডে নিয়ে রাখতে পারে। এটি গুগল ড্রাইভ, অ্যামাজন, রাকস্পেস ক্লাউড,ড্রপবক্স ইত্যাদি ক্লাউড স্টোরেজে ব্যাকআপ সংরক্ষন করে। আবার যখন ব্যাকআপ রিস্টোর করার সময় আসে, তখন সরাসরি ক্লাউড স্টোরেজ থেকেই এটি ব্যাকআপ ফাইলটি হোস্টিং সার্ভারে নিয়ে আসে। এখানে ব্যকআপ ফাইলটি ডাউনলোড বা আপলোড করার প্রয়োজন পরে না।

BackWPUp

এটিও একটি ফ্রি ওয়ার্ডপ্রেস ব্যাকআপ প্লাগিন। ওয়ার্ডপ্রেস সাইটের ব্যাকআপ অ্যামাজন এস৩ ক্লাউড স্টোরেজ, ড্রপবক্স, রাকস্পেস ক্লাউড, আপনার সার্ভারের FTP এমনকি কম্পিউটারে জমা করে রাখা যাবে। এটি একটি সিডিউলড টাইম অনুযায়ী আপনার ওয়ার্ডপ্রেসের ব্যাকআপ সংগ্রহ করতে থাকবে। এই প্লাগিনটির প্রো ভার্সন গুগল ক্লাউডে ব্যাকআপ স্টোর করারও অপশন দেয়।

সিকিউরিটি প্লাগিন

ওয়ার্ডপ্রেস নিজে থেকেই একটি সিকিউরড প্লাটফর্ম; তবুও এতে কিছু সিকিউরিটি প্লাগিন যোগ করার মাধ্যমে এক্সট্রা সিকিউরিটি ও ফায়ারওয়াল নিশ্চিত করার মাধ্যমে ওয়ার্ডপ্রেস আরও বেশি নিরাপদ হয়। এখানে দুটি প্লাগিন নিয়ে আলোচনা করব, যে ফ্রী প্লাগিনগুলো ব্যবহার করে আপনি আপনার ওয়ার্ডপ্রেসের সিকিউরিটি নিশ্চিত করতে পারবেন।

Word Fence

এটি ওয়ার্ডপ্রেস এর  অন্যতম জনপ্রিয় একটি সিকিউরিটি ও ম্যালওয়্যার স্ক্যানিং প্লাগইন । প্লাগইনটি সিডিউলড টাইম টেবিল মেনে নিয়মিত ওয়ার্ডপ্রেস এর ফায়ারওয়ালকে চেক করে । ম্যালিসিয়াস আইপি অ্যাড্রেস এবং ম্যালিসিয়াস ট্রাফিক কে এটি ডিটেক্ট করতে পারে এবং তা ব্লক করতে পারে । এমনকি ওয়ার্ডপ্রেস ভিত্তিক ওয়েবসাইটে কোন সাসপিসিয়াস বা সন্দেহজনক আক্টিভিটি ; ভাইরাস এর উপস্থিতি এই প্লাগিনটি ডিটেক্ট করে ফেলতে পারে । ওয়ার্ডফেঞ্চ প্লাগিন টির ফ্রী ভার্সন থেকে এর প্রিমিয়াম ভার্সনে অনেক সুবিধা বেশি পাওয়া যায় । যেমন, এর প্রিমিয়াম ভার্সনটি ওয়ার্ডপ্রেস ব্রুট ফোর্স অ্যাটাককে রুখে দিতে পারে ।

All in one WP Security

এই প্লাগইনটি ওয়ার্ডপ্রেস সিকিউরিটি বিষয়ক আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ প্লাগইন। প্লাগইনটি ব্যবহার করা খুবই সহজ। এই All in one WP Security ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইটকে নানাভাবে নিরাপদে রাখে। এটি ব্যাসিক, ইন্টারমিডিয়েট এবং অ্যাডভান্সড তিনটি ধাপে ফায়ারওয়াল রুলস প্রয়োগ করার মধ্য দিয়ে ওয়ার্ডপ্রেসের নিরাপত্তাকে নিশ্চিত করে। এই প্লাগিনটি কোনো ইউজার এর ইউজারনেম এবং পাসওয়ার্ডে কোনো সমস্যা রয়েছে কিনা তা নিশ্চিত করে। করো ইউজারনেম পাবলিক করা থাকলে তা অ্যাডমিনকে জানায়, কেননা ইউজারনেম জানার মাধ্যমে হ্যাকারের হ্যাক করা ৫০% সহজ হয়ে যায়। এর ভেতরকার পাসওয়ার্ড স্ট্রেন্থ ফিচারটি ইউজারদের আরও শক্তিসালী পাসওয়ার্ড তৈরি করতে সহায়তা করে। প্লাগিনটি ব্রুট ফোর্স লগিন অ্যাটাক থেকে ওয়ার্ডপ্রেস সাইটকে রক্ষা করে। কেউ যদি একাধিকবার ভুল পাসওয়ার্ডে লগিন করার চেষ্টা করে তবে তার আইপি অ্যাড্রেসকে এটি সাইটের প্রবেশ থেকে লকড করে দেয়। ওয়ার্ডপ্রেস ইউজার রেজিস্ট্রেশন এর ক্ষেত্রে এটি ক্যাপচা এনেবল করতে পারে। পাশাপাশি এটি ডাটাবেজ এবং ওয়ার্ডপ্রেস এর ফাইল সিস্টেম সিকিউরিটি নিশ্চিত করে।

ওয়ার্ডপ্রেস ক্যাশ প্লাগইন

ওয়ার্ডপ্রেস সাইটের লোডিং স্পীডকে আরও বুস্ট করার আরেকটি উপায় হচ্ছে ক্যাশ প্লাগিন ব্যবহার করা। এই প্লাগিন তথা ক্যাশ টুলগুলো একটি সেভড ওয়েবপেজকে অনেক ভিজিটর এর মাঝে দেখায়। এতে করে ভিজিটরদের কাছে ওয়েবপেজ লোডিং হয়ে ওঠে আরও ফাস্ট।

WP Super Cache

২ মিলিয়ন এর বেশি অ্যাকটিভ ইনস্টলেশন এর সাথে WP Super Cache ওয়ার্ডপ্রেসের অন্যতম জনপ্রিয় একটি ক্যাশ প্লাগিন। এই প্লাগিনটি ওয়ার্ডপ্রেস ব্লগ এর একটি স্ট্যাটিক এইচটিএমএল ফাইল জেনারেট করে। এইচটিএমএল ফাইল জেনারেট হলে ওয়েবসার্ভার বড় বড় পিএইচপি স্ক্রিপ্ট লোড করার বদলে এসব এইচটিএমএল ফাইল দর্শকদের দেখায়, এতে করে লোডিং হয় খুবই ফাস্ট। প্লাগিনটির স্পেশাল CDN ফিচার থাকার ফলে ব্যবহারকারীদের নিকটস্থ সার্ভার থেকে এটি আরও তাড়াতাড়ি ফাইল সার্ভ করবে। মূলত প্লাগিনটি একটি ওয়ার্ডপ্রেস সাইট এর PHP স্ক্রিপ্টকে খুবই সিম্পল করে ওয়েবসাইট দর্শকদের মাঝে সার্ভ করে। এই প্লাগিনটি সম্পূর্ন ফ্রী এবং এটি তৈরি করেছে ওয়ার্ডপ্রেস নির্মাতা প্রতিষ্ঠান Automattic.

W3 Total Cache

একে বলা যায় ওয়ার্ডপ্রেস এর ব্রাউজিং পারফর্মেন্স বাড়ানোর একটি প্লাগিন। ওয়েবসাইট এর লোডিং স্পীড কমানোর ক্ষেত্রে আপনি W3 Total Cache প্লাগিনটিকেও ব্যবহার করতে পারেন। প্রতিটি ওয়েব পেজ লোডিং এর ক্ষেত্রে এটি ওয়েবপেজ ডাউনলোড কে কমিয়ে দেয়, এতে করে প্লাগিনটি কিছুটা সিডিএন এর মত কাজ করে; এর ফলে সাধারন এর তুলনায় ওয়েবসাইট খুবই ফাস্ট লোড হয়। মেকইউজঅফ,ম্যাসেবল এর মত ওয়েবসাইট এই প্লাগিনটি ব্যবহার করে থাকে।

আরো অন্যান্য প্লাগইন

MonsterInsights

এটি ওয়ার্ডপ্রেসের জন্য একটি কমপ্লিট গুগল অ্যানালাইটিকস প্লাগিন। আমরা নিশ্চয়ই জানি গুগল অ্যানালাইটিক্স ওয়েবসাইট এর যাবতীয় ট্রাফিক সহ সকল প্রকার গতিবিধি পর্যবেক্ষন এর সবচেয়ে কার্যকরী টুল। আর ওয়ার্ডপ্রেসে বসে এই গুগল অ্যানালাইটিকস এর যাবতীয় সব রিপোর্ট দেখতে পারবেন মনস্টারইনসাইটস প্লাগইনটি ব্যবহার করে। প্লাগিনটিকে খুবই সহজে গুগল অ্যানালাইটিকস এর সাথে কানেক্ট করা যায়। ১ মিলিয়ন এর বেশি অ্যাকটিভ ইনস্টলেশন এর সাথে এটি বর্তমানে অন্যতম জনপ্রিয় একটি ওয়ার্ডপ্রেস ট্র্যাকিং প্লাগিন।

Jetpack

Source/Wordpress.org

জেটপ্যাক Automattic এর তৈরি আরেকটি বহুল জনপ্রিয় ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন। একে ওয়ার্ডপ্রেস মার্কেটিং কাম ওয়ার্ডপ্রেস সিকিউরিটি প্লাগইনও বলা যায়। মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে এই জেটপ্যাক সার্ভিস টিতে রয়েছে সার্চ ইঞ্জিম এর জন্য বেশকিছু এসইও টুলস,জেটপ্যাক এর মাধ্যমে সাইটের XML সাইটম্যাপও তৈরি করা যায়। ওয়ার্ডপ্রেস সাইটের অ্যানালাইটিকস রিপোর্টও দেখা যায় এই জেটপ্যাক থেকে। কোনো কারনে সাইট ডাউন,ডাটালস বা কেউ হ্যাকিং এর চেষ্টা করলে এই প্লাগিনটি সাইট এর অ্যাডমিনকে ইমেইল এর মাধ্যমে সতর্ক করে দেয়। জেটপ্যাক এর পেইড সাবস্ক্রিপশন ভল্টপ্রেসের মাধ্যমে সমস্ত সাইটের ব্যাকআপ নিয়ে থাকে।

Yoast SEO

ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট বা যেকোন ওয়েবসাইট হোক, এসইও খুবই গুরুত্বপূর্ণ । আর ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইটে এসইও জনিত যাবতীয় সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করার জন্য বিশ্বস্থ একটি প্লাগিন ইয়োস্ট এসইও। বড় বড় এসইও অ্যানালাইসিস্ট ওয়ার্ডপ্রেস এর জন্য এই প্লাগিনটিকেই রেকমেন্ড করেন। ওয়্যারবিডিও ইয়োস্ট এসইও প্লাগিন ব্যবহার করে। ইয়োস্ট এসইও ব্যবহার করে প্রতিটি পেজে এসইও গ্রীনমার্ক নিশ্চিত করে সার্চ রেজাল্টে রাংক বাড়ানো সম্ভব। তাই ওয়ার্ডপ্রেস ইনস্টল করার পরই ইয়োস্ট এসইও প্লাগিনটি ইনস্টল করতে হবে। যারা ওয়েবসাইট চালান বা ব্লগিং করেন, তারা নিশ্চয়ই জানেন ওয়েবসাইট এর ক্ষেত্রে সবচেয়ে কঠিন বিষয় হল এই এসইও। এই প্লাগিন ব্যবহার করে এই এসইও এর ব্যাপারটা হ্যান্ডেল করা অনেকটা সহজ হয়। ইয়োস্ট এসইও ব্যবহার করে সোশ্যাল মিডিয়ার জন্য আলাদা কাস্টম টাইটেল এবং ইমেজ ব্যবহার করা যায়।আরো কিছু কাস্টম ফিচার আছে। যেমন,

  • পোস্ট এর এসইও টাইটেল এবং মেটা ডেসক্রিপশন পরিবর্তন।
  • গুগল সার্চ রেজাল্টে কেমন আসবে তার প্রিভিউ।
  • ফোকাস কীওয়ার্ড টেস্টিং।
  • XML সাইটম্যাপ।

Akismet

আপনি যদি কিছুদিন হল ওয়ার্ডপ্রেসে পোস্টিং শুরু করে থাকেন, তবে নিশ্চয়ই স্প্যাম কমেন্ট এর সাথে পরিচিত হয়েছেন, তাই নয় কি? ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইটে প্রতিনিয়ত বহু স্প্যাম কমেন্ট আসে, আর আপনি নিশ্চয়ই এতসব আযথা কমেন্ট চান না। Akismet নামক এই প্লাগিনটি এই সমস্যা মেটানোর জন্য একটি দারুন এবং কার্যকর প্লাগিন।
এই প্লাগিনটি ওয়ার্ডপ্রেস নির্মাতা প্রতিষ্ঠান Automattic এর তৈরি। এটি প্রতিটি সন্দেহজনক কমেন্টকে ট্যাক করে এবং অন্যান্য ওয়েবসাইটে যদি সেই একই কমেন্ট যায়, তবে তাকে স্প্যাম হিসেবে ডিটেক্ট করে। তবে একটা বিষয় হল এই প্লাগিনটি আপনাকে নিজে থেকে ইনস্টল করতে হবে না ; নতুন ওয়ার্ডপ্রেস সাইটে আপনি দেখবেন যে, আগে থেকেই এই প্লাগিন ইনস্টল অবস্হায় রয়েছে। আপনাকে কেবল এটিকে অ্যাকটিভ করে নিতে হবে।

Ewww Image Optimizer

ওয়ার্ডপ্রেস সাইটে পোস্ট করার ক্ষেত্রে নিশ্চয়ই আপনি এক বা একাধিক ছবি ব্যবহার করেন, তাই নয় কি? যত বেশি ছবি ওয়েবপেজটি লোড হতে তত বেশি সময় লাগবে। আর এই প্লাগিনটি ওয়েবপেজ লোডিং স্পীড কমিয়ে দেয়, ওয়ার্ডপ্রেসে আপলোডকৃত ইমেজগুলো অপটিমাইজ করে। ইমেজগুলো অপটিমাইজ করার ফলে ওয়েবপেজগুলো আরো ফাস্ট লোডিং হয়, আর ফাস্ট লোডিং ওয়েবসাইটগুলো সার্চ রেজাল্টে সবার আগে থাকে। ৬ মিলিয়ন এর অধিক অ্যাক্টিভ ইনস্টলেশনের সাথে এটি অত্যান্ত জনপ্রিয় ইমেজ অপটিমাইজেশন প্লাগিন।

 


এই ছিল নতুন ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট এর জন্য অত্যাবশ্যকীয় কিছু প্লাগইন। ব্যাকআপ, ক্যাশ, সিকিউরিটি, পারফর্মেন্স অপটিমাইজেশন সম্পর্কিত এসব প্লাগইন প্রত্যেক ওয়ার্ডপ্রেস সাইট এর জন্য অত্যান্ত প্রয়োজনীয়। এগুলোর চাইতে বেশি সুবিধা এবং ফিচার সমৃদ্ধ অনেক প্লাগিনস রয়েছে, তবে তাদের বেশিরভাগই পেইড। আশা করি ওয়ার্ডপ্রেস সিরিজের এই আর্টিকেলটি আপনাদের ভালো লেগেছে। শীর্ঘই ফিরে আসছি পরবর্তী পর্ব নিয়ে।

তৌহিদুর রহমান মাহিন

কোন কিছু জেনে সেটা মানুষের মাঝে ছড়িয়ে দেয়ার মধ্য দিয়েই সার্থকতা । আমি মোঃ তৌহিদুর রহমান মাহিন- ভালোবাসি প্রযুক্তিকে , আরও ভালোবাসি প্রযুক্তি সম্পর্কে বেশি বেশি জানতে- জানাতে। নিয়মিত মানসম্মত প্রযুক্তি বিষয়ক আর্টিকেল উপহার দেয়ার প্রত্যয়ে আছি টেকহাবস এর সাথে।

6 comments

  • লাইফ সেভার পোস্ট ভাই।
    বাট ঘটনা হচ্ছে,,, ভালো হোস্ট কিভাবে কিনব। ইন্টারন্যাশনাল কোম্পানি থেকে নিয়ে পারছি না কেননা ক্রেডিট কার্ড বা পেপাল নাই। এখন বাংলাদেশই কোম্পানি থেকে হোস্ট নেওয়া কতটা ভরসা যোগ্গ?

    অগরিম ধন্যবাদ

    • বাংলাদেশী বেশ কিছু ভালো সার্ভিস প্রোভাইডার রয়েছে। যেমন : এক্সনহোস্ট,স্পীডহোস্ট ইত্যাদি

  • খুবই গুরুত্বপূর্ণ আর্টিকেল ছিল। অনেক কিছু জানতে পারলাম। মজাও পেলাম। আল্লাহ আপনার মঙ্গল করুন। ধন্যবাদ ভাইয়া।

সোশ্যাল মিডিয়া

লজ্জা পাবেন না, সোশ্যাল মিডিয়া গুলোতে টেকহাবসের সাথে যুক্ত হয়ে সকল আপডেট গুলো সবার আগে পান!