বর্তমান তারিখ:22 August, 2019

৫ টি বেস্ট ফ্রি অনলাইন মিউজিক স্ট্রিমিং সার্ভিস!

গান তো আমরা সবাই শুনি। কেউ ফোনে শুনি, কেউ টিভিতে আবার কেউ রেডিওতে, আবার প্রায় সবাই এই সব মাধ্যমেই গান শুনি। যাইহোক, সবথেকে বেশি গান শোনা হয় আমাদের স্মার্টফোনে। সেক্ষেত্রে আমাদের মধ্যে ৯০% এর ও বেশি স্মার্টফোন ইউজার যা করে তা হচ্ছে, গুগলে গিয়ে পছন্দের গানটির না লিখে সার্চ করে যেকোনো একটি ওয়েবসাইট থেকে গানটির এমপিথ্রি ফাইল ডাউনলোড করে যেকোনো একটি মিউজিক প্লেয়ার দিয়ে গানটি প্লে করে শুনতে থাকে। এর ফলে দুটি লাভ হয়। প্রথমত গানটি প্রত্যেকবার শোনার জন্য কোনো ইন্টারনেট ব্যান্ডউইথ খরচ হচ্ছেনা এবং গানটি ইন্টারনেট কানেকশন না থাকলেও অফলাইনে শোনা যাচ্ছে। কিন্তু অনেকেই যে ব্যাপারটি জানেন না তা হচ্ছে, এভাবে ডাউনলোড করা সব মিউজিকই পাইরেটেড মিউজিক বা এককথায় বললে অবৈধ মিউজিক।

এখানেই মূলত চলে আসে অনলাইন মিউজিক স্ট্রিমিং সার্ভিসগুলোর বিষয়টি। অধিকাংশ জনপ্রিয় অনলাইন মিউজিক স্ট্রিমিং প্লাটফর্মে আপনি যেসব মিউজিক স্ট্রিম করে শুনতে পারবেন, সেসব মিউজিক ১০০% লেজিট বা বৈধ। কিন্তু এটারও তেমনই কিছু অসুবিধা আছে। প্রথমত অধিকাংশ ক্ষেত্রে আপনাকে এর জন্য কোনো একটি সাবস্ক্রিপশন কিনতে হয় অর্থাৎ টাকা খরচ করতে হয়। আর আপনি যদি খরচ না করতে চান তাহলে আপনাকে কিছু ফিচারস কম্প্রোমাইজ করতে হয় যেমন অফলাইন লিসেনিং, অ্যাডস ইত্যাদি। যদিও অনেক ফ্রি মিউজিক স্ট্রিমিং সার্ভিসও আছে। এছাড়া আপনি যদি লিমিটেড ইন্টারনেট ইউজার হয়ে থাকেন অর্থাৎ মোবাইল অপারেটর থেকে ডেটা প্যাক কিনে ব্যবহার করেন, তাহলে আপনি অবশ্যই অনলাইনে মিউজিক স্ট্রিম করে শুনবেন না। কারণ, এর ফলে আপনার ডেটা খরচ হবে। তাদের জন্য আমি অনলাইন মিউজিক স্ট্রিমিং সার্ভিসগুলো রিকমেন্ডও করবো না।

তবে আপনি যদি ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট ইউজার হন এবং ডেটার কোনো লিমিটেশন না থাকে, তাহলে আমি মনে করি আপনার জন্য এসব অনলাইন মিউজিক স্ট্রিমিং সার্ভিসই ব্যবহার করা ভালো যদি আপনি লিগ্যাল ওয়েতে মিউজিক উপভোগ করতে চান পাইরেসির দিকে না গিয়ে। আমি লিগ্যাল মিউজিকের মধ্যে পাইরেটেড মিউজিকের তুলনায় ব্যাবহারিক তেমন কোনো লাভ দেখিনা, তবে যদি আনলিমিটেড ইন্টরনেট থাকে আপনার এবং সবথেকে বড় কথা, মেন্টাল স্যাটিসফ্যাকশনের কথা চিন্তা করেন, তাহলে লিগ্যাল মিউজিক স্ট্রিম করে শোনাই বেস্ট। যাইহোক, আজকে এমন পাঁচটি অনলাইন মিউজিক স্ট্রিমিং সার্ভিস এবং অ্যাপ নিয়ে আলোচনা করবো যেগুলো আপনার অবশ্যই ব্যবহার করে দেখা উচিত যদি আপনি আনলিমিটেড ইন্টারনেট ইউজার হয়ে থাকেন।


১. SoundCloud

ফ্রি অনলাইন মিউজিক স্ট্রিমিং সার্ভিসের কথা বলতে হলে প্রথমেই বলতে হয় সাউন্ডক্লাউড এর কথা। প্রথমত সাউন্ডক্লাউড ব্যবহার করতে হলে আপনাকে ভিপিএন ব্যবহার করতে হবেনা। কারণ এখানে কোনো কান্ট্রি রেস্ট্রিকশন নেই স্পোটিফাই এর মতো। আপনাকে শুধুমাত্র যা করতে হবে তা হচ্ছে আপনার ফেসবুক একাউন্ট অথবা গুগল একাউন্ট অথবা ইমেইল এড্রেস ব্যবহার করে একটি ইউজার একাউন্ট করতে হবে সাউন্ডক্লাউডে। এরপর আপনি সাউন্ডক্লাউডের ওয়েবসাইটে গিয়ে এবং আপনার স্মার্টফোনে সাউন্ডক্লাউড অ্যাপ ডাউনলোড করে যেকোনো গান স্ট্রিম করে শুনতে পারবেন। তবে সাউন্ডক্লাউডের মিউজিক লাইব্রেরি এই লিস্টের অন্যান্যগুলোর মিউজিক লাইব্রেরির তুলনায় একটু ছোট। তাই আপনি এখানে সব গান নাও পেতে পারেন। তবে সাউন্ডক্লাউড মূলত যে কারণে স্পেশাল তা হচ্ছে, আপনি এখানে গান সার্চ করলে শুধুমাত্র আর্টিস্ট এর নিজের গাওয়া গানই পাবেন তা না, বরং ওই গানটির আরো অনেক কভার, রিমেক এবং আরও অনেককিছু পাবেন যেগুলো অন্যান্য ট্যালেন্টেড আর্টিস্ট গেয়েছেন যাদের নামও হয়তো আপনি শোনেন নি। আপনি যদি মেইন আর্টিস্ট এর গানটি খুঁজে নাও পান, তবুও এসব কভার এবং রিমেকগুলো অবশ্যই পাবেন। তাই নতুন মিউজিক ডিসকভার করার জন্য অন্যতম একটি অ্যাপ হচ্ছে সাউন্ডক্লাউড।

সাউন্ডক্লাউড ওয়েবসাইট/ওয়েব প্লেয়ার : এখানে

সাউন্ডক্লাউড অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ : এখানে

২. Saavn

অনলাইন মিউজিক স্ট্রিমিং সার্ভিস হিসেবে এই সার্ভিসটিও বেশ ভালো। নাম শুনেই হয়তো বুঝতে পেরেছেন যে এটি মূলত ইন্ডিয়ান রিজিয়নকে উদ্দেশ্য করে তৈরী করা। কিন্তু তাই বলে এখানে আপনি শুধুমাত্র ইন্ডিয়ান মিউজিকই পাবেন ইটা ভাববেন না। Saavn এর মিউজিক লাইব্রেরি কিন্তু অনেক বড়। এখানে মূলত আপনার প্রয়োজনীয় প্রায় সব গানই পাবেন। ইংলিশ গান, বলিউড মিউজিক থেকে শুরু করে অনেক বাংলা গানও পাবেন এখানে। তবে সব বাংলা গান আশা করলে অবশ্য পাবেন না। তবে ইংলিশ গান এবং বলিউড মিউজিক প্রায় সবই পাবেন এখানে। এই অ্যাপটির ইউজার ইন্টারফেসটিও অনেক সুন্দর। কিন্তু আমার মতে Saavn এর সবথেকে বড় ড্রব্যাক হচ্ছে অ্যাডস। এই অ্যাপটি মোটেও অ্যাডফ্রি এর ধারেকাছেও নয়। আপনাকে প্রায় প্রতি ৪-৫ টি গানের পরেই একটি করে ২০ সেকেন্ড অ্যাড দেখতে হবে, যা মেনে নেওয়া যায় Saavn এর মিউজিক কালেকশন কনসিডার করে। তবে আপনি যদি Saavn এর প্রিমিয়াম সাবস্ক্রিপশন নেন, তাহলে আপনাকে একটি অ্যাডও দেখতে হবেনা এবং আপনি প্রত্যেকটি গান অফলাইনেও শুনতে পারবেন। এছাড়াও পাবেন আরো বেটার মিউজিক কোয়ালিটি। তবে প্রিমিয়াম সাবস্ক্রিপশন নিতে চাইলে আপনাকে প্রতিমাসে প্রায় ৪০০ টাকার মতো গুনতে হবে। তবে আমি এটার ফ্রি ভার্সনই রিকমেন্ড করবো।

Saavn ওয়েবসাইট/ ওয়েব প্লেয়ার : এখানে

Saavn অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ :  এখানে

৩. Gaana

এটার নাম শুনেও নিশ্চই বুঝতেই পারছেন যে এটিও ইন্ডিয়া রিজিওনকে উদ্দেশ্য করেই তৈরী এবং এখানেও বলিউড মিউজিক বেশি পাবেন। তবে এখানে এটাও ইনক্লুড করলাম Saavn এর একটি অল্টারনেটিভ হিসেবে। কারণ এটিও ফিচারস এবং মিউজিক কালেকশনের দিক থেকে একেবারেই Saavn এর মতোই। এখানেও আপনি জনপ্রিয় সব ইংলিশ গান এবং বলিউড মিউজিক পাবেন। তবে এটি ব্যবহার করলে একটি সুবিধা বেশি পাবেন যেটি Saavn এ পাবেন না। তা হচ্ছে কিছুটা কম অ্যাডস। এই অ্যাপটি Saavn এর থেকে তুলনামূলক কম অ্যাডস শো করে, যার গোলে এর ইউজার ইন্টারফেস অনেক বেশি ক্লিন। এছাড়া এখানে যদি আপনি প্রিমিয়াম মেম্বারশিপ নিতে চান, তাহলে তার খরচও Saavn এর থেকে কিছুটা কম। তবে প্রিমিয়াম সাবস্ক্রিপশনের সব ফিচারস প্রায় Saavn এর মতোই।

Gaana ওয়েবসাইট/ওয়েব প্লেয়ার : এখানে

Gaana অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ : এখানে

৪. Yonder Music (Robi)

নাম শুনেই এতোক্ষনে বুঝতে পেরেছেন, এটি হচ্ছে আমাদের দেশের একটি মেজর টেলিকম অপারেটর, রবির মিউজিক স্ট্রিমিং সার্ভিস। আর হ্যা, এই লিস্টের মধ্যে এটাই আমার সবথেকে প্রিয় মিউজিক স্ট্রিমিং অ্যাপ। কেন? সেটাই বলছি। প্রথমত এই অ্যাপটি অর্থাৎ এই স্ট্রিমিং সার্ভিসটি সকল রবি ২জি/৩জি/৪জি গ্রাহকের জন্য সম্পূর্ণ ফ্রি। অর্থাৎ এটি ব্যবহার করতে আপনার কোনো ধরণের ডেটা কনজিউম হবেনা যদি আপনি রবি গ্রাহক হন। এবং এমনকি আপনি যদি রবি গ্রাহক হন তাহলে আপনি এখানে থাকা যেকোনো মিউজিক অফলাইনেও শুনতে পারবেন চাইলে। আর দ্বিতীয় কারণ হচ্ছে, এর মিউজিক কালেকশন। আপনি বিলিভ করুন না নাই করুন, এটার মিউজিক লাইব্রেরি অনেক বড়। আপনি আপনার দরকারি প্রায় সব জনপ্রিয় ইংরেজি এবং বাংলা (বাংলাদেশের) গান পাবেন। তবে বলিউড মিউজিক এখানে খুঁজলে খুব বেশি পাবেন না। বলিউড মিউজিকের জন্য Saavn বেস্ট। যাইহোক, Yonder Music এ আরও একটি বেশ মজার ফিচার আছে। তা হচ্ছে Karaoke যার সাহায্যে আপনি কিছু সিলেক্টেড গান মিউজিকের সাথে নিজে গেয়ে নিজের একটি ভিডিও তৈরী করতে পারবেন এবং সেটি সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ারও করতে পারবেন। এছাড়া এটির ইউজার ইন্টারফেসও অনেক আকর্ষণীয়। আ হ্যা, এটি প্রাইমারিলি রবি গ্রাহকদের জন্য হলেও আপনি যদি এয়ারটেল গ্রাহক হন, তাহলে সঙ্গত কারণেই আপনিও এই অ্যাপটির সব ফিচার ফ্রি উপভোগ করতে পারবেন।

Yonder Music অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ : এখানে (রবি) এবং এখানে (এয়ারটেল)

৫. Spotify

আমার মনে হয়না মিউজিক স্ট্রিমিং সার্ভিস, স্পোটিফাই এর ব্যাপারে নতুন করে কিছু বলার আছে। এটি বলতে হলে ওয়ার্ল্ড এর সবথেকে জনপ্রিয় এবং সবথেকে প্রিমিয়াম মিউজিক স্ট্রিমিং প্লাটফর্ম। আপনারা অনেকেই হয়তো জানেন এটার ব্যাপারে এবং অনেকে ব্যবহার করার চেষ্টাও করেছেন কিন্তু পারেন নি। কারণ স্পোটিফাই বাংলাদেশে অফিসিয়ালি এভেইলেবল নয়। আপনি প্লে স্টোরে স্পটিফাই অ্যাপ খুঁজলে পাবেন না। এবং ওয়েবসাইটেও গেলে দেখবেন যে এটি বাংলাদেশে এভেইলেবল নয়। তবে আপনি চাইলে তবুও স্পোটিফাই এর ফ্রি ভার্সন বাংলাদেশে ব্যবহার করতে পারেন। তবে যে ট্রিকটি বলবো সেটি সবার ক্ষেত্রেই কাজ করবে এমন কোনো নিশ্চয়তা নেই। তবে আশা করা যায় অধিকাংশ ইউজারের ক্ষেত্রেই কাজ করবে।

তো এর জন্য আপনাকে শুধুমাত্র একটি ফ্রি ইউএস ভিপিএন জোগাড় করতে হবে। আপনি ওয়্যারবিডিের একজন নিয়মিত পাঠক মানে আমি ধরেই নিতে পারি ভিপিএন কি এবং কি কাজে ব্যবহার করা হয় এ বিষয়ে আপনার খুব পরিষ্কার ধারণা আছে। কিন্তু ফ্রি ভিপিএন কোথায় পাবেন? এর জন্য BetterNet গুগল ক্রোম এক্সটেনশনটি ব্যবহার করতে পারেন। এটি আমাদের মাত্র কিছুক্ষনের জন্যই লাগবে। এবার বেটারনেট থেকে কান্ট্রিতে ইউএস সিলেক্ট করে নিয়ে ভিপিএন একটিভ করে দিন। এবার চলে যান স্পটিফাই এর ওয়েবসাইট অর্থাৎ https://spotify.com/us এই লিংকে। এবার এখানে গিয়ে আপনার ইমেইল এড্রেস দিয়ে আপনার একটি ইউজার একাউন্ট ক্রিয়েট করে নিন।

এবার চলে আসুন আপনার স্মার্টফোনে। এখানে আগে এই লিংক থেকে আপনার ফোনের জন্য উপযুক্ত স্পোটিফাই এর ভার্সন ডাউনলোড করে নিন। এবার ইনস্টল করে ফেলুন, তবে ওপেন করবেন না। এবার সরাসরি চলে যান গুগল প্লে স্টোরে এবং একটি ফ্রি ভিপিএন অ্যাপ ডাউনলোড করে নিন যেটি আপনাকে ইউএস সার্ভার দিতে পারবে। না পেলে আমি রিকমেন্ড করবো TurboVPN ইউজ করতে। কারণ, এটি ইউএস সার্ভার দেবে। এমন না যে এটি বেস্ট ভিপিএন। কিন্তু আমাদের জাস্ট অল্প সময়ের জন্য দরকার। তাই এটি ব্যবহার করছি। এরপর ভিপিএন অ্যাপটি ওপেন করুন এবং কান্ট্রি ইউএস সিলেক্ট করে ইউএস ভিপিএনে কানেক্ট করুন। কানেক্ট হয়ে গেলে এবার ইনস্টল করা স্পোটিফাই অ্যাপটি ওপেন করুন। আপনার ক্রিয়েট করা একাউন্ট এর ইমেইল এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করুন। যদি মেথডটি কাজ করে থাকে, তাহলে স্মুথলি লগইন হয়ে যাওয়ার কথা। ব্যাস। কাজ শেষ। এবার আপনার ইচ্ছামতো ব্যবহার করতে পারবেন স্পোটিফাই। এবার আপনি ভিপিএন ডিজেবল করে দিতে পারেন এবং ভিপিএন অ্যাপটিও আনইনস্টল করে দিতে পারবেন। কারণ, এরপর আর গান শোনার জন্য ভিপিএন দরকার হবেনা আপনার যতক্ষণ আপনি লগইন আছেন। কিন্তু লগ আউট করলে আবার লগইন করার সময় ভিপিএন দরকার হবে।

আর হ্যা, আপনি পিসি থেকে  https://open.spotify.com  এই লিংকে গিয়ে আপনার স্পোটিফাই একাউন্ট লগইন করে স্পোটিফাই ওয়েব প্লেয়ার ব্যবহার করে পিসি থেকেও মিউজিক স্ট্রিম করতে পারবেন। এক্ষেত্রেও আপনার কোনো ভিপিএন দরকার হবেনা।



WiREBD এখন ইউটিউবে, নিয়মিত টেক/বিজ্ঞান/লাইফ স্টাইল বিষয়ক ভিডিও গুলো পেতে WiREBD ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুণ! জাস্ট, youtube.com/wirebd — এই লিংকে চলে যান এবং সাবস্ক্রাইব বাটনটি হিট করুণ!

তো এই ছিল ৫ টি বেস্ট অনলাইন মিউজিক স্ট্রিমিং সার্ভিস যেগুলো আপনি ব্যবহার করতে পারেন যদি আপনি আনলিমিটেড ইন্টারনেট ইউজার হয়ে থাকেন। আজকের মতো এখানেই শেষ করছি। আশা করি আজকের আর্টিকেলটি আপনাদের ভালো লেগেছে। কোনো ধরণের প্রশ্ন বা মতামত থাকলে অবশ্যই কমেন্ট সেকশনে জানাবেন।

অনেক ছোটবেলা থেকেই প্রযুক্তির প্রতি আকর্ষণ ছিলো এবং হয়তো সেই আকর্ষণটা আরো সাধারন দশ জনের থেকে একটু বেশি। নোকিয়ার বাটন ফোন থেকে শুরু করে ইনফিনিটি ডিসপ্লের বেজেললেস স্মার্টফোন, সবই আমার প্রিয়। জীবনে টেকনোলজি আমাকে যতটা ইম্প্রেস করেছে ততোটা অন্যকিছু কখনো করতে পারেনি। আর এই প্রযুক্তির প্রতি আগ্রহ থেকেই লেখালেখির শুরু.....

3 Comments

  1. রিয়ান সাব্বির Reply

    Yonder Music ব্যবহার করেছিলাম কিন্তু ডাটা চার্জ হইয় না এটা জানতাম না।

    ধন্যবাদ ভাইয়া।

    1. সিয়াম একান্ত Post author Reply

      আপনি যদি রবি সিম ব্যবহার করেন, তাহলেই শুধুমাত্র ডেটা চার্জ হয়না। অন্যান্য কোনো নেটওয়ার্ক ব্যবহার করলে অবশ্যই ডেটা চার্জ হবে। 🙂

  2. Salam Ratul Reply

    খুবই মজা পেলাম। চরম লেগেছে আর্টিকেলটি। ধন্যবাদ ভাইয়া।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *