WireBD

এক নজরে মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস ২০১৮ : নতুন স্মার্টফোন অ্যানাউন্সমেন্টস!

মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস বা MWC আমাদের বাংলাদেশের মানুষের জন্য খুব একটা আগ্রহের কিছু না এবং কখনো ছিলোও না। সত্যি কথা বলতে বাংলাদেশের মানুষের জন্য এটাই স্বাভাবিক। কারণ, এখানে যেসব স্মার্টফোন এবং গ্যাজেটস অ্যানাউন্স করা হয় বা শো অফ করা হয় সেগুলোর খুব কম সংখ্যক ডিভাইসই বাংলাদেশের বাজার পর্যন্ত আসে। যাইহোক, তবে আপনি যদি প্রযুক্তিপ্রেমী হন এবং স্মার্টফোন এবং কম্পিউটিং ডিভাইসগুলো নিয়ে অনেক বেশি আগ্রহী হন, তাহলে আপনি অবশ্যই জানেন প্রত্যেক বছর স্পেইনের বার্সেলোনা শহরে অনুষ্ঠিত হওয়া পৃথিবীর এই সবথেকে বড় মোবাইল শো ডাউন বা মোবাইল প্রদর্শনী ইভেন্টের ব্যাপারে।

গত সপ্তাহেই এই ইভেন্টটি বার্সেলোনায় অনুষ্ঠিত হয়। বিভিন্ন স্মার্টফোন এবং ল্যাপটপ ম্যানুফ্যাকচারার তাদের নতুন স্মার্টফোন এবং গ্যাজেটস অ্যানাউন্স করে এবং শো অফ এখানে।এই ইভেন্টটিতে মূলত বিভিন্ন বিখ্যাত ফোন ম্যানুফ্যাকচারারদের মধ্যে প্রতিযোগিতা শুরু হয়ে যায় এটা দেখতে যে প্রযুক্তির দুনিয়ায় কে কার থেকে বেশি অ্যাডভান্সড। যাইহোক, আর কথা না বাড়িয়ে চলুন জানা যাক নতুন কি কি অ্যানাউন্স করা হয়েছে মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস ২০১৮ তে।

গ্যালাক্সি এস৯ এবং এস৯ প্লাস

এবছরের মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস নিয়ে বলতে হলে প্রথমেই বলতে হয় স্যামসাং এর নতুন দুটি ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন, গ্যালাক্সি এস৯ এবং এস৯ প্লাসের কথা যে দুটি তারা এবছর মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে অ্যানাউন্স করেছে। এই ফোনদুটি নিয়ে সংক্ষেপে বলতে হলে বলতে হবে এই ফোনদুটির ডিজাইন গত বছরের স্যামসাং গ্যালাক্সি এস৮ এবং এস৮ প্লাসের মতোই। শুধুমাত্র এবছর ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরটি গত বছরের মডেলের মতো ক্যামেরার পাশে একটি অসুবিধাজনক জায়গায় না দিয়ে ক্যামেরার নিচে দেওয়া হয়েছে অন্যান্য সব স্মার্টফোনের মতো। এছাড়া বাকি সব ডিজাইন প্রায় একই। এছাড়া হার্ডওয়্যার সেকশনেও ভালোই ইমপ্রুভমেন্ট এনেছে স্যামসাং। হার্ডওয়্যার ইম্প্রুভমেন্ট এর মধ্যে আছে নতুন স্ন্যাপড্রাগন ৮৪৫ চিপসেট এবং অ্যাড্রেনো ৬৩০ জিপিইউ।

স্যামসাং মূলত যেদিকে এবছর সবটুকু ফোকাস দিয়েছে তা হচ্ছে ক্যামেরা। এস৯ প্লাসে ডুয়াল ক্যামেরা সেটাপ তো আছেই, এছাড়াও আছে ভ্যারিয়েবল এপারচার যার সাহায্যে স্মার্টফোনের ক্যামেরার এপারচার নিজের ইচ্ছামতো পরিবর্তন করা সম্ভব হবে। এছাড়াও এস৯ এবং এস৯ প্লাস এবার ৪কে ৬০ এফপিএস ভিডিও ক্যাপচার তো করতে পারেই, এছাড়া ৯৬০ ফ্রেমস পার সেকেন্ডে আল্ট্রা স্লো মোশন ভিডিও ক্যাপচারও করতে পারে (৭২০পি রেজুলেশনে) যা আক্ষরিক অর্থেই একটি ০.৬ সেকেন্ডের ভিডিওকে স্লো মোশনে ১০ সেকেন্ড ধরে প্লে করতে পারে। এছাড়া এবছর স্যামসাং ফ্রন্ট ক্যামেরা ব্যবহার করে লাইভ ইমোজি তৈরী করার একটি ফিচারও এনেছে যার নাম দিয়েছে AR Emoji। এই স্মার্টফোনদুটিতে আরো কি কি আছে এবং কি কি ইম্প্রুভ করা হয়েছে তা জানতে এই আর্টিকেলটি দেখতে পারেন।

মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস

ভিভো অ্যাপেক্স

আপনি যদি বাংলাদেশে থাকেন, তাহলে হয়তো এই স্মার্টফোন ব্র্যান্ডটিকে ভালোভাবে চিনবেন না। তবে ইন্ডিয়ান মার্কেটে এই ব্র্যান্ডটি যথেষ্ট ভালো পজিশনে আছে পপুলারিটির দিক থেকে। এবছর গত মাসে লাস ভেগাসে অনুষ্ঠিত হওয়া সিইএস ২০১৮ তে ভিভো শো অফ করেছিল তাদের তৈরী পৃথিবীর প্রথম আন্ডার গ্লাস ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরযুক্ত স্মার্টফোন। এই বিষয়টি সম্পর্কে বিস্তারিত এই আর্টিকেলে জানতে পারবেন। কিন্তু এবছর মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস এ ভিভো শো অফ করেছে আরো দারুন কিছু।

এবছর ভিভো তাদের তৈরী যে স্মার্টফোনটি দেখিয়েছে তা হচ্ছে ভিভো অ্যাপেক্স। এই স্মার্টফোনটি একটি ট্রুলি বেজেললেস স্মার্টফোন। এখন পর্যন্ত যত ম্যানুফ্যাকচারার যতভাবেই বেজেললেস ডিসপ্লের স্মার্টফোন তৈরী করুক না কেন, তারা কখনোই একটি সম্পূর্ণ বেজেললেস ডিভাইস তৈরী করতে সক্ষম হয়নি। সেটাই মূলত ভিভো করেছে। ভিভোর তৈরী এই স্মার্টফোনটির ওপরে, নিচে, ডানে,বামে কোথাও কোনো বেজেল বা এক্সট্রা স্পেস বা আইফোন এক্সের মতো কাটআউট এমন কিছুই নেই। এটি প্রায় সম্পূর্ণ বেজেললেস একটি ডিসপ্লে।  এর ফলে ভিভো ফোনের ক্যামেরাটি ফোনের ওপরের দিকে ফোনের ভেতরে ইনসার্ট করে দিয়েছে যা ছবি তোলার সময় ওপর থেকে বেরিয়ে আসবে, ঠিক যেমনটা আমরা বেজেললেস স্মার্টফোন সম্পর্কে কল্পনা করেছিলাম কয়েকবছর আগে। এছাড়া অবশ্যই এই স্মার্টফোনটিতেও থাকছে আন্ডার গ্লাস ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর যা ফোনের ডিসপ্লের নিচে এম্বেড করা আছে। আর মজার ব্যাপার হচ্ছে, এবার এই ফোনটির অর্ধেক ডিসপ্লেই ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর হিসেবে কাজ করতে পারবে।

মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস

নোকিয়া স্মার্টফোন (Nokia 1, 8 Sirocco, 7+, New 8810)

খুব সম্ভবত মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস নিয়ে সবথেকে বেশি এক্সাইটেড ছিল এইচএমডি গ্লোবাল। কারণ, তারা এবছর ১ টি নয়, বরং চারটি স্মার্টফোন অ্যানাউন্স করেছে মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে। প্রথমত তারা অ্যানাউন্স করেছে নোকিয়া ১ (Nokia One) স্মার্টফোন যেটি খুবই বেসিক একটি স্মার্টফোন। বেসিক বলতে এটি একটি লো এন্ড স্মার্টফোন যা গুগলের নতুন অ্যান্ড্রয়েডঅরিও গো এডিশন রান করছে, যে লো এন্ড স্মার্টফোনগুলোর জন্যই তৈরী। এই ফোনটি এতটাই লো এন্ড যে এতে থাকছে মিডিয়াটেক প্রোসেসর এবং ১ জিবি র‍্যাম। তাহলে বুঝতেই পারছেন যে এটি কোন ধরণের ইউজারদের টার্গেট করে তৈরী করা।

মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস

এছাড়াও তারা অ্যানাউন্স করেছে তাদের গত বছরের ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন, অর্থাৎ নোকিয়া ৮ এর একটি নতুন এডিশন যার নাম দিয়েছে Nokia 8 Sirocco Edition। যেমনটা আশা করা যায়, এই ফোনটিতে আছে গত বছরের হাই এন্ড হার্ডওয়্যার (স্ন্যাপড্রাগন ৮৩৫ এবং অ্যাড্রেনো ৫৪০), আরো ইম্প্রুভড স্টানিং ডিজাইন এবং বিল্ড কোয়ালিটি, ডুয়াল ক্যামেরা সেটাপ ইত্যাদি। এছাড়া ইম্প্রুভমেন্টের ব্যাপারে বলতে হলে এই ফোনটির ফ্রন্ট গ্লাসটি দুইদিকে কার্ভড, গ্যালাক্সি এস৭ এর মতো। এছাড়াও থাকছে আইপি ৬৭ ওয়াটার রেসিস্টেন্স এবং এন্ড্রোয়েড ওয়ান। এটি মূলত গুগলের এন্ড্রোয়েড ওয়ানের আওতায় থাকা প্রথম ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন।

মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস

এছাড়াও এবছর নোকিয়া অ্যানাউন্স করেছে আরেকটি অ্যান্ড্রয়েড ওয়ান স্মার্টফোন, নোকিয়া ৭ প্লাস। এটি মূলত একটি অপার মিডরেঞ্জ স্মার্টফোন। এই ফোনটির ডিজাইনও একেবারেই নোকিয়া ৮ এর Sirocco এডিশনের মতো। এছাড়া এই ফোনটির ক্যামেরাও নোকিয়া ৮ এর Sirocco এডিশনের মতো, অর্থাৎ একই ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে। তবে অপার মিডরেঞ্জ একটি স্মার্টফোন হওয়া সত্ত্বেও এতে বেশ কিছু ইম্প্রেসিভ ফ্ল্যাগশিপ লেভেলের ফিচারস আছে। যেমন ১৮:৯ ডিসপ্লে, স্লিম বেজেল, স্ন্যাপড্রাগন ৬৬০ প্রোসেসর, যা যথেষ্ট পাওয়ারফুল, কার্ল জেসিস সেন্সর, ১৬ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা, স্টক এন্ড্রোয়েড ইত্যাদি। আমার মোতে এই স্মার্টফোনটি যদি বাংলাদেশের বাজারে আসে এবং ৩০ হাজার টাকার মধ্যে দাম হয়, তাহলে ৩০ হাজার টাকা বাজেটের বেস্ট স্মার্টফোন এটাই হবে।

মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস

সবথেকে মজার ব্যাপার হচ্ছে, এবছর এইচএমডি গ্লোবাল আরেকটি ফোন রিলিজ করেছে যেটি মূলত অনেক বছর আগের নোকিয়ার ৮৮১০ ফোনটির একটি ইম্প্রুভড ভার্সন, যেমনটা তারা করেছে নোকিয়া ৩৩১০ এর সাথে। তার থেকেও মজার ব্যাপার হচ্ছে, এই ফোনটির ডিজাইন সত্যিই একটি কলার মতো দেখতে। এতটাই মিল রয়েছে যে, এই ফোনটি অ্যানাউন্স করার পর থেকেই ব্যানানা ফোন নামেই বেশি পরিচিতি পেয়েছে। এই ফোনটিতে থাকছে ফোল্ডেবল লম্বা ডিসপ্লে যার আবার ফোল্ডেবল পার্ট দুটি নয়, তিনটি। এছাড়াও এই ফোনটিতে নোকিয়া ৩৩১০ এর নতুন ভার্সনটির মতো একই ধরণের  সফটওয়্যার ব্যবহার করা হয়েছে, তবে একটু ইম্প্রুভড ভার্সন। কারণ এবার এই ফোনে এন্ড্রোয়েড এর মতো ডেডিকেটেড অ্যাপ যেমন গুগল, গুগল ম্যাপস, গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট ইত্যাদি ব্যবহার করার সুযোগ থাকছে। এছাড়াও নোকিয়ার বিখ্যাত স্নেক গেমও থাকছে। এছাড়াও ৪জি নেটওয়ার্ক সাপোর্ট তো থাকছেই।

মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস

বাই দ্যা ওয়ে, অ্যান্ড্রয়েড ওয়ান এবং অ্যান্ড্রয়েড গো প্রজেক্টের বিষয়টি যদি আপনি না জেনে থাকেন তাহলে এই আর্টিকেলে এই বিষয়গুলোর বিস্তারিত বর্ণনা পেয়ে যাবেন।

সনি এক্সপেরিয়া এক্সজেড ২

সনিকে আসলে স্মার্টফোন ম্যানুফ্যাকচারার হিসেবে কনসিডার করেন সবাই। তবুও সনি প্রায় প্রত্যেকবছরই চেষ্টা করে মোবাইলের বাজারকে কিছুটা হলেও টাচ করার। সনির স্মার্টফোন খারাপ, এমনটা নয়। কিন্তু অন্যান্য ফ্লাশশিপ স্মার্টফোনগুলোর তুলনায় সনির স্মার্টফোনগুলো ডিজাইনের দিক থেকে একটু ব্যাকডেটেড এবং বোরিং হয় সাধারণত। যাইহোক, এবছর সনি মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে অ্যানাউন্স করেছে তাদের গত বছরের এক্সপেরিয়া এক্সজেড এর সাকসেসর, এক্সজেড টু।

এবার ফাইনালি সনি এই স্মার্টফোনটির সাথে ১৮:৯ ডিসপ্লেতে পা দিলো। কিন্তু তবুও এই স্মার্টফোনটির ডিসপ্লে এর প্রতিযোগী অন্যান্য ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোনগুলোর ধারেকাছেও না। কার্ভড কর্নার নেই, বেজেললেস ডিসপ্লে নেই, স্যামসাং এর মতো ইনফিনিটি ডিসপ্লে নেই, আইফোন এক্সের মতো কাটআউট নেই এবং বলতে হলে ফ্যান্সি কোনো ফিচারই নেই। তবে হার্ডওয়্যার এর দিকে থেকে কম্প্রোমাইজ করেনি সনি। এই ফোনটিতে থাকছে লেটেস্ট স্ন্যাপড্রাগন ৮৪৫ প্রসেসর এবং অ্যাড্রেনো ৬৩০ জিপিইউ। আর কোম্পানিটি যেহেতু সনি, তাই ফোকাস ক্যামেরার ওপরে হবে এটাই স্বাভাবিক। গ্যালাক্সি এস এর মতো এই স্মার্টফোনটিও ৯৬০ এফপিএসে স্লো মোশন ভিডিও করতে পারে, তবে ১০৮০পি রেজুলেশনে যেখানে এস৯ পারে সর্বোচ্চ ৭২০পি রেজুলেশনে। এছাড়া আর তেমন কোনো নোটিসেবল নতুন ক্যামেরা ফিচারস নেই।

মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস

তো এই ছিল মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে শো অফ করা বা অ্যানাউন্স করা প্রধান কয়েকটি স্মার্টফোন। এছাড়া আরো অনেক ম্যানুফ্যাকচারারও অনেক নতুন স্মার্টফোন রিলিজ করেছে। যেমন, Alcatel, ZTE ইত্যাদি। এছাড়া এবছর মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে বেশ কয়েকটি ল্যাপটপ এবং ক্রোমবুকও অ্যানাউন্স করা হয়। হুয়াওয়ে এবং লেনোভো কয়েকটি নতুন ল্যাপটপ এবং ক্রোমবুকও অ্যানাউন্স করে।


আজকের মতো এখানেই শেষ করছি। আশা করি আজকের আর্টিকেলটি আপনাদের ভালো লেগেছে। কোনো ধরণের প্রশ্ন বা মতামত থাকলে অবশ্যই কমেন্ট সেকশনে জানাবেন।

Image  Credit : The Verge, Android Authority, MobileWorldCongress

সিয়াম একান্ত

অনেক ছোটবেলা থেকেই প্রযুক্তির প্রতি আকর্ষণ ছিলো এবং হয়তো সেই আকর্ষণটা আরো সাধারন দশ জনের থেকে একটু বেশি। নোকিয়ার বাটন ফোন থেকে শুরু করে ইনফিনিটি ডিসপ্লের বেজেললেস স্মার্টফোন, সবই আমার প্রিয়। জীবনে টেকনোলজি আমাকে যতটা ইম্প্রেস করেছে ততোটা অন্যকিছু কখনো করতে পারেনি। আর এই প্রযুক্তির প্রতি আগ্রহ থেকেই লেখালেখির শুরু.....

3 comments

সোশ্যাল মিডিয়া

লজ্জা পাবেন না, সোশ্যাল মিডিয়া গুলোতে টেকহাবসের সাথে যুক্ত হয়ে সকল আপডেট গুলো সবার আগে পান!