উইন্ডোজ ১০ আপগ্রেড : এখনো যেসব উপায়ে উইন্ডোজ ১০ ফ্রি পেতে পারেন! [লেজিট]

উইন্ডোজ ১০ এর ফিচারস এবং কি কি কারণে আপনার উইন্ডোজ ১০ এ আপগ্রেড করা উচিৎ এসব বিষয় নিয়ে আপনি হয়তো আমাদের কিছুদিন আগে পাবলিশ করা আর্টিকেলটি পড়েছেন। আর্টিকেলটি লেখার কারণ ছিল যে, গত ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৭ তারিখে ফাইনালি উইন্ডোজ ১০ এর ফ্রি আপগ্রেড অফার শেষ হয়ে যায়।  যদিও টেকনিক্যালি ফ্রি আপগ্রেড অফার বা ক্যাম্পেইন আরো অনেক আগেই শেষ হয়ে যাওয়ার কথা, তবে এটি ছিল ইউজারদের জন্য মাইক্রোসফট এর একটি সর্বশেষ অফার উইন্ডোজ ১০ এ ফ্রি এবং লিগালি আপগ্রেড করার। তবে এখনো উইন্ডোজ ১০ এ ফ্রি আপগ্রেড করার কয়েকটি উপায় আছে যেগুলো ফলো করলে আপনি উইন্ডোজ ১০ আপগ্রেড ফ্রি পেতে পারেন, যদিও এটি মাইক্রোসফট এর কোনো স্পেশাল অফার বা ক্যাম্পেইন নয়। কি কি উপায় আপনি এখনো ফ্রি আপগ্রেড করতে পারবেন সেগুলো নিচে আলোচনা করবো। তবে তার আগে, আপনি যদি উইন্ডোজ ১০ আপগ্রেড কেন করবেন এবং করলে কি কি সুবিধা পাবেন এসব বিষয়ে লেখা আমাদের পূর্ববর্তী আর্টিকেলটি না পড়ে থাকেন, তবে লিচের লিংক থেকে পড়ে নিতে পারেন।

উইন্ডোজ ১০ আপগ্রেড : না করে থাকলে কেন এখনই করা উচিৎ?

উইন্ডোজ ৭/৮.১ এর প্রোডাক্ট কি ব্যবহার করুন

আপনি যদি এখনো উইন্ডোজ ৭ বা উইন্ডোজ ৮ বা ৮.১ ব্যবহার করেন, তাহলে দুৰ্ভাগ্যবশত আপনি এখন আর Get Windows 10 টুল বা টাস্কবার আইকন ব্যবহার করে উইন্ডোজ ১০ এ ফ্রি আপগ্রেড করতে পারবেন না। কারণ, মাইক্রোসফট এর উইন্ডোজ ১০ ফ্রি আপগ্রেড অফার অফিশিয়ালি শেষ। তবে আপনি যদি পূর্বে উইন্ডোজ ৭ বা উইন্ডোজ ৮/৮.১ লিগালি ফ্রি আপগ্রেড করে থাকেন বা উইন্ডোজ ৭ বা ৮ এর লাইসেন্স কি লিগালি কিনে থাকেন, তাহলে সেই প্রোডাক্ট কি টি উইন্ডোজ ১০ ফ্রি এক্টিভেট করার জন্য ব্যবহার করতে পারেন। আপনাকে শুধুমাত্র উইন্ডোজ ১০ ইনস্টল করার সময় যখন আপনার কাছে প্রোডাক্ট কি চাইবে, তখন সেখানে আপনার আগে পার্চেজ করা উইন্ডোজ ৭ বা ৮ এর প্রোডাক্ট কি-টি ইন্টার করতে হবে। তাহলেই আপনার উইন্ডোজ ১০ এর কপিটি লিগালি এক্টিভেট হয়ে যাবে। এই মেথডটি অধিকাংশ  ইউজার এর ক্ষেত্রে কাজ করে এখনো। তবে সবার ক্ষেত্রে নাও করতে পারে। এছাড়া ওই মেথডটি লিগ্যাল হলেও কতদিন কাজ করবে সে বিষয়ে নিশ্চিতভাবে কিছু বলতে পারবোনা।

উইন্ডোজ ১০ আপগ্রেড

অলরেডি একবার ইনস্টল করে থাকলে রিইনস্টল করুন

উইন্ডোজ ১০ ফ্রি আপগ্রেড ক্যাম্পেইন চলাকালীন সময় আপনি যদি উইন্ডোজ ১০ ডাউনলোড এবং ইনস্টল করে থাকেন এবং এরপরে ভালো এক্সপেরিয়েন্স না হওয়ায় আবার উইন্ডোজ ৭ বা ৮ এ ডাউনগ্রেড করে থাকেন, তাহলে আপনার কোনো চিন্তা নেই, কারণ আপনি সবসময়ই উইন্ডোজ ১০ ফ্রি আপগ্রেড করার জন্য এলিজিবল। প্রথমবার উইন্ডোজ ১০ ফ্রি আপগ্রেড করার পরে মাইক্রোসফট আপনার পিসি এবং আপনার মাদারবোর্ড সম্পর্কে কিছু ডেটা কালেক্ট করে রাখে যাতে পরবর্তীতে আপনি উইন্ডোজ ১০ রিইনস্টল করলে যাতে এই ডেটা ব্যবহার করে তারা আপনার পিসিকে আইডেন্টিফাই করতে পারে এবং অটোমেটিক্যালি এক্টিভেট করে দিতে পারে। তাই আপনি যদি আগে একবার উইন্ডোজ ১০ ফ্রি আপগ্রেড করে থাকেন, তাহলে আপনাকে শুধুমাত্র উইন্ডোজ ১০ রিইনস্টল করতে হবে। এসময় ইনস্টল প্রোসেসের মধ্যে আপনার কাছে প্রোডাক্ট কি চাইলে আপনাকে I don’t have a product key অপশনটি সিলেক্ট করতে হবে। উইন্ডোজ ইনস্টল কমপ্লিট হয়ে গেলে আপনি পিসিতে নেট কানেক্ট করলেই আপনার উইন্ডোজ অটোমেটিক্যালি অ্যাক্টিভেটেড হয়ে যাবে।

উইন্ডোজ এক্টিভেশন এভোয়েড করুন

আপনাদের মধ্যে অনেকেই হয়তো জানেন না যে আপনি চাইলে উইন্ডোজ ১০ এক্টিভেট না করেই ব্যবহার করতে পারেন আপনার যতদিন ইচ্ছা ততদিন। উইন্ডোজ ১০ ব্যবহার করার জন্য আপনাকে প্রোডাক্ট কি বা কোনো ধরণের লাইসেন্স কিনতে হবে না। কারণ, মাইক্রোসফট আপনাকে উইন্ডোজ ১০ ইনস্টল করার জন্য কোনোরকম চার্জ করেনি এবং কখনোই করবে না। লাইসেন্স কি কিনতে হয় যদি আপনি উইন্ডোজ কপিটি এক্টিভেট করতে চান। কিন্তু আপনি চাইলে এক্টিভেট না করেও উইন্ডোজ ১০ সাধারণভাবেই ব্যবহার করতে পারেন। কিন্তু আপনাকে কিছু লিমিটেশন এর মধ্যে থাকতে হবে। যেমন, আপনি আপনার পিসিটি নিজের ইচ্ছামতো পার্সোনালাইজ করতে পারবেন না। যেমন, আপনার ডেস্কটপ ওয়ালপেপার, লকস্ক্রিন ইত্যাদি চেঞ্জ করতে পারবেন না (যদিও উইন্ডোজ এক্সপ্লোরার থেকে ডেস্কটপ ব্যাকগ্রাউন্ড চেঞ্জ করতে পারবেন) এবং অন্যান্য আরো অনেক কাস্টোমাইজেশন ফিচারস ব্যাবহার করতে পারবেন না। এবং আপনার ডেক্সটপে উইন্ডোজ ১০ ভার্সন এবং একটি ওয়াটারমার্ক থাকবে। আপনার ডেক্সটপে Activate Windows এমন একটি ওয়াটারমার্ক থাকবে। আর ঠিক তেমন কোনো লিমিটেশন নেই যা আপনাকে উইন্ডোজ ১০ ইউজ করা থেকে আটকাবে। এবং আপনি সময়মতো সব ধরণের সিস্টেম আপগ্রেডও পাবেন অন্যদের সাথে সাথেই। তাই আপনার যদি খুব বেশি সমস্যা না হয়, তাহলে আপনি উইন্ডোজ ১০ এক্টিভেট না করেই ব্যবহার করতে থাকতে পারেন।

উইন্ডোজ ১০ আপগ্রেড


লে রাখা ভালো, আপনি হয়তো বলতে পারেন যে আপনি বিভিন্ন কম্পিউটার শপ থেকে ১০০/২০০ টাকা খরচ করে যেখানে প্রি অ্যাক্টিভেটেড উইন্ডোজ ১০ কপি কিনতে পারেন এবং ইনস্টল করতে পারেন, সেখানে এতকিছু জানারই বা দরকার কি। কিন্তু, আপনি ১০০-২০০ টাকায় বাজারে যেসব উইন্ডোজ ১০ এর ডিস্ক কিনতে পাবেন সেগুলো কোনোটাই লিগ্যাল বা জেনুইন উইন্ডোজ লাইসেন্স নয়। সেগুলো সবই পাইরেটেড কপি।


আজকের মতো এখানেই শেষ করছি। আশা করি আজকের আর্টিকেলটি আপনাদের ভালো লেগেছে। কোনো ধরণের প্রশ্ন বা মতামত থাকলে অবশ্যই কমেন্ট সেকশনে জানাবেন।


WiREBD এখন ইউটিউবে, নিয়মিত টেক/বিজ্ঞান/লাইফ স্টাইল বিষয়ক ভিডিও গুলো পেতে WiREBD ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুণ! জাস্ট, youtube.com/wirebd — এই লিংকে চলে যান এবং সাবস্ক্রাইব বাটনটি হিট করুণ!

ইমেজ ক্রেডিটঃ By MyImages – Micha Via Shutterstock

সিয়াম
অনেক ছোটবেলা থেকেই প্রযুক্তির প্রতি আকর্ষণ ছিলো এবং হয়তো সেই আকর্ষণটা আরো সাধারন দশ জনের থেকে একটু বেশি। নোকিয়ার বাটন ফোন থেকে শুরু করে ইনফিনিটি ডিসপ্লের বেজেললেস স্মার্টফোন, সবই আমার প্রিয়। জীবনে টেকনোলজি আমাকে যতটা ইম্প্রেস করেছে ততোটা অন্যকিছু কখনো করতে পারেনি। আর এই প্রযুক্তির প্রতি আগ্রহ থেকেই লেখালেখির শুরু.....