উইন্ডোজ

উইন্ডোজ ১০ আপগ্রেড : এখনো যেসব উপায়ে উইন্ডোজ ১০ ফ্রি পেতে পারেন! [লেজিট]

22

উইন্ডোজ ১০ এর ফিচারস এবং কি কি কারণে আপনার উইন্ডোজ ১০ এ আপগ্রেড করা উচিৎ এসব বিষয় নিয়ে আপনি হয়তো আমাদের কিছুদিন আগে পাবলিশ করা আর্টিকেলটি পড়েছেন। আর্টিকেলটি লেখার কারণ ছিল যে, গত ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৭ তারিখে ফাইনালি উইন্ডোজ ১০ এর ফ্রি আপগ্রেড অফার শেষ হয়ে যায়।  যদিও টেকনিক্যালি ফ্রি আপগ্রেড অফার বা ক্যাম্পেইন আরো অনেক আগেই শেষ হয়ে যাওয়ার কথা, তবে এটি ছিল ইউজারদের জন্য মাইক্রোসফট এর একটি সর্বশেষ অফার উইন্ডোজ ১০ এ ফ্রি এবং লিগালি আপগ্রেড করার। তবে এখনো উইন্ডোজ ১০ এ ফ্রি আপগ্রেড করার কয়েকটি উপায় আছে যেগুলো ফলো করলে আপনি উইন্ডোজ ১০ আপগ্রেড ফ্রি পেতে পারেন, যদিও এটি মাইক্রোসফট এর কোনো স্পেশাল অফার বা ক্যাম্পেইন নয়। কি কি উপায় আপনি এখনো ফ্রি আপগ্রেড করতে পারবেন সেগুলো নিচে আলোচনা করবো। তবে তার আগে, আপনি যদি উইন্ডোজ ১০ আপগ্রেড কেন করবেন এবং করলে কি কি সুবিধা পাবেন এসব বিষয়ে লেখা আমাদের পূর্ববর্তী আর্টিকেলটি না পড়ে থাকেন, তবে লিচের লিংক থেকে পড়ে নিতে পারেন।

উইন্ডোজ ১০ আপগ্রেড : না করে থাকলে কেন এখনই করা উচিৎ?

উইন্ডোজ ৭/৮.১ এর প্রোডাক্ট কি ব্যবহার করুন

আপনি যদি এখনো উইন্ডোজ ৭ বা উইন্ডোজ ৮ বা ৮.১ ব্যবহার করেন, তাহলে দুৰ্ভাগ্যবশত আপনি এখন আর Get Windows 10 টুল বা টাস্কবার আইকন ব্যবহার করে উইন্ডোজ ১০ এ ফ্রি আপগ্রেড করতে পারবেন না। কারণ, মাইক্রোসফট এর উইন্ডোজ ১০ ফ্রি আপগ্রেড অফার অফিশিয়ালি শেষ। তবে আপনি যদি পূর্বে উইন্ডোজ ৭ বা উইন্ডোজ ৮/৮.১ লিগালি ফ্রি আপগ্রেড করে থাকেন বা উইন্ডোজ ৭ বা ৮ এর লাইসেন্স কি লিগালি কিনে থাকেন, তাহলে সেই প্রোডাক্ট কি টি উইন্ডোজ ১০ ফ্রি এক্টিভেট করার জন্য ব্যবহার করতে পারেন। আপনাকে শুধুমাত্র উইন্ডোজ ১০ ইনস্টল করার সময় যখন আপনার কাছে প্রোডাক্ট কি চাইবে, তখন সেখানে আপনার আগে পার্চেজ করা উইন্ডোজ ৭ বা ৮ এর প্রোডাক্ট কি-টি ইন্টার করতে হবে। তাহলেই আপনার উইন্ডোজ ১০ এর কপিটি লিগালি এক্টিভেট হয়ে যাবে। এই মেথডটি অধিকাংশ  ইউজার এর ক্ষেত্রে কাজ করে এখনো। তবে সবার ক্ষেত্রে নাও করতে পারে। এছাড়া ওই মেথডটি লিগ্যাল হলেও কতদিন কাজ করবে সে বিষয়ে নিশ্চিতভাবে কিছু বলতে পারবোনা।

উইন্ডোজ ১০ আপগ্রেড

অলরেডি একবার ইনস্টল করে থাকলে রিইনস্টল করুন

উইন্ডোজ ১০ ফ্রি আপগ্রেড ক্যাম্পেইন চলাকালীন সময় আপনি যদি উইন্ডোজ ১০ ডাউনলোড এবং ইনস্টল করে থাকেন এবং এরপরে ভালো এক্সপেরিয়েন্স না হওয়ায় আবার উইন্ডোজ ৭ বা ৮ এ ডাউনগ্রেড করে থাকেন, তাহলে আপনার কোনো চিন্তা নেই, কারণ আপনি সবসময়ই উইন্ডোজ ১০ ফ্রি আপগ্রেড করার জন্য এলিজিবল। প্রথমবার উইন্ডোজ ১০ ফ্রি আপগ্রেড করার পরে মাইক্রোসফট আপনার পিসি এবং আপনার মাদারবোর্ড সম্পর্কে কিছু ডেটা কালেক্ট করে রাখে যাতে পরবর্তীতে আপনি উইন্ডোজ ১০ রিইনস্টল করলে যাতে এই ডেটা ব্যবহার করে তারা আপনার পিসিকে আইডেন্টিফাই করতে পারে এবং অটোমেটিক্যালি এক্টিভেট করে দিতে পারে। তাই আপনি যদি আগে একবার উইন্ডোজ ১০ ফ্রি আপগ্রেড করে থাকেন, তাহলে আপনাকে শুধুমাত্র উইন্ডোজ ১০ রিইনস্টল করতে হবে। এসময় ইনস্টল প্রোসেসের মধ্যে আপনার কাছে প্রোডাক্ট কি চাইলে আপনাকে I don’t have a product key অপশনটি সিলেক্ট করতে হবে। উইন্ডোজ ইনস্টল কমপ্লিট হয়ে গেলে আপনি পিসিতে নেট কানেক্ট করলেই আপনার উইন্ডোজ অটোমেটিক্যালি অ্যাক্টিভেটেড হয়ে যাবে।

উইন্ডোজ এক্টিভেশন এভোয়েড করুন

আপনাদের মধ্যে অনেকেই হয়তো জানেন না যে আপনি চাইলে উইন্ডোজ ১০ এক্টিভেট না করেই ব্যবহার করতে পারেন আপনার যতদিন ইচ্ছা ততদিন। উইন্ডোজ ১০ ব্যবহার করার জন্য আপনাকে প্রোডাক্ট কি বা কোনো ধরণের লাইসেন্স কিনতে হবে না। কারণ, মাইক্রোসফট আপনাকে উইন্ডোজ ১০ ইনস্টল করার জন্য কোনোরকম চার্জ করেনি এবং কখনোই করবে না। লাইসেন্স কি কিনতে হয় যদি আপনি উইন্ডোজ কপিটি এক্টিভেট করতে চান। কিন্তু আপনি চাইলে এক্টিভেট না করেও উইন্ডোজ ১০ সাধারণভাবেই ব্যবহার করতে পারেন। কিন্তু আপনাকে কিছু লিমিটেশন এর মধ্যে থাকতে হবে। যেমন, আপনি আপনার পিসিটি নিজের ইচ্ছামতো পার্সোনালাইজ করতে পারবেন না। যেমন, আপনার ডেস্কটপ ওয়ালপেপার, লকস্ক্রিন ইত্যাদি চেঞ্জ করতে পারবেন না (যদিও উইন্ডোজ এক্সপ্লোরার থেকে ডেস্কটপ ব্যাকগ্রাউন্ড চেঞ্জ করতে পারবেন) এবং অন্যান্য আরো অনেক কাস্টোমাইজেশন ফিচারস ব্যাবহার করতে পারবেন না। এবং আপনার ডেক্সটপে উইন্ডোজ ১০ ভার্সন এবং একটি ওয়াটারমার্ক থাকবে। আপনার ডেক্সটপে Activate Windows এমন একটি ওয়াটারমার্ক থাকবে। আর ঠিক তেমন কোনো লিমিটেশন নেই যা আপনাকে উইন্ডোজ ১০ ইউজ করা থেকে আটকাবে। এবং আপনি সময়মতো সব ধরণের সিস্টেম আপগ্রেডও পাবেন অন্যদের সাথে সাথেই। তাই আপনার যদি খুব বেশি সমস্যা না হয়, তাহলে আপনি উইন্ডোজ ১০ এক্টিভেট না করেই ব্যবহার করতে থাকতে পারেন।

উইন্ডোজ ১০ আপগ্রেড


লে রাখা ভালো, আপনি হয়তো বলতে পারেন যে আপনি বিভিন্ন কম্পিউটার শপ থেকে ১০০/২০০ টাকা খরচ করে যেখানে প্রি অ্যাক্টিভেটেড উইন্ডোজ ১০ কপি কিনতে পারেন এবং ইনস্টল করতে পারেন, সেখানে এতকিছু জানারই বা দরকার কি। কিন্তু, আপনি ১০০-২০০ টাকায় বাজারে যেসব উইন্ডোজ ১০ এর ডিস্ক কিনতে পাবেন সেগুলো কোনোটাই লিগ্যাল বা জেনুইন উইন্ডোজ লাইসেন্স নয়। সেগুলো সবই পাইরেটেড কপি।


আজকের মতো এখানেই শেষ করছি। আশা করি আজকের আর্টিকেলটি আপনাদের ভালো লেগেছে। কোনো ধরণের প্রশ্ন বা মতামত থাকলে অবশ্যই কমেন্ট সেকশনে জানাবেন।

ইমেজ ক্রেডিটঃ By MyImages – Micha Via Shutterstock

সিয়াম একান্ত
অনেক ছোটবেলা থেকেই প্রযুক্তির প্রতি আকর্ষণ ছিলো এবং হয়তো সেই আকর্ষণটা আরো সাধারন দশ জনের থেকে একটু বেশি। নোকিয়ার বাটন ফোন থেকে শুরু করে ইনফিনিটি ডিসপ্লের বেজেললেস স্মার্টফোন, সবই আমার প্রিয়। জীবনে টেকনোলজি আমাকে যতটা ইম্প্রেস করেছে ততোটা অন্যকিছু কখনো করতে পারেনি। আর এই প্রযুক্তির প্রতি আগ্রহ থেকেই লেখালেখির শুরু.....

WPA3 কি? নতুন এই ওয়াইফাই সিকিউরিটি স্ট্যান্ডার্ড কি হ্যাকার প্রুফ? [বিস্তারিত!]

Previous article

৬টি বেস্ট অ্যান্ড্রয়েড রিমাইন্ডার অ্যাপ ২০১৮ | কোন কিছু ভুলে যাওয়া এখন অসম্ভব!

Next article

You may also like

22 Comments

  1. Vai win Cracked vs legit, what is the difference?
    Official key price koto vai? Key ki only ms store thekei kinte hobe? Any discount link?

    1. Reply plzzzzz!!!!

    2. সত্যি কথা বলতে, ক্র্যাক এবং লেজিট এর মধ্যে কোনোই পার্থক্য নেই। তবে লিগ্যাল উইন্ডোজ ব্যাবহার করলে আপনাকে কোনো এক্টিভেটর ব্যাবহার করে উইন্ডোজ এক্টিভেট করতে হবেনা। আর, অধিকাংশ ক্ষেত্রে এক্টিভেটর বা এই ধরনের কোনো ক্র্যাক ব্যবহার করে উইন্ডোজ এক্টিভেট করা পিসির জন্য ভালো না। অনেকসময় দেখা যায় এসব এক্টিভেটর ব্যাবহার করলে পিসি ভাইরাস বা ম্যালওয়ারে আক্রান্ত হয়। আমি পার্সোনালি অবৈধভাবে এক্টিভেটর ব্যাবহার করে উইন্ডোজ এক্টিভেট করার পক্ষে না।

      আর, আপনি উইন্ডোজ ১০ এর লাইসেন্স কি মাইক্রোসফট স্টোর থেকেও কিনতে পারবেন এবং চাইলে কোনো অফলাইন সেলারের কাছেও কিনতে পাবেন। অফলাইন সেলার থেকে কিনলে প্রাইস একটু কম হতে পারে। অফলাইন সেলার থেকে কেনা মানেই কিন্তু ১০০-২০০ টাকা দিয়ে প্রি অ্যাক্টিভেটেড উইন্ডোজ ১০ এর ডিভিডি কেনা না। লিগ্যাল উইন্ডোজ ১০ কেনা মানে হচ্ছে শুধুমাত্র উইন্ডোজ ১০ এর লাইসেন্স কি কেনা যেটি ব্যাবহার করে আপনি উইন্ডোজ এক্টিভেট করতে পারবেন। আমি যতদূর জানি মাইক্রোসফট স্টোর থেকে কিনলে ১০০ ডলারের কিছু বেশি দাম পড়বে। আর অফলাইন সেলার থেকে কিনলে আরেকটু কমেও পেতে পারেন। ধন্যবাদ। 🙂

  2. Dear Writter,
    Ami aga activate na kora windows caliyecilam but kichu din pora sudhu active korta bola notification asta suru kora. Screen black hoya jay. Wallpaper theme change hoy na. Ektu pora pora sudhu active korta bole.

    1. যদি উইন্ডোজ একেবারেই ব্যাবহার করার অযোগ্য মনে হয় অ্যাক্টিভেট না করলে, তাহলে লাইসেন্স কি কিনে নিতে পারেন। অফলাইন সেলার থেকে কিনলে কিছুটা কম দামে পাবেন সম্ভবত। আর সেটা যদি না চান, তাহলে ট্রাস্টেড কোনো এক্টিভেটর ব্যাবহার করতে পারেন, যদিও আমরা এভাবে এক্টিভেটর এর সাহায্যে এক্টিভেট করার ব্যাপারটি কোনোভাবেই সমর্থন করিনা। ধন্যবাদ। 🙂

  3. online theke search kora digital licence ki kaj korbe?

    1. আপনি অনলাইন বা অফলাইন যেখান থেকেই লাইসেন্স কি নিয়ে থাকেন, লাইসেন্স কি টি যদি ১০০% অরিজিনাল এবং ভ্যালিড হয় তাহলে সেটা অবশ্যই কাজ করবে। ধন্যবাদ। 🙂

  4. please give a link of virus free win10 activator.

    1. দুঃখিত। আমরা কেউই পার্সোনালি এক্টিভেটর এর সাহায্যে উইন্ডোজ ১০ ফ্রি এক্টিভেট করার মেথডটি সাপোর্ট করিনা। কিন্তু আপনি চাইলে টরেন্ট থেকে খুঁজে সম্ভবত কোনো ভাইরাস ফ্রি এক্টিভেটর পেলেও পেতে পারেন। কিন্তু সেক্ষেত্রে আপনার পিসির কোনো ক্ষতি হলে টেকহাবস কোনোভাবেই দায়ী থাকবে না। ধন্যবাদ। 🙂

  5. Osadaron upokari post cilo.

    1. ধন্যবাদ। 🙂

  6. আচ্ছা ভাইয়া আমি তো আগেই ইন্সটল করেছি ফ্রীতে। এখন যদি কোন কারণে আনইন্সটল/ইন্সটল করতে হয় তখন কি হবে? আর আমার ফ্রী মেয়াদ কতোদিন? আমাকে কি আর টাকা দিতে হব এ না?

    1. আপনি আগে ইনস্টল করেছেন কি সরাসরি মাইক্রোসফট এর ওয়েবসাইট থেকে ডাউনলোড করে? যখন ইনস্টল করেছিলেন তখন কি উইন্ডোজ ১০ ফ্রি আপগ্রেড অফারটি চলছিল? ইনস্টল করার পরে পিসিতে ইন্টারনেট কানেক্ট করেছিলেন? আপনার উইন্ডোজ কি অটোমেটিকালি এক্টিভেট হয়েছিল?

      যদি সবগুলোর উত্তর হ্যা হয়, তাহলে আপনাকে আর কিছুই করতে হবেনা। আপনি সারাজীবন উইন্ডোজ ১০ ফ্রি ব্যাবহার করতে পারবেন, তবে শুধুমাত্র ঐ পিসিতেই। অন্য কোনো পিসিতে না। আর হ্যা, আপনি যতবার ইচ্ছা উইন্ডোজ অনিনস্টল করতে পারেন। কোনো সমস্যা হবেনা। ধন্যবাদ। 🙂

      1. সম্পূর্ণ অফিয়াল ভাবে একটিভ করেছি ভাইয়া। ইন্টারনেট থেকে মাইক্রোসফট সার্ভার থেকে। কিন্তু সারাজীবন তো ফ্রী অফার ছিল না মনে হয়। শুধু মাত্র প্রথম বছর ফ্রী ছিল ২০১৫ তে যখন আসলো। তারপরে আরো ১ বছর মনে হয় ফ্রী করেছিল। বাট লাইফ টাইম ফ্রী ছিল কি? একটু পরিষ্কার করুণ দয়া করে।

        1. সারাজীবন ফ্রি এক্টিভেট করার অফার ছিলনা। তবে আপনি একবার ফ্রি এক্টিভেট করে ফেললে আপনি যে পিসিতে এক্টিভেট করেছেন ওই পিসিতে সারাজীবনই ফ্রি ব্যাবহার করতে পারবেন উইন্ডোজ ১০। ফ্রি আপগ্রেড অফার শেষ বলতে বোঝানো হয়েছে যে, আপনি নতুন কোনো পিসিতে এখন আর ফ্রি এক্টিভেট করতে পারবেন না।

  7. খুব ভালো লেগেছে। ধন্যবাদ ভাইয়া।

    1. 🙂

  8. Awesome. Activation avoid krle ki installation key lgbe? Windows 10 home ki same process a install kra jbe? Ek2 janaben bhai….??

  9. NICE. Activation avoid krle ki installation key lgbe? Windows 10 home ki same process a install kra jbe? Ek2 janaben bhai….??

    1. এক্টিভেশন যদি নাই করেন তাহলে লাইসেন্স কি এর কোনো দরকার নেই। হ্যা, উইন্ডোজ ১০ হোমও একই প্রোসেসে ইনস্টল করা যাবে। শুধুমাত্র ইনস্টল করার সময় যখন এডিশন সিলেক্ট করতে বলবে তখন হোম এডিশন সিলেক্ট করে দিবেন। ধন্যবাদ। 🙂

  10. ভাই আমার পিসিতে উইন্ডোজ ১০ এ কয়েকদিন যাবৎ “Your windows license will expired soon” এই ম্যাসেজটি দেখাচ্ছে,,!
    এর আগে মোবাইল হটস্পট ওয়াইফাই দিয়ে ল্যাপটপে ইন্টারনেট কানেক্ট করতাম, কিন্তু ঐ ম্যাসেজটি দেখানোর পর থেকে মোবাইল থেকে কানেক্ট হয় কিন্তু লিমিটেড দেখায়,,!!
    এমনকি মডেম দিয়েও ইন্টারনেটে কানেক্ট হতে পারছি না,,! এই অবস্থায় আমি কি করবো!!?

    1. কি দিয়ে উইন্ডোজ অ্যাক্টিভ করেছিলেন?

Leave a reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *