এএমডি Vs. এনভিডিয়া | নেক্সট জিপিইউ কোন কোম্পানির কিনবেন?

এএমডি Vs. এনভিডিয়া

আজকের গ্রাফিক্স কার্ড (জিপিইউ) — প্রস্তুতকারী কোম্পানি এএমডি এবং এনভিডিয়া এর মধ্যের যুদ্ধ আজকের নয়। আর এই যুদ্ধ কখনোই থামবে বলেও মনে হয় না। যদি দুই কোম্পানির প্রত্যেকটি জিপিইউ নিয়ে একে একে বর্ণনা করে তুলনা করতে আরম্ভ করি, সেক্ষেত্রে আর্টিকেলটি অনেক লম্বা আর জটিল হয়ে যাবে, তাই বর্তমান লেটেস্ট মার্কেট আর লেটেস্ট টেকনোলজির উপর ভিত্তি করে এই তুলনাটি করার চেষ্টা করবো। সম্পূর্ণ তুলনা পোস্ট করতে গেলে বহু বেঞ্চমার্ক রেজাল্ট প্রয়োজনীয় হবে, পারফর্মেন্স মাপতে হবে, বিভিন্ন ইউজেস ডাটা কালেক্ট করতে হবে, আর বিশ্বাস করুণ এতে আর্টিকেল অনেক বেশি কমপ্লেক্স হয়ে যাবে। তো চলুন সহজে মোটের উপর একটি সিদ্ধান্ত নেওয়া যাক…

এএমডি Vs. এনভিডিয়া

এএমডি Vs. এনভিডিয়া জিপিইউ

এনভিডিয়া’র রিলিজ করা সবচাইতে লেটেস্ট চিপসেট হচ্ছে GeForce 10 সিরিজ। এই কার্ডের মধ্যে বিল্ডইন ভাবে GP100-সিরিজ কোর এবং কনজিউমারদের কাছে বাজারজাত করা হয়েছে GeForce GTX 1060, 1070, 1080 এবং 1080ti নামে। এই কার্ড গুলো এনভিডিয়া’র সর্বপ্রথম কার্ড, যেগুলো মাইক্রো আর্কিটেকচারের উপর তৈরি, আর এই আর্কিটেকচারের কোড নেম Pascal। এনভিডিয়া’র দাবী অনুসারে Pascal পুরাতন আর্কিটেকচার Maxwell থেকে ১০ গুনবেশি দ্রুতগামী। নতুন Pascal’কে নতুন প্রসেস সাইজে (16mm FinFET) ফিচার করা হয়েছে, এবং এতে আরো মেজর ফিচার রয়েছে, যেমন সমন্বিত মেমোরি, হাই ব্যান্ডউইথ মেমোরি, যে মেমোরি সর্বচ্চ ১টেরাবাইট পর্যন্ত ১ টেরাবাইট পর্যন্ত মেমোরি সমর্থন করে এবং ১৬ জিবি পর্যন্ত GDDR5X মেমোরি সাপোর্ট করে। এতে ব্যবহার করা হয়েছে NVLink, যেটা PCIE 3.0’s কমুনিকেশন সিস্টেম থেকে ১০ থেকে ১২ গুনবেশি ফাস্ট।

অপরদিকে যদি এএমডি’র কথা বলি, এরাও নতুন গ্রাফিক্সকার্ড মার্কেটে এনেছে, Polaris 20, 11 এবং 12,  Radeon 500 লাইনকে পাওয়ার করে। Radeon RX 550, 560, 570 এবং 580 কার্ড গুলো fourth iteration of the Graphics Core Next (GCN) আর্কিটেকচার ব্যবহার করা হয়েছে। GCN’তে মাইক্রো প্রসেসর এবং ইন্সট্র্যাক্সন সেট উভয়ই ইনক্লুড করা রয়েছে।

নতুন এএমডি’র Polaris কার্ড গুলোতে আগের জেনারেশনের তুলনায় আরোবেশি ক্লক স্পীড যুক্ত করা হয়েছে। তাছাড়া এএমডি তাদের নতুন মাইক্রো আর্কিটেকচার Vega উন্মুক্ত করেছে। আর এই মাইক্রো-আর্কিটেকচার এনভিডিয়া’র হাই-এন্ড গেমিং কার্ড গুলোর সাথে টক্কর দেওয়ার জন্য যথেষ্ট!

তাহলে কে বেস্ট?

তো এই দুই গ্রাফিক্স নির্মাতা কোম্পানির মধ্যে বেস্ট কে? — যেখানে দুই কোম্পানিই অনেক ভালো আর শক্তিশালী কার্ড তৈরি করে! আসলে কে বিজয়ী, এটা নির্ভর করে আপনার ব্যবহারের উপর। সহজে বলতে গেলে আপনি যদি গেমিং পছন্দ করেন বা ডেডিকেটেড কার্ড লাগিয়েছেন শুধু গেমিং করার জন্য, তো এনভিডিয়া’র পারফর্মেন্স এই ক্ষেত্রে এএমডি’র উপরে হবে। কিন্তু আপনি যদি ক্রিপটোকারেন্সি মাইন করার জন্য যেমন- বিটকয়েন, এক্ষেত্রে এএমডি আপনাকে পাওয়ারফুল পারফর্মেন্স দেবে।

বিটকয়েন, জিপিইউ, গ্রাফিক্স কার্ড

আসলে জিপিইউ নির্মাতা’রা বিভিন্ন মার্কেট টার্গেট করে তাদের কার্ড বাজারে নিয়ে আসে। এএমডি’র টার্গেট থাকে কম্পিউটিং এর দিকে। এতে বেটার ক্লক স্পীড এবং উন্নত ইন্সট্র্যাকশন সেট থাকে, যেটা ক্রিপ্টোকারেন্সি মাইন করতে বা পাসওয়ার্ড ক্র্যাক করতে পাওয়ারফুল পারফর্মেন্স প্রদান করে। অপরদিকে এনভিডিয়া’র কার্ড গুলো গেমিং হয়ে থাকে। এনভিডিয়া’a GeForce GTX 1080ti কার্ডটি এএমডি’র Radeon RX 580 কার্ডের উপর যথেষ্ট রাজত্ব দেখায়।

যদি দামের দিকে লক্ষ্য করা যায়, এএমডি সবসময় বাজেট জিপিইউ তৈরি করাতে ফোকাস প্রদান করে, কিন্তু এনভিডিয়া সবসময় দামী এবং লাক্সারি প্রোডাক্ট তৈরি করার চেষ্টা করে। তবে ব্যাপারটা কিন্তু সবসময় এমন নয়। অনেক সময় পারফর্মেন্সের দিকে মিল রেখে জিপিইউ দেখেতে গেলে দুই কোম্পানির জিপিইউ ই প্রায় সেম প্রাইসের হয়ে যায়। যেমন- এনভিডিয়া’র GeForce 980Ti কার্ড প্রায় ৬০ হাজারের মতো খরচ পরে, সেখানে এএমডি’র প্রায় একই পারফর্মেন্স কার্ড R9 Fury X প্রায় একই খরচ পরে। তো যদিও এএমডি সস্তা কার্ড বেশি তৈরি করে, কিন্তু পারফর্মেন্স পয়েন্টে আসলে দুইজনের প্রাইসই প্রায় সমান।

তো কে বেস্ট? আগেই বলেছি, সেটা আপনার প্রয়োজন এবং আপনার ব্যবহারের উপর নির্ভর করে। দুই কোম্পানি’ই তাদের নিজ নিজ স্থানে পারফেক্ট। দুই কার্ডেরই কিছু সুবিধা এবং কিছু অসুবিধা রয়েছে। এদের দুইজনেরই তাদের এক্সক্লুসিভ টেকনোলজির উপর কাজ করে, কিন্তু পারফর্মেন্সের দিক থেকে প্রায় অনেক সময় এরা একই হয়ে থাকে। যদিও এদের প্রাইস রেঞ্জ অনেক সময় একই হয়, তবে সেম প্রাইস রেঞ্জে এনভিডিয়া’র পারফর্মেন্স সহজেই এএমডি’কে হারিয়ে দেয়। তবে দুইজনেরই গেমিং কোম্পানি গুলোর সাথে এক্সক্লুসিভ পার্টনারশিপ রয়েছে, আর যে গেম অফিশিয়ালি যে কার্ডকে সমর্থন করে, সেই গেমের সাথে ঐ কার্ড বেশি মানানসই কাজ করে। কেনোনা গেমিং কোম্পানি তাদের গেম তৈরি করার সময় সাপোর্টেড কার্ডকে বিশেষভাবে অপটিমাইজ করেই তাদের গেম ডেভেলপ করে।


যাই হোক, এটা কোন কমপ্লিট তুলনা ছিল না, কেনোনা সেখানে অনেক টার্ম চলে আসবে আর সাথে বেঞ্চমার্কিং স্ক্রোর যুক্ত করে তুলনা করা হবে (যেটা আগে উল্লেখ্য করেছি)। তবে সত্যি বলতে এভাবে কাউকে ক্লিন বিজয়ী বলে ঘোষণা করা সম্ভব নয়। কেনোনা দুইজনের টার্গেট আলাদা আলাদা কনজিউমার এবং আলাদা আলাদা লেভেলের।

এখন আপনি কোন ধরণের ইউজার তার উপর ভিত্তি করে আপনি নিজের নিরধারন করুণ আপনার কাজের জন্য রাজা কে! যদি পাসওয়ার্ড ক্র্যাকিং বা বিটকয়েন মাইনিং বা কম্পিউটিং ডিম্যান্ড যদি বেশি হয় আপনার সেক্ষেত্রে আপনার কাছে এএমডি রাজা হবে, আর আপনি যদি হার্ডকোর গেমার হোন, এনভিডিয়া’র ভক্ত হওয়া থেকে কেউ আপনাকে আটকাতে পারবে না।

তো বন্ধু এই ছিল জাস্ট একটি কুইক তুলনা মুলক আর্টিকেল, যেখানে আমি আশা করছি দুই কোম্পানির গ্রাফিক্স কার্ড সম্পর্কেই আপনার বেসিক ধারণা নেওয়া হয়ে গেছে। তারপরেও আপনার যদি কোন প্রশ্ন থাকে, অবশ্যই নিচে কমেন্ট করে জানাবেন। আর হ্যাঁ, আপনার কাছে কোন কার্ড কোম্পানিটি সেরা সেটা জানাতে একদমই ভুলবেন না, কিন্তু!


WiREBD এখন ইউটিউবে, নিয়মিত টেক/বিজ্ঞান/লাইফ স্টাইল বিষয়ক ভিডিও গুলো পেতে WiREBD ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুণ! জাস্ট, youtube.com/wirebd — এই লিংকে চলে যান এবং সাবস্ক্রাইব বাটনটি হিট করুণ!

ইমেজ ক্রেডিট; By Vitaliy Karimov Via Shutterstock | Pixabay.Com

তাহমিদ বোরহান
প্রযুক্তির জটিল টার্মগুলো কি আপনাকে বিভ্রান্ত করছে? কিছুতেই কি আপনার মস্তিষ্কে পাল্লা পড়ছে না? তাহলে বন্ধু, আপনি এবার সঠিক জায়গায় এসেছেন—কেনোনা এখানে আমি প্রযুক্তির সকল জটিল বিষয় গুলো ভাঙ্গিয়ে সহজ পানির মতো উপস্থাপন করার চেষ্টা করি, যাতে সকলে সহজেই সকল টেক টার্ম গুলো বুঝতে পারে।