১০টি সেরা উইন্ডোজ ড্রাইভার আপডেটার সফটওয়্যার! (তালিকা)

উইন্ডোজ ড্রাইভার আপডেটার

আমাদের উইন্ডোজ কম্পিউটারে বিভিন্ন হার্ডওয়্যার এর সাথে এদের সংশ্লিষ্ট সফটওয়্যার তথা ডিভাইজ ড্রাইভার ইনস্টল করা থাকে। সময়ের সাথে সাথে হার্ডওয়্যার এর কার্যক্ষমতা আপ-টু-ডেট রাখার জন্য এসব ড্রাইভার গুলোও নিয়মিড আপডেটেড রাখা জরুরী। ড্রাইভ নিয়মিত আপডেটেড না রাখলে ব্লু স্ক্রীন অফ ডেথ সহ নানান সমস্যায় পড়ে যেতে পারে আপনার কম্পিউটার, তাছাড়া আপনার কম্পিউটারে ম্যালওয়্যার অ্যাটাক করানোও অনেক সহজ হয়ে যেতে পারে।

আজ আমরা কিছু উন্ডোজের ড্রাইভার আপডেটেড রাখার সফটওয়্যার সম্পর্কে জানব। যেগুলোর মাধ্যমে আপনি আপনার কম্পিউটারে নানারকম হার্ডওয়্যার; যেমন; প্রিন্টার,গ্রাফিক্স কার্ড,মাদারবোর্ড ইত্যাদির জন্য থাকা ড্রাইভার গুলোকে সবসময় আপডেটেড রাখতে পারবেন। ম্যানুয়ালি আলাদা আলাদা হার্ডওয়্যার এর ড্রাইভার এক এক করে আপডেট দেয়া, অনেক ক্ষেত্রে আমাদের কাছে ঝামেলার মনে হয়। এমনকি আমাদের ভেতর অনেকে এসব ড্রাইভার আপডেট দিতেও ভুলে যাই।

Free Driver Scout

খুবই দারুন ও সয়ংক্রিয় ড্রাইভার এর আপডেট প্রদান করে, এমন একটি সফটওয়্যার হল Free Driver Scout। এটা আপনার কম্পিউটারে ইনস্টল হয়ে থাকা সবগুলো হার্ডওয়্যার এর ড্রাইভারকে স্ক্যান করবে এবং কার কার আপডেট প্রয়োজন, সেগুলোর জন্য অটোমেটিক বা সয়ংক্রিয়ভাবে আপডেট ডাউনলোড করা শুরু করে দিবে এবং শেষে ইনস্টলও করে ফেলবে।

তবে ব্যবহারকারী চাইলে যেকোন হার্ডওয়্যার এর ড্রাইভারকে এই সফটওয়্যার এর লিসট থেকে সরিয়ে রাখতে পারবে। আর এতে করে সেই ড্রাইভারটি Free Driver Scout দ্বারা আর আপটেড হবে না। এই সফটওয়্যারটিতে ড্রাইভার এর ডাটা ব্যাকআপ এবং রিস্টোর এর অপশনও রয়েছে। যার ফলে পরে অনাকাঙ্খিত কোন সমস্যা হলে আবার ড্রাইভারটিকে রিস্টোর করা যাবে।

আর সফটওয়্যারটির “ওএস মাইগ্রেশন” ফিচার এর কারনে যদি আপনি উইন্ডোজের আপডেট করেন, তবে নতুন উইন্ডোজ সংস্করন এর জন্য ড্রাইভারটির ভার্সন আপডেট হয়ে যাবে।

[su_button url=”http://freedriverscout.com/” target=”blank” style=”flat” background=”#FE3D2E” icon=”icon: arrow-circle-down”]ডাউনলোড[/su_button]

 

Driver Booster

এটিও অন্যতম সেরা একটি ফ্রী উইন্ডোজ ড্রাইভার আপডেটার প্রোগ্রাম। এটি উইন্ডোজের সকল ভার্সনের জন্য এভেইলেবল এবং সহজেই ড্রাইভার আপডেট করতে সক্ষম। একেও অটোমেটিক ড্রাইভার আপডেটের জন্য সেট করে রাখা যায়। যখন নতুন আপতেট পাওয়া যাবে, তখন সহজেই ড্রাইভার এর বুস্টার প্রোগ্রাম এর ভেতর ডাউনলোড শুরু হয়ে যাবে – আলাদা করে ব্রাউজার আর ওপেন করতে হবে না

আর নতুন ড্রাইভার আপডেট দেয়ার আগে এই সফটওয়্যার এর মাধ্যমে কমপেয়ার করেও দেখা যাবে, নতুনটিকে কি কি থাকছে বা থাকছে না। যা খুবই উপকারী। এতেও একটি রিস্টোর অপশন রয়েছে, যদি কোন ভুল ইনস্টলেশন হয়ে যায় তবে আবার আগের ডাটা ব্যাক পাওয়া যাবে।

সেটিংসে একটা অপশনের মাধ্যমে সব কার্যক্রম ব্যাকগ্রাউন্ডেই চালানো যাবে, আলাদা করে কোন উইন্ডো ও পপআপ ঝামেলা করবে না।

[su_button url=”https://www.iobit.com/en/driver-booster.php” target=”blank” style=”flat” background=”#FE3D2E” icon=”icon: arrow-circle-down”]ডাউনলোড[/su_button]

 

Snappy Driver Installer

এই সফটওয়্যারটির আলাদা সুবিধা একসাথে কয়েকটি হার্ডওয়্যার এর ড্রাইভার ডাউনলোড করতে পারবে ; আবার ডাউনলোডের পর কোনটি আগে ইনস্টল করবেন সেই স্বাধীনতা আপনার কাছে থাকবে। ডাউনলোড এর পর জরুরী নয় আপনার ইন্টারনেট কানেকশন আছে কি নেই।

এই সফটওয়্যাটিকে আপনি এক্সটারনাল হার্ডড্রাইভে রেখেও ব্যবহার করতে পারবেন, কম্পিউটারে ইন্সটল করে ব্যবহার করা জরুরী নয়। এই সফটওয়্যারটিতে কোনরকম বিজ্ঞাপন নেই, খুবই সহজ এবং ব্যবহারবান্ধব সফটওয়্যারটি কোনোরকম লিমিটেশন বিহীন।

[su_button url=”https://sdi-tool.org/” target=”blank” style=”flat” background=”#FE3D2E” icon=”icon: arrow-circle-down”]ডাউনলোড[/su_button]

 

DriverPack Solution

এর ইন্টারফেসটি খুবই সুন্দর যার কারনে এটিও ব্যবহার করতে অনেকটা সহজ। সফটওয়্যারটিতে বেশি বাটন নেই, আর এমন কোনো অতিরিক্ত পেজ বা অন্যকিছু নেই যা আপনাকে বিভ্রান্ত করবে। বাল্ক ডাউনলোড ও অটোমেটেড ইন্সটলেশন ফিচার সাপোর্ট করার কারনে, ডাউনলোড ও ইন্সটলেশন প্রক্রিয়া শেষ হবে কোনরকম ক্লিক ছাড়াই।

ড্রাইভার ডাউনলোডের পাশাপাশি আপনার সিস্টেমের ওপর ভিত্তি করে বিভিন্ন সফটওয়্যার রেকমেন্ড করবে; আপনি সেগুলোও ইনস্টল করতে পারেন।

[su_button url=”https://drp.su/en” target=”blank” style=”flat” background=”#FE3D2E” icon=”icon: arrow-circle-down”]ডাউনলোড[/su_button]

 

Driver Talent

এটিও একইরকম সফটওয়্যার যা আপনার ড্রাইভার আপডেটের জন্য কাজ করবে এবং আপনাকে ড্রাইভারে লেটেস্ট ভার্সনের জন্য ইন্টারনেটে সার্চ করা লাগবে না। এটা যে কেবল ব্যাকডেটেড ও মিসিং ড্রাইভারকে তাই নয়, ড্রাইভারটি যদি করাপ্টেড থাকে তবে তা ফিক্স করে। আর আগের ড্রাইভারের ডাটা তো ব্যাক আপ করে রাখেই। নতুন ড্রাইভারের সংস্করন, ফাইল সাইজ ইত্যাদি উল্লেখিত থাকে সফটওয়্যারটওতে। এর আরেকটি ভার্সন রয়েছে যেটাতে নেটওয়ার্ক ড্রাইভার এভেইলেবল এবং অফলাইনেও কাজ করতে পারে। প্রোগ্রামটিকে কম্পিউটারে ইনস্টল করতে খুবই কম সময় লাগে। আর এর কার্যকলাপও খুবই গতিসম্পন্ন।

[su_button url=”https://filehippo.com/download_driver_talent/” target=”blank” style=”flat” background=”#FE3D2E” icon=”icon: arrow-circle-down”]ডাউনলোড[/su_button]

 

DriverMax

এটি একটি ফ্রী সফটওয়্যার যা পুরাতন এবং আউট-অফ-ডেট সব ড্রাইভারকে আপডেট করার কাজ করে থাকে। তবে সব জায়গায় এই সফটওয়্যারটি এভেইলেবল নয়। তাই জন্য এই সফটওয়্যারটি তেমন সুবিধার না। সফটওয়্যারটি বর্তমানে ইনস্টল হয়ে থাকা ড্রাইভারকে ব্যাক আপ করে রাখে, অজানা হার্ডওয়্যার সনাক্তকরণ সহ ব্যাক আপ করা ডাটা রিস্টোর করতে পারে।

পুরাতন সব ব্যাকডেটেড কম্পিউটারেরর জন্য এই সফটওয়্যার ড্রাইভার আপডেটের ক্ষেত্রে খুবই কাজে দেবে। তবে এটি দিনে সর্বোচ্চ ২ টি ড্রাইভার এবং মাসে সর্বোচ্চ ১০ টি ড্রাইভার ইনস্টল করার ক্ষমতা রাখে। এইসব কিছু লিমিটেশন এর জন্য সফটওয়্যারটি খারাপ। এটিও উইন্ডোজের প্রায় সকল ভার্সনের জন্য এভেইলেবল।

[su_button url=”http://www.drivermax.com/” target=”blank” style=”flat” background=”#FE3D2E” icon=”icon: arrow-circle-down”]ডাউনলোড[/su_button]

 

DriversCloud

এটি একটি ওয়েবভিত্তিক সার্ভিস। এটি ব্যবহারকারীর হার্ডওয়্যার ও সফটওয়্যারজনিত সকল তথ্য কালেক্ট করে। সার্ভিসটি ব্রাউজারের মাধ্যমে কম্পিউটার এর সকল তথ্য সংগ্রহ করে এবং একই ব্রাউজারের মাধ্যমে ডাউনলোড কার্যটি সমাধান করে।

এর ওয়েবসাইট থেকে BSOD Analysis,My Drivers,Autorun,Network Configuration এবং আরও কিছু অপশন পাওয়া যাবে। এটি দিয়ে নতুন আপডেটে কি আছে, আর আগে কি ছিল তা কমপেয়ার করা যাবে। উইন্ডোজ ২০০০ থেকে শুরু করে সকল উইন্ডোজ ভার্সনের জন্যই এটি এভেইলেবল।

[su_button url=”https://www.driverscloud.com/en/start” target=”blank” style=”flat” background=”#FE3D2E” icon=”icon: arrow-circle-down”]ডাউনলোড[/su_button]

 

Driver Identifier

এটি খুবই সাধারন একটি ড্রাইভার আপডেটার প্রোগ্রাম,খুবই সাধারন প্রোগ্রাম হলেও ব্যবহার করা একটু ডিফিকাল্ট। ইন্টারনেট কানেকশন না থাকলেও আপনি ড্রাইভার এর জন্য স্ক্যান করতে পারবেন, অনেকক্ষেত্রে যখন নেটওয়ার্ক ড্রাইভার কাজ করে না সেসময় এটি খুবই কাজের।

ড্রাইভার এক্ষেত্রে ইন্টারনেট সংযোগ থাকাকালীন সময়ে তার ইন্টারনাল ও সিস্টেমেরর ডাটা কালেক্ট করে জমা করে রাখে। এই পর্যন্ত সফটওয়্যারটি প্রায় ২৭ মিলিয়ন মানুস ডাউনলোড করেছে। সফটওয়্যারটি কেবল লেটেস্ট ড্রাইভার এর সফটওয়্যার লিংক টিকেই প্রদর্শন করায়।

সফটওয়্যারটিকে পোর্টেবল হিসেবেও পাওয়া যায়, যার ফলে নতুন করে আর ইনস্টল করার প্রয়োজন পরে না। এক্সটারনাল কোনো স্টোরেজে রেখে ব্যবহার করা যায়।

[su_button url=”https://filehippo.com/download_driver_identifier/” target=”blank” style=”flat” background=”#FE3D2E” icon=”icon: arrow-circle-down”]ডাউনলোড[/su_button]

 

Device Doctor

এটিও খুবই সাধারন এবং সহজে ব্যবহারযোগ্য একটি আপডেটার প্রোগ্রাম। এটাকেও যেমন একটি রেগুলার প্রোগ্রাম বা সফটওয়্যার হিসেবে পিসিতে ইনস্টল করা যায়, তেমনি পোর্টেবল হিসেবে ব্যবহার করা যায় ইনস্টল এর প্রয়োজন পড়ে না।

স্ক্যান শেষে ম্যানুয়ালি ডাউনলোড করার জন্য এটি ব্যবহারকারীকে একটি ওয়েবসাইটে নিয়ে যাবে, অর্থাত ডাউনলোড করার জন্য ব্রাউজারের প্রযোজন হবে। এটি দিয়ে দিনে কেবল এটি ড্রাইভার আপডেট করা যাবে। তারপর ডাউনলোড করা ফাইল আনজিপ করার জন্য ৩য় পক্ষ আনজিপ প্রোগ্রাম ব্যবহার করতে হবে।

[su_button url=”http://devicedoctor.com/” target=”blank” style=”flat” background=”#FE3D2E” icon=”icon: arrow-circle-down”]ডাউনলোড[/su_button]

 

Driver Easy

এই আপডেটার সফটওয়্যার টি পার্সোনাল এবং কমার্সিয়াল দুইরকম ব্যবহার এর জন্যই ফ্রী। একটি সিডিউল ঠিক করে দিলে সপ্তাহ বা মাস পরপর এটি একাই অটোমেটিকভাবে সব কিছু চেক করবে এবং আপডেট করা শুরু করে দেবে।


WiREBD এখন ইউটিউবে, নিয়মিত টেক/বিজ্ঞান/লাইফ স্টাইল বিষয়ক ভিডিও গুলো পেতে WiREBD ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুণ! জাস্ট, youtube.com/wirebd — এই লিংকে চলে যান এবং সাবস্ক্রাইব বাটনটি হিট করুণ!

এটিও লেটেস্ট আপডেট ডাউনলোড করার জন্য কোনরকম ব্রাউজার ওপেন করে না। একাই ব্যাকগ্রাউন্ডে নিজস্বভাবে কাজটি করে নেয়। তাছাড়াও ইন্টারনেট কানেকশন ব্যাতিত হার্ডওয়্যার ইনফরমেশন এবং ড্রাইভার স্ক্যানিং এর কাজ করে। তবে অন্যান্য সফটওয়্যার এর হিসেবে এর ডাউনলোড স্পীড তুলনামূলক স্লো।

[su_button url=”https://www.drivereasy.com/” target=”blank” style=”flat” background=”#FE3D2E” icon=”icon: arrow-circle-down”]ডাউনলোড[/su_button]

উইন্ডোজ ডিভাইজ ড্রাইভ গুলো নিয়মিত আপডেট রাখা কতোটা প্রয়োজনীয়, সেটা ওয়্যারবিডিের অনেক পোস্টে ইতিমধ্যে আলোচনা করা হয়েছে। আর উপরের সফটওয়্যার গুলোর মাধ্যমে এই কাজ অনেক সহজ হয়ে যাবে। তো আপনি কোন সফটওয়্যারটি ব্যবহার করেন বা করবেন? আমাদের নিচে কমেন্ট করে জানান।