আপনার ওয়াইফাই কেউ হ্যাক করে ব্যবহার করছে না তো? কিভাবে বুঝবেন?

ওয়াইফাই কেউ হ্যাক করে ব্যবহার করছে না তো

সত্যিই, বিষয়টি চিন্তা করতেও কঠিন লাগে, মাত্র ২০ বছর আগে ইন্টারনেট এক নতুন আবিষ্কার ছাড়া আর কিছুই ছিল না। শুধু বড় বড় কলেজের প্রোফেসর আর গবেষণা গাড়ে ইন্টারনেট ব্যবহৃত হতো। হঠাৎ করেই ইন্টারনেট বিরাট আকার লাভ করতে আরম্ভ করলো আর কানেকশন টেকনোলজিতে চলে আসতে আরম্ভ করলো বিশাল পরিবর্তন। যদিও আজকে আমরা ডায়াল-আপ ইন্টারনেটের যুগ পার করে এসেছি আর আমাদের কাছে রয়েছে, ৩জি, ৪জি, ব্রডব্যান্ড, ওয়াইমাক্স ইত্যাদি। কিন্তু তারপরেও হোম ইউজ বা অফিস ইউজের ক্ষেত্রে ওয়াইফাই‘র ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। ওয়াইফাই রাউটার আর হটস্পটের সাহায্যে পুরাতন ডায়াল-আপ কানেকশনের ইন্টারনেট’কেও ওয়াইফাই ওভার ট্র্যান্সমিট করানো সম্ভব।

কিন্তু ওয়াইফাই নেটওয়ার্কের সাথে সমস্যা হচ্ছে, যদি আপনার নেটওয়ার্কটিতে যথেষ্ট সিকিউরিটি ব্যবস্থা না থাকে, তো যেকেউ আপনার অনুমতি ছাড়ায় আপনার নেটওয়ার্কের সাথে কানেক্টেড হয়ে ইন্টারনেট ইউজ করতে পারে। আপনি এই আর্টিকেলটি পড়ছেন, এর কারণ হতে পারে কেউ অলরেডি আপনার নেটওয়ার্কে ডুকে বিনা পারমিশনে আপনার ইন্টারনেট ব্যবহার করছে। যখন কেউ আপনার ওয়াইফাই চুরি করে, শুধু আপনার অনেক ব্যান্ডউইথ নষ্ট নয় সাথে স্পীডও অনেক কমে যায়। অনেক সময় আপনার ওয়াইফাই চুরি করে আপনার মেশিনকে আক্রান্ত করিয়ে দিতে পারে কিংবা আপনার কম্পিউটার থেকে সকল তথ্য গুলো চুরি করতে পারে।

এই আর্টিকেলে আমরা জানবো, কিভাবে ওয়াইফাই চোর’কে আপনি খুঁজে বেড় করবেন এবং কিভাবে আপনার নেটওয়ার্ক’কে আরো সিকিউর তৈরি করবেন! তো শুরু করা যাক…

রাউটার চেক করুণ

ওয়াইফাই এর জন্য স্ট্যান্ডার্ড সিকিউরিটি এনক্রিপশন আর স্ট্রং পাসওয়ার্ড ব্যবহার করার পরেও আপনার ওয়াইফাই নেটওয়ার্ক হ্যাক হওয়া সম্ভব বন্ধু, হতে পারে আপনার পরিবারের কোন সদস্য কোন প্রতিবেশি’কে পাসওয়ার্ড দিয়ে দিয়েছে আর আপনি সেটা জানেনই না। আবার কেউ আপনার নেটওয়ার্ক’কের উপর ব্রুট ফোর্স অ্যাটাক চালিয়েও আপনার পাসওয়ার্ড হাইতে নিতে পারে।

আপনার নেটওয়ার্কের সাথে কোন কোন ডিভাইজ কানেক্টেড রয়েছে, সেটা চেক করার মাধ্যমে আপনি ১০০% বুঝতে পারবেন, কে আপনার অজান্তে আপনার ওয়াইফাই ব্যান্ডইউথ চুরি করছে। জাস্ট আপনাকে রাউটার সেটিং এক্সপ্লোর করতে হবে, আর আপনি জেনে যাবেন। আপনার রাউটারের গায়ে লিখে থাকা আইপি অ্যাড্রেসটি সরাসরি ব্রাউজারে প্রবেশ করিয়ে ঢুকে পড়ুন। অনেক সময় আইপি অ্যাড্রেস http://192.168.0.1 অথবা http://192.168.1.1 হয়ে থাকে, যাই হোক, আপনি আপনার আইপি অ্যাড্রেস ইউজ করুণ।

এবার আপনার রাউটারের লগইন পেজ চলে আসবে, সেখানে আপনার রাউটার ইউজার নেম এবং পাসওয়ার্ড প্রবেশ করান। লগইন করার পরে Attached Devices অথবা Device List. অপশনটি খোঁজার চেষ্টা করুণ। এই লিস্টে আপনার রাউটারের সাথে কানেক্টেড থাকা সকল আইপি অ্যাড্রেস গুলোকে আপনি দেখতে পাবেন এবং কানেক্টেড থাকা ডিভাইজ গুলোর ম্যাক অ্যাড্রেস গুলোকেও আপনি দেখতে পাবেন। কোন কোন রাউটারে  IP filtering নামক অপশনেও এই লিস্ট থাকতে পারে। জাস্ট চেক করে দেখুন। এবার এই লিস্ট থেকে আপনার ডিভাইজ গুলোর আইপি অ্যাড্রেস চেক করে দেখুন। আপনার সকল ডিভাইজ, আপনার ফোন, আপনার ট্যাবলেট, আপনার ল্যাপটপ, আপনার ডেক্সটপ সবকিছুর আইপি অ্যাড্রেস চেক করে নিন। যদি কোন আইপি অ্যাড্রেস আপনার না হয়, তবে অবশ্যই বুঝে নেবেন, সেটাই ঐ চোরের আইপি অ্যাড্রেস। IP filtering অপশন থেকে সহজেই তাকে ব্ল্যাক লিস্ট করে দিতে পারবেন।

আজকের অনেক মডার্ন  রাউটারে বিশ্বস্ত ডিভাইজ সেট করে রাখা যায়। আপনি চাইতে আপনার সকল ডিভাইজ গুলোকে বিশ্বস্ত ডিভাইজ আকারে সেট করে রাখতে পারেন, এতে এই ডিভাইজ গুলো ব্যতীত আলাদা ডিভাইজ গুলো রাউটারের সাথে কানেক্টেড হতে পারবে না। সাথে যদি দেখতে পারেন, কেউ আপনার ওয়াইফাই চুরি করছে, তো সাথে সাথে ঐ আইপি ব্লক করে এবং আপনার ওয়াইফাই পাসওয়ার্ড’কেও পরিবর্তন করে নিন।

টুল ব্যবহার করুণ

যদি আপনার ওয়াইফাই রাউটারটি অনেক পুরাতন হয়ে থাকে, তো স্বাভাবিক ভাবে সেখানে হয়তো কানেক্টেড ডিভাইজের লিস্ট শো করবে না। তাহলে কি করবেন? চিন্তার কোন কারণ নেই, কেনোনা আপনার নেটওয়ার্কের সাথে কানেক্টেড ডিভাইজ গুলোর লিস্ট এবং আইপি অ্যাড্রেস পাওয়ার জন্য অনেক টুল রয়েছে।

ওয়াইফাই টুল

এই ক্ষেত্রে আমার সবচাইতে ভালোলাগা টুলটি হলো Wireless Network Watcher— এই টুলটি ব্যবহার করা পানির মতো সহজ, আপনাকে কোন কিছুর সেটিং নিয়ে মাথা ঘামাতে হবে না। জাস্ট টুলটি ওপেন করেই আপনার রেঞ্জের সকল আইপি অ্যাড্রেস গুলোকে স্ক্যান করতে আরম্ভ করে দেবে। আপনি যদি আলাদা কোন অ্যাডাপ্টার বা আলাদা আইপি রেঞ্জ স্ক্যান করতে চান, সেক্ষেত্রে F9 প্রেস করে অপশন সিলেক্ট করতে পারেন।  এই টুলটির আইপি স্ক্যানিং প্রসেস অনেক ফাস্ট, আর মাত্র কয়েক সেকেন্ডই লাগে সম্পূর্ণ হতে। এই টুলটির স্ক্যান রেজাল্ট থেকে আপনি সকল তথ্য গুলো পেয়ে যাবেন। আপনার নেটওয়ার্কে কানেক্টেড থাকা আইপি অ্যাড্রেস, ডিভাইজ ম্যাক অ্যাড্রেস, ডিটেকশন এবং একটিভিটি ইত্যাদি সব কিছুই আপনি ট্র্যাক করতে পারবেন। সবচাইতে ভালো ব্যাপার হচ্ছে, এই টুলটির পোর্টেবল ভার্সনও রয়েছে।

এই টাইপের আরো অনেক টুল রয়েছে, যেগুলো ব্যবহার করে সহজেই আপনি নেটওয়ার্কে কানেক্টেড থাকা ডিভাইজ গুলোকে খুঁজে পেতে পারবেন। আপনার ডিভাইজ গুলোর সাথে স্ক্যান লিস্ট ক্রস চেকিং করুণ, যদি কোন অচেনা ডিভাইজ বা আইপি অ্যাড্রেস কানেক্টেড থাকতে দেখতে পান, সেটাকে রাউটার থেকে ব্ল্যাক লিস্ট করে দিন এবং আপনার ওয়াইফাই পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করে নিন। আমি নিচে আরো কিছু টুলের লিস্ট দিয়ে দিলাম, আপনি এগুলোও ইউজ করে দেখতে পারেন।

ওয়াইফাই নেটওয়ার্ক সিকিউর রাখার কিছু টিপস

সর্ব প্রথম এটাই বলবো অবশ্যই আপনার এনক্রিপশন স্ট্যান্ডার্ড পরিবর্তন করে নিন, যদি আপনি এখনো WEP ব্যবহার করে থাকেন। অবশ্যই WPA অথবা WPA2 এনক্রিপশন স্ট্যান্ডার্ড ব্যবহার করুণ। WEP আজকাল লিনাক্স ব্যবহার করে মাত্র কয়েক ঘন্টার মধ্যেই ক্র্যাক করে ফেলা সম্ভব। WPA অথবা WPA2 অনেক শক্তিশালী এনক্রিপশন ব্যবস্থা। (WPA2 সহ দুনিয়ার যেকোনো ওয়াইফাই এখন হুমকির মুখে! – বিস্তারিত) সাথে অবশ্যই প্রচন্ড শক্তিশালী পাসওয়ার্ড তৈরি করুণ।

যেটা লম্বা আর জটিল পাসওয়ার্ড হওয়া প্রয়োজনীয়। যদিও এটা কোথাও নেই, যে ঠিক কতো ক্যারেক্টার লম্বা করার পরে পাসওয়ার্ড সবচাইতে বেশি সুরক্ষিত হয়। কিন্তু আমি রেকমেন্ড করবো, কমপক্ষে ১৫ ক্যারেক্টারের পাসওয়ার্ড সেট করুণ। আর পাসওয়ার্ডের মধ্যে ছোট হাতের অক্ষর, বড় হাতের অক্ষর, সংখ্যা, স্পেশাল ক্যারেক্টার (@#$%^&) ব্যবহার করুণ। অবশ্যই যে শব্দ অভিধানে খুঁজে পাওয়া যাবে, এমন শব্দ ব্যবহার করে পাসওয়ার্ড তৈরি করবেন না। ওয়াইফাই সিকিউরিটি নিয়ে আরো বিস্তারিত জানতে, এই আর্টিকেলটি পড়ুন!

ওয়াইফাই হ্যাক হয়ে যাওয়া কোন রকেট সায়েন্স নয়। অনেক সময় নিজের কিছু ভুলের জন্যই আপনার নেটওয়ার্ক ট্রুটিপূর্ণ থেকে যেতে পারে, তাই যতোটা সম্ভব বেস্ট সিকিউরিটি প্রাক্টিস বজায় রাখুন!

তো আপনার ওয়াইফাই কি কেউ হ্যাক করে ব্যবহার করছে? আর আপনি কি সেটা ধরতে পেড়েছেন? কিভাবে এবং কোন টুল ব্যবহার করেছিলেন? নিচে কমেন্ট করে আমাদের সবকিছু বিস্তারিত জানিয়ে দিন!


WiREBD এখন ইউটিউবে, নিয়মিত টেক/বিজ্ঞান/লাইফ স্টাইল বিষয়ক ভিডিও গুলো পেতে WiREBD ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুণ! জাস্ট, youtube.com/wirebd — এই লিংকে চলে যান এবং সাবস্ক্রাইব বাটনটি হিট করুণ!

ইমেজ ক্রেডিট; By Tasko Via Shutterstock

প্রযুক্তির জটিল টার্মগুলো কি আপনাকে বিভ্রান্ত করছে? কিছুতেই কি আপনার মস্তিষ্কে পাল্লা পড়ছে না? তাহলে বন্ধু, আপনি এবার সঠিক জায়গায় এসেছেন—কেনোনা এখানে আমি প্রযুক্তির সকল জটিল বিষয় গুলো ভাঙ্গিয়ে সহজ পানির মতো উপস্থাপন করার চেষ্টা করি, যাতে সকলে সহজেই সকল টেক টার্ম গুলো বুঝতে পারে।

7 Comments

  1. Salam Ratul Reply

    তাহমিদ বোরহান ভাইয়া খুবই চমৎকার ভালো লেগেছে। উপকারী পোষ্ট ছিল। ধন্যবাদ ভাইয়া।

  2. Rahim hosen Reply

    Tahmid borhan Vi Apni sotti shoj kore kore dilen.ami ato din-
    2mb line chaliye cilam kintu jototuko speed powar kotha cilo
    ta ekdom e pascilam na.Apnar potdoti onusoron kore Ekhon ami
    shotik Vabe Speed pasci.Thanks Vi.Thanks wirebd.com

  3. Rupan Reply

    আমি আমার নেটওয়ার্কে যুক্ত থাকা ডিভাইসগুলো কখন কোন সাইট ভিজিট করছে সেটা কি দেখতে পারি?? কীভাবে??

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *