এএমডি রায়জেন প্রসেসর | পরিবর্তন করবে সম্পূর্ণ কম্পিউটিং দুনিয়া?

এএমডি রায়জেন

কম টাকার মধ্যে পিসি বা ল্যাপটপ কেনা—বিশেষ করে যখন ইনটেল বা এনভিডিয়া কেনার টাকা থাকে না; এএমডি সেই মুহূর্তে ভালো প্রসেসর এবং জিপিইউ সরবরাহ করে থাকে। আমি ইনটেল বনাম এমএমডি তুলনামূলক আর্টিকেলে এএমডির কম দামের জন্য একে রেকমেন্ড করেছিলাম এবং পারফর্মেন্সের দিক থেকে ইনটেলকে রেকমেন্ড করেছিলাম; কিন্তু মজার ব্যাপার হচ্ছে, সম্প্রতি এএমডি নতুন এক প্রসেসর সিরিজ বাজারে উন্মুক্ত করতে চলেছে, এএমডি রায়জেন (AMD Ryzen) প্রসেসর সিরিজ —যেটা কিনা ইনটেল কোর আই ৭ থেকে অর্ধেক দামের এবং একই পারফর্মেন্স দিতে সক্ষম! বিশ্বাস করতে পারছেন, কতটা অসাধারণ?

যাইহোক, এই আর্টিকেলে চলুন এই নতুন সিপিইউ নিয়ে আলোচনা করা যাক এবং ভবিষ্যৎ সিপিইউ মার্কেটকে বর্তমান থেকে একনজরে দেখে নেওয়া যাক…

[নোট: এই আর্টিকেলে কিছু স্পনসরড বা অ্যাফিলিয়েট লিঙ্ক রয়েছে, যেগুলো থেকে ওয়্যারবিডি অর্থ উপার্জন করতে পারে]

এএমডি রায়জেন কি?

রায়জেন হচ্ছে এএমডির নতুন প্রসেসর সিরিজ যেখানে এএমডি তিন প্রকারের সিপিইউ বাজারে আনার চিন্তা করছে; রায়জেন ৭ (Ryzen 7), রায়জেন ৫ (Ryzen 5), এবং রায়জেন ৩ (Ryzen 3)—যেমনটা ইনটেল সিপিইউ এর ক্ষেত্রেও দেখতে পাওয়া যায়, ইনটেল কোর আই ৭, কোর আই ৫, এবং কোর আই ৩। এই সিপিইউ সিরিজে আই৭ এর মতো রায়জেন ৭ শীর্ষ মানের প্রসেসর এবং আবারো আই৭ এর মতো রায়জেন ৭ এ অনেক সিপিইউ অপশন (মডেল) থাকবে, যেখান থেকে আপনার পছন্দেরটি কিনতে পারবেন। বর্তমানে রায়জেন ৭ এর তিনটি মডেল রয়েছে; ১৭০০, ১৭০০এক্স, এবং ১৮০০এক্স।

এতে সবচাইতে মজার ব্যাপার হলো, এই তিনটি প্রসেসরই ৮কোর এবং ১৬ থ্রেড বিশিষ্ট প্রসেসর এবং আরো মজার ব্যাপার হচ্ছে এই প্রসেসর গুলো ইনটেলের হাই এন্ড চিপ গুলোর সাথে একই পারফর্মেন্স এবং কিছু ইনটেল প্রসেসরের পারফর্মেন্সকে টেক্কা দিতে সক্ষম, তাও আবার অর্ধেক দামে।

যেমন কথা বলি রায়জেন৭ ১৮০০এক্স নিয়ে; বর্তমানে এটি এএমডি রায়জেন সিরিজের শীর্ষে থাকা সিপিইউ যেটার ক্লক স্পীড ৩.৬ গিগাহার্জ এবং ওভার ক্লকিং করলে ৪.০ গিগাহার্জ পর্যন্ত পাওয়া যাবে এবং এটি কেবল ৯৫ ওয়াট পাওয়ারে চলে। এএমডি এই প্রসেসরকে ইনটেল ৬৯০০কে কোর আই৭ প্রসেসরের সাথে তুলনা করেছে যেটা নিজেও একটি ৮কোর বিশিষ্ট এবং ওভার ক্লকিং এ ৪.০ গিগাহার্জ বিশিষ্ট প্রসেসর। একটি সিঙ্গেল থ্রেড বেঞ্চমার্ক রেজাল্টে দুই প্রসেসরই সমান পারফর্মেন্স দেখিয়েছে কিন্তু একটি মাল্টি থ্রেড বেঞ্চমার্ক রেজাল্টে ১৮০০এক্স সিপিইউ ৬৯০০কে কে ৯% অধিক স্কোরে হারিয়েছে।

ব্যাপার হচ্ছে ইনটেল ৬৯০০কে প্রসেসরের বর্তমান মার্কেট প্রাইজ ৳৮৫,০০০ টাকার মতো কিন্তু এএমডি রায়জেন ৭ ১৮০০এক্স এর দাম ৳৪৩,০০০ টাকা! যেটা ইনটেল থেকে অর্ধেক কিন্তু পারফর্মেন্সে বেশি।

যদিও ইনটেল ৬৯০০কে ইনটেলের শীর্ষ পারফর্মেন্স প্রসেসর নয়, তাদের আরো রয়েছে আই৭ ৬৯৫০এক্স প্রসেসর; যেটা একটি ১০কোর বিশিষ্ট প্রসেসর এবং এটি সহজেই ১৮০০এক্স কে হার মানিয়ে দেবে; কিন্তু আরেকটি কথা জেনে রাখুন, এই প্রসেসরের দাম- ৳১৪০,০০০ টাকা! তাহলে ভেবে দেখুন বেটার পারফর্মেন্সের সাথে ৩গুন কম টাকা দিয়ে এএমডি বেটার কিছু অফার করছে কিনা?

চমৎকৃত হবার আরো কিছু বাকী রয়েছে, চলুন এবার এক ধাপ নিচের রায়জেন ৭ ১৭০০এক্স এর দিকে আলোকপাত করা যাক; এটিও ৮কোর এবং ১৬ থ্রেড বিশিষ্ট প্রসেসর, সাধারনত ৩.৪ গিগাহার্জের উপর কাজ করে এবং বুস্ট করালে ৩.৮ গিগাহার্জ পর্যন্ত কাজ করবে। এএমডি এই প্রসেসরকে আই৭ ৬৮০০কে এর সাথে তুলনা করেছে যার স্পেসিফিকেশনও একই।

এইবারও ১৭০০এক্স, ৬৮০০কে একটি মাল্টি কোর বেঞ্চমার্কে ৩৯% বেশি পারফর্মেন্সে হারিয়েছে এবং মাল্টি থ্রেড মুডেও এটি ইনটেলকে ৪% বেশি পারফর্মেন্সে হারিয়েছে। আর আশ্চর্যজনক ভাবে ১৭০০এক্স এর দাম $৩৯৯ ডলার এবং ইনটেল ৬৮০০কে এর দাম $৪২৫ ডলার।

এএমডি রায়জেন ৭ ১৭০০ আরেকটি মডেলের প্রসেসর যেটা কম পাওয়ার ক্ষয়ের জন্য বিশেষভাবে প্রস্তুতকৃত। এটি ৩.০ গিগাহার্জের উপর কাজ করে এবং বুস্ট করার পরে ৩.৭ গিগাহার্জে কাজ করতে পারবে এবং এটিকে ইনটেল আই৭ ৭৭০০কে এর সাথে তুলনা করা হয়েছে। এবং হ্যাঁ, আবারো এএমডি ইনটেলকে মাল্টি থ্রেড বেঞ্চমার্কে ৪৬% বেশি পারফর্মেন্সে হারিয়েছে , কিন্তু সিঙ্গেল থ্রেড বেঞ্চমার্কে ইনটেল অবশ্যই জিতবে কেনোনা এর বেশি ক্লক স্পীড রয়েছে। কিন্তু দামের দিকে লক্ষ্য করলে সাত খুন মাফ! এখানে এএমডি রায়জেন ৭ ১৭০০ চিপের দাম $৩২৯ ডলার এবং ইনটেল আই৭ ৭৭০০কে এর দাম $৩৫০ ডলার।

রায়জেন ৭

AMD Ryzen CPUCores/ThreadsCacheTDPCoolerBaseTurboXFRPrice
AMD Ryzen 7 1800X8/1620MB95WN/A3.6GHz4.0GHz4.0GHz+$499
AMD Ryzen 7 1700X8/1620MB95WN/A3.4GHz3.8GHz3.8GHz+$399
AMD Ryzen 7 17008/1620MB65WWraith Spire3.0GHz3.7GHzN/A$329

রায়জেন ৫

AMD Ryzen CPU ModelCores/ThreadsBase ClockBoost ClockL3 CacheTDPSocketPrice
Ryzen 5 1600X6/123.6 GHz4.0 GHz16 MB95W-SR3+AM4$259 US
Ryzen 5 Pro 16006/12TBDTBD16 MB95WAM4~$249 US
Ryzen 5 15006/123.2 GHz3.5 GHz16 MB65WAM4$229 US
Ryzen 5 Pro 15006/12TBDTBD16 MB65WAM4~$219 US
Ryzen 5 1400X4/83.5 GHz3.9 GHz8 MB65WAM4$199 US
Ryzen 5 Pro 14004/8TBDTBD8 MB65WAM4~$185 US
Ryzen 5 13004/83.2 GHz3.5 GHz8 MB65WAM4$175 US
Ryzen 5 Pro 13004/8TBDTBD8 MB65WAM4~$165 US

রায়জেন ৩

AMD Ryzen CPU ModelCores/ThreadsBase ClockBoost ClockL3 CacheTDPSocketPrice
Ryzen 3 1200X4/43.4 GHz3.8 GHz8 MB65WAM4$149 US
Ryzen 3 Pro 12004/4TBDTBD8 MB65WAM4~$139 US
Ryzen 3 11004/43.2 GHz3.5 GHz8 MB65WAM4$129 US
Ryzen 3 Pro 11004/4TBDTBD8 MB65WAM4~$119 US

পয়েন্ট?

তো এতক্ষণের আলোচনার পয়েন্ট কি? আসলে এএমডি বা আমি এই আর্টিকেলে কি বোঝাতে চাচ্ছি? দেখুন এতোদিন পর্যন্ত এএমডি প্রসেসর, সিপিইউ, জিপিইউ এগুলোকে বাজেট চিপ বলে জেনে এসেছি, অর্থাৎ আপনি যদি কম বাজেটের মধ্যে ভালো কম্পিউটার পেতে চান তবে এএমডি একটি ভালো কোম্পানি। কিন্তু যখন প্রশ্ন আসে, “বেস্ট কম্পিউটার” তৈরি করার, সাধারনত আমরা ইনটেলের দিকে এগিয়ে যাই। আর ইনটেল সেই কথা ভালো করেই জানে, “তারা বেস্ট” —আর এই জন্যই হয়তো তাদের চিপের জন্য অত্যন্ত বেশি টাকা চার্জ করে।

কিন্তু আমি মনে করি বর্তমানে এএমডি রায়জেন প্রসেসর সিরিজ বাজারে নিয়ে এসে ইনটেলের সাথে যুদ্ধে নেমে পড়েছে এবং বাজারকে পরিবর্তন করতে সক্ষম হবে। চিন্তা করে দেখুন, আপনি যদি হাজার ডলারের জিনিস ৫০০ ডলারে পেয়ে যান এবং একই পারফর্মেন্স পান তবে কে অঝথা হাজার ডলার খরচ করতে চাইবে? হ্যাঁ, আমি ইনটেলকে পছন্দ করি, কিন্তু ব্যাটারা প্রচণ্ড বেশি চার্জ করে, তবে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করার কিছু নেই—কেনোনা তারা বেস্ট আর বেস্টরা একটু বেশি টাকা ডিম্যান্ড করে।

আর আমি এটা জেনে সত্যিই অনেক আনন্দিত, এএমডি অবশেষে কিছু দেখিয়ে দিল। ইনটেল বনাম এএমডির যুদ্ধে কে বিজয়ী হবে এটা এখন থেকেই বলে দেওয়া সম্ভব। বিজয়ী হবে, “আমরা” সকল ক্রেতারা। আপনারা নিশ্চয় ছোট বেলায় একটি প্রবাদ বাক্য শুনে থাকবেন, “যখন দুই পক্ষ লড়ায় করে তখন লাভবান হয় তৃতীয় পক্ষ”।

চিন্তা করে দেখুন ইনটেল নতুন সিপিইউ বাজারে নিয়ে এসেই আকাশ ছোঁয়া দামে বিক্রি করতে আরম্ভ করে, আর তারা সফলভাবে বিক্রিও করে কেনোনা মার্কেটে তাদের টেক্কা দেওয়ার কেউ নেই। কিন্তু এখন আরেকটি কোম্পানি চলে আসলো এবং অর্ধেক দামে একই বা বেশি পারফর্মেন্স দেওয়ার ওয়াদা করলো, আর কেউই আর একই পারফর্মেন্স পেতে বেশি টাকা খরচ করতে চাইবে না। এখন ভাবলে দেখা যায়, ইনটেলকে এবার কিছু বিষয়ের উপর ধ্যান রাখতে হবে। হয় তাদের সিপিইউ প্রাইস কমাতে হবে আর প্রাইস না কমালে ঐ প্রাইসেই আরো বেটার পারফর্মেন্স অফার করতে হবে।

ভবিষ্যৎ?

ইনটেল এবং এএমডির যুদ্ধে আমরা ভোক্তারা যে লাভবান হতে চলেছি এতে কোন সন্দেহ নেই তবে ব্যাপারটিকে আরেকভাবে দেখার প্রয়োজনীয়তা রয়েছে, কম্পিউটার প্রস্তুতকারী কোম্পানি গুলো দিক থেকে। ইনটেল শুধু তার ভোক্তাদের নয় বরং কম্পিউটার প্রস্তুতকারী কোম্পানিদের কাছেও বহুল জনপ্রিয় একটি কোম্পানি। বেশিরভাগ বাজেট এবং হাই এন্ড কম্পিউটার/ল্যাপটপ প্রস্তুতকারী কোম্পানি তাদের প্রোডাক্টে ইনটেল চিপ ব্যবহার করতে পছন্দ করে। কিন্তু এএমডির এই রিলিজের পরে কি ঘটবে?

নিঃসন্দেহে তারা চিন্তা করে দেখবে তাদের কম্পিউটারের কোন পারফর্মেন্স পরিবর্তন না করে তাদের প্রফিটকে আরো বাড়ানো সম্ভব হবে জাস্ট ইনটেল থেকে এএমডিতে চলে গিয়ে। এটা হওয়াটাই সত্য, আর ইনটেলের জন্য এটি একটি দুঃস্বপ্ন হয়ে উঠতে পারে।

আপনাকে বা যেকোনো মধ্যম কম্পিউটার ব্যবহারকারীকে যদি জিজ্ঞেস করা হয়, “কোনটি সর্ব শীর্ষ পারফর্মেন্স দেওয়া কম্পিউটার চিপ?” এক বাক্যে সবাই হয়তো বলে উঠবে, “ইনটেল কোর আই৭” —যদিও এটি বলার আগে আপনি কোন স্পেসিফিকেশন বর্ণনা দেওয়া জরুরী মনে করবেন না। ইনটেলের এই ট্রেন্ডের কারনেই হয়তো এএমডি রায়জেন চিপ সিরিজে একই নামের ধারা ব্যবহার করা হয়েছে, রায়জেন ৭, ৫, ৩। আর এই নাম্বার গুলো দিকে দেখলে সহজেই বোঝা সম্ভব কোনটির পরে কার অবস্থান।

এই যুদ্ধে টিকে থাকতে চাইলে ইনটেলকে অবশ্যই নতুন কিছু ভাবতে হবে। আগেই বলেছি হয় এদের দাম কমাতে হবে অথবা পারফর্মেন্স বাড়াতে হবে। কেনোনা আমি নিশ্চিত একই পারফর্মেন্সে কেউই দ্বিগুণ টাকা খরচ করবে না, আর এএমডি তাদের নতুন চিপ সিরিজে সহজেই সফলতা পেয়ে যাবে। এখন আপনি চিন্তা করতে পারেন, কম দামের সিপিইউ দিয়ে হয়তো ভালো পারফর্মেন্স পাচ্ছি, কিন্তু কোম্পানি এতো কম দাম কীভাবে অফার করছে এবং সার্ভিস কেমন পাওয়া যাবে?

আপনার প্রশ্ন গুলো ঠিক আছে! কিন্তু একবার ভেবে দেখুন, বর্তমানে আপনি কি কম্পিউটার ব্যবহার করছেন? আপনার কম্পিউটারটি যদি পুরাতন হয়ে থাকে, তবে কি আপনাকে সেই আপগ্রেড করা থাকে আটকিয়ে রেখেছে? উত্তরটি অবশ্যই “দাম” বেশিরভাগ মানুষের ক্ষেত্রে। কিন্তু এবার চিন্তা করে দেখুন আপনি সম্পূর্ণ নতুন কম্পিউটার বিল্ড করার কথা ভাবছেন যেটাতে হাই এন্ড গেমিং করতে পারবেন এবং সবকিছুই মাক্স পারফর্মেন্সে ব্যবহার করতে পারবেন, এবং মজার ব্যাপার হলো হাজার ডলার খরচ না করে কয়েক শত ডলারেই আপনার কাজ হয়ে যাবে, শুনতে অসাধারণ নয় কি?

প্রসেসরের দাম যদি কমে যায়, তবে অবশ্যই মানুষ তাদের কম্পিউটার প্রায় প্রায়ই আপগ্রেড করাবেন। সাধারন ইকনমিক্স অনুসারে কোন প্রোডাক্টের দাম কমে গেলে তার চাহিদা বেড়ে যায়, আর এটা সাধারন ব্যাপার। দাম কম হলেও কোম্পানি অনেক ভালো মুনাফা কামাতে পারবে কেনোনা তারা অনেক বেশি বিক্রি করবে। আশা করছি আপনি আমার পয়েন্ট গুলো পরিষ্কারভাবে বুঝতে সক্ষম হয়েছেন।

শেষ কথা

এএমডি রায়জেন প্রসেসরের তাদের জন্য সত্যিই খুব ভালো হতে পারে যারা কম দামে হাই এন্ড পিসি বিল্ড করার কথা ভাবছেন। কম দামে অনেক ভালো কম্পিউটার বিল্ড করা সম্ভব হবে যেটা আগে কল্পনা করা যেতো না।

তো আপনি কি সেই ব্যক্তি যিনি দামের জন্য কম্পিউটার আপগ্রেড করতে পারছেন না নাকি আপনার সিপিইউ পারফর্মেন্সের সাথে কোন যায় আসে না, কম্পিউটার অন হলেই হলো! —সবকিছু আমাদের নিচে কমেন্ট করে জানান।

আর হ্যাঁ, ইন্টেল ও এএমডি প্রসেসর গুলোর বর্তমান দামের তালিকা এখানে চেক করতে পারেন!



WiREBD এখন ইউটিউবে, নিয়মিত টেক/বিজ্ঞান/লাইফ স্টাইল বিষয়ক ভিডিও গুলো পেতে WiREBD ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুণ! জাস্ট, youtube.com/wirebd — এই লিংকে চলে যান এবং সাবস্ক্রাইব বাটনটি হিট করুণ!

Images: WiREBD

তাহমিদ বোরহান
প্রযুক্তির জটিল টার্মগুলো কি আপনাকে বিভ্রান্ত করছে? কিছুতেই কি আপনার মস্তিষ্কে পাল্লা পড়ছে না? তাহলে বন্ধু, আপনি এবার সঠিক জায়গায় এসেছেন—কেনোনা এখানে আমি প্রযুক্তির সকল জটিল বিষয় গুলো ভাঙ্গিয়ে সহজ পানির মতো উপস্থাপন করার চেষ্টা করি, যাতে সকলে সহজেই সকল টেক টার্ম গুলো বুঝতে পারে।