ডুয়াল ওএস ফোন? হ্যাঁ, হুয়াওয়ে পি৪০ দুনিয়ার প্রথম ডুয়াল ওএস ফোন হতে পারে!

ডুয়াল ওএস ফোন? হ্যাঁ, হুয়াওয়ে পি৪০ দুনিয়ার প্রথম ডুয়াল ওএস ফোন হতে পারে!

পিসিতে ডুয়াল ওএস ইউজ করা খুব স্বাভাবিক ব্যাপার, অনেকেই এক পিসিতে ডুয়াল বুটে লিনাক্স আর উইন্ডোজ ইউজ করে। কিন্তু মোবাইলেও একসাথে দুই অপারেটিং সিস্টেম ইউজ করার যুগে এবার মনে হচ্ছে পা রেখেই ফেললাম! হ্যাঁ, একদম ঠিক শুনছেন! হুয়াওয়ের আর ইউএস এর যুদ্ধ সম্পর্কে জানেন না এমনটা হয়তো কেউ নেই, যদি পেছনের কয়েকমাস কোন গুহায় ঢুকে না থাকেন।

যেহেতু ব্যান অনুসারে সামনে হয়তো হুয়াওয়ে আর গুগলের অ্যান্ড্রয়েড ইউজ করতে পারবে না, তাই তাদের নতুন অল্টার্নেটিভ কিছু খুঁজতে হবে। হুয়াওয়ের কাছে অলরেডি তাদের বাড়িতে তৈরি করা দ্যা হারমনি ওএস (The HarmonyOS) রয়েছে। যদিও জানা নেই এই ওএস স্মার্টফোনে কবে থেকে ইউজ করতে শুরু করবে হুয়াওয়ে, কিন্তু নতুন এক ভিডিও অনুসারে এটা হয়তো দ্রুতই ঘটতে চলেছে।

TechZG নামক এক ইউটিউব চ্যানেলে এক ভিডিও পাবলিশ করা হয়েছে, যেখানে বলা হয়েছে হুয়াওয়ের আপকামিং পি৪০ ডিভাইজে যেটা ২০২০ এর মার্চের দিকে আসবে, এতে হারমনি ওএস দেখতে পাওয়া যাবে, কিন্তু এতেই শেষ নয়, এতে গুগলের লেটেস্ট অ্যান্ড্রয়েড ১০ ও মজুদ থাকবে। এর মানে সম্ভবত হুয়াওয়ে পি৪০ দুনিয়ার প্রথম স্মার্টফোন হতে চলেছে যেটা ডুয়াল ওএস সাপোর্ট করবে।

একসাথে ফোনে হারমনি ওএস ও অ্যান্ড্রয়েড ওএস দুইটাই থাকবে, ইউজার যার যেটার মতো করে ইউজ করতে পারবে। আপনি চাইলে নতুন ওএস ট্রায় করার জন্য হারমনি ওএস ইউজ করতে পারেন, বা ট্র্যাডিশনাল অ্যান্ড্রয়েডেই পরে থাকতে পারেন, কিন্তু এতে গুগলের সার্ভিস গুলো থাকবে না। তবে একটি জিনিষ মাথায় রাখতে হবে, আপনি যে ওএস এ ডিভাইজ বুট করবেন সেটাতেই পরে থাকতে হবে আপনি আলাদা ওএস ইউজ করতে পারবেন না। মানে ফোন রিসেট করলে হয়তো আলাদা অপারেটিং সিস্টেম আবার পছন্দ করতে পারবেন, কিন্তু একবার চয়েজ করার পরে অন্য অপারেটিং সিস্টেমে যেতে পারবেন না। যাইহোক, আরো পরিষ্কার হওয়ার জন্য নিচের ভিডিওটি দেখতে পারেন;

দেখুন, হুয়াওয়ের EMUI আর HarmonyOS দুটো কিন্তু সম্পূর্ণ আলাদা জিনিষ, EMUI হচ্ছে অ্যান্ড্রয়েডের উপরে হুয়াওয়ের জাস্ট একটি কাস্টম স্কিন, অপরদিকে HarmonyOS হচ্ছে সম্পূর্ণ আলাদা একটি অপারেটিং সিস্টেম। তো হুয়াওয়ে কেন ডুয়াল বুট সিস্টেমের সাথে ফোন রিলিজ করবে? দেখুন, এমনিতেই হুয়াওয়ের অ্যান্ড্রয়েড ইউজ করতে সমস্যা হবে, যেহেতু গুগল সার্ভিসেস তারা ইউজ করতে পারবে না।

কিন্তু অপরদিকে সম্পূর্ণ নতুন অপারেটিং সিস্টেমে মানুষ হয়তো খুব বেশি পজিটিভ নেবে না। তাই হুয়াওয়ে একসাথে নতুন অপারেটিং সিস্টেম ও ইউজ করতে দেবে আর না চাইলে অ্যান্ড্রয়েড ইউজ করার সুবিধা তো থাকবেই। এভাবে হুয়াওয়ের ফোন গুলো মার্কেটে টিকে থাকবে এবং নতুন ইকো-সিস্টেম তৈরি করার জন্য হুয়াওয়ে যথেষ্ট সময় ও হয়তো হাতে পেয়ে যাবে।



WiREBD এখন ইউটিউবে, নিয়মিত টেক/বিজ্ঞান/লাইফ স্টাইল বিষয়ক ভিডিও গুলো পেতে WiREBD ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুণ! জাস্ট, youtube.com/wirebd — এই লিংকে চলে যান এবং সাবস্ক্রাইব বাটনটি হিট করুণ!

Image: Shutterstock.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *