ওয়ার্ডপ্রেস নিয়ে ৫টি ভুল ধারণা, যেগুলো এক্ষুনি দূর করা প্রয়োজন!

ওয়ার্ডপ্রেস নিয়ে ৫টি ভুল ধারণা, যেগুলো এক্ষুনি দূর করা প্রয়োজন!

যেটা যতোবেশি জনপ্রিয় হবে বিপরীতে সেটার ততোবেশি ভুল ধারণা ও তৈরি হবে এটা একেবারেই স্বাভাবিক, ওয়ার্ডপ্রেস নিজেও তার ব্যাতিক্রম নয়। তবে ওয়ার্ডপ্রেস এর মতো টপিকটা একটু বেশি গুরুত্বপূর্ণ, এতে ভুল ধারণা জন্মালে ইউজাররা বিভ্রান্তির মধ্যে পরবে এতে তারা ভুল প্ল্যাটফর্মে চলে যেতে পারে। এই আর্টিকেলে ওয়ার্ডপ্রেস নিয়ে প্রচলিত এমনই কিছু ভুল ধারণা মাটি খুঁড়ে বের করার চেষ্টা করবো, এতে আপনি পরিষ্কার ধারণা পেতে পারবেন, ওয়ার্ডপ্রেস আপনার জন্য বা নির্দিষ্ট কাজের জন্য কতোটা উপযোগী!

এখানে ওয়ার্ডপ্রেস বলতে সেলফ হোস্টেড ওয়ার্ডপ্রেস নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে, অনেকেরই WordPress.org এবং WordPress.com এর মধ্যে কনফিউশন রয়েছে, তারা পূর্বে এই আর্টিকেলটি পড়ে নেবেন!


ওয়ার্ডপ্রেস জাস্ট একটি ব্লগিং টুল

এক সময়ের অনেক জনপ্রিয় একটি ভুল ধারণা হচ্ছে, ওয়ার্ডপ্রেস কেবল একটি ব্লগিং টুল, এখনো অনেকেই এই ধারণাটি পুষে রেখেছেন। আপনি ও যদি এই ধারণা বাঁচিয়ে রাখার একজন হোন, তো ঝেড়ে ফেলুন। বোল্ড অক্ষরে লিখলাম, “না ওয়ার্ডপ্রেস শুধুই আর ব্লগিং টুল নেই” — ওয়ার্ডপ্রেস ইউজ করে ভার্চুয়ালি যেকোনো ওয়েবসাইট বানানো যেতে পারে; হতে পারে সেটা ই-কমার্স ওয়েবসাইট, হতে পারে কোন কমিউনিটি সাইট, বা হতে পারে আপনার বিজনেস ওয়েবসাইট। এক কথায়, আপনার কল্পনায় যেরকম আসতে পারে, ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে ঠিক সেই রকমের ওয়েবসাইটই বানানো সম্ভব!

ওয়ার্ডপ্রেস বর্তমানে একটি পাওয়ারফুল ওয়েবসাইট বিল্ডার, আর ভুলে গেলে চলবে না, এই আর্টিকেল লেখার সময় সম্পূর্ণ ইন্টারনেটের প্রায় ৩১% ওয়েবসাইট ওয়ার্ডপ্রেস দ্বারা পরিচালিত। তো এখন নিজেই বোঝেন, এটা কতোটা পাওয়ারফুল ও বিশ্বস্ত!

আপনি জানেন কি? ওয়ার্ডপ্রেসের জনপ্রিয় উ-কমার্স প্লাগইন দুনিয়ার সবচাইতে বড় ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম! এটা আলাদা ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম যেমন- শপিফাই বা ম্যাজেন্টো থেকেও অনেক বড়। তো ছোট বিজনেস ওয়েবসাইট থেকে শুরু করে, বড় বিজনেস ওয়েবসাইট, মেম্বারশিপ ওয়েবসাইট, ব্লগ, ফোরাম, সোশ্যাল মিডিয়া ওয়েবসাইট, অনলাইন শপ — সবকিছুই ওয়ার্ডপ্রেস দ্বারা নির্মাণ করা সম্ভব। আপনার শুধু সঠিক প্লাগইনস অ্যান্ড থিমের দরকার পরবে!

ওয়ার্ডপ্রেস ফ্রী, তাই এটা নিশ্চয় লো কোয়ালিটি

বাংলায় একটা প্রবাদ চালু রয়েছে, অনেকেই মনে করেন, “এক সস্তার তিন অবস্থা” — অবশ্য তাদের ভুল বলাও যায়না, সত্যিই সস্তা বা ফ্রী জিনিষ গুলো তেমন ভালো হয় না, কিন্তু ওয়ার্ডপ্রেসের ক্ষেত্রে এটা মোটেও প্রযোজ্য নয়। অনেকেই নিজেদের বড় বিজনেস ওয়েবসাইট ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে বানাতে চাননা, বরং লাখো টাকা খরচ করে কাস্টম সিএমএস ইউজ করেন। হয়তো তারা মনে মনে ভাবেন, ফ্রী টুল দিয়ে ওয়েবসাইট বানালে হয়তো প্রফেশনাল মনে হবে না।

পরিষ্কার করে বলে রাখছি, আপনি যদি ওয়ার্ডপ্রেসকে লো কোয়ালিটি আর অনিরাপদ ভেবে থাকেন তাহলে আপনি এখনো মায়ের গর্ভে। অনেকেই প্রশ্ন করবেন, ওয়ার্ডপ্রেস এতোই প্রিমিয়াম জিনিষ, তো ডেভেলপার কেন এটাকে বিনামূল্যে দিয়ে দিচ্ছে? — দেখুন, ওয়ার্ডপ্রেস কোন সিঙ্গেল ডেভেলপার দ্বারা নির্মিত নয়, বরং সম্পূর্ণ দুনিয়া জুড়ে লাখো ডেভেলপার দ্বারা ওয়ার্ডপ্রেস নির্মিত। এর কোড সম্পূর্ণ ওপেন সোর্স, মানে যে কেউ চাইলে এর কোডের কোয়ালিটি টেস্ট করতে পারেন!

ওয়ার্ডপ্রেস তৈরিতে ব্যবহৃত কোড পাঁথরের মতোই মজবুত, ডেভেলপার ফ্রেন্ডলি, সকলের জন্য উন্মুক্ত, এবং ফ্রী! অনেকেই বলবেন, এর কোড ওপেন সোর্স, মানে যেকোনো হ্যাকার এর কোড স্টাডি করতে পারবে তারপরে ট্রুটি খুঁজে বের করে হ্যাক অ্যাটাক চালাতে পারবে। এক্ষেত্রে কিছু জিনিষ আপনাকে মনে রাখতে হবে;

শুধু ওয়ার্ডপ্রেস নয় দুনিয়ার যেকোনো ওয়েবসাইটের উপরে ম্যালওয়্যার বা ব্রুটফোর্স অ্যাটাক চলতে পারে। আর এর জন্য ওয়ার্ডপ্রেসের অনেক সিকিউরিটি প্লাগইন ও তৃতীয়পক্ষ ফায়ারওয়াল সার্ভিস রয়েছে। যারা আপনার ওয়েবসাইটের নানান অ্যাটাক মনিটর করবে সর্বদা। আপনি ওয়ার্ডপ্রেসে সাইট রান করান বা নাই করান, আপনাকে তো আলাদা সিকিউরিটি ব্যাবস্থা রাখতেই হবে, যেমন- ক্লাউডফ্লেয়ার বা সিকিউরি সার্ভিস ইউজ করা!

আরেকদিকে যারা বিজনেস ওয়েবসাইটে ওয়ার্ডপ্রেস ইউজ করতে চান না, নিজেদের আরো বেশি প্রফেশনাল ফিল করানোর জন্য, বলে রাখছি; নানান ইন্টারন্যাশনাল ব্র্যান্ড যেমন- CNN, Microsoft, Adobe, The New York Times — এরা নিজেরাও ওয়ার্ডপ্রেস ইউজ করতে দ্বিধা বোধ করে না। তো বাকিটা আপনি নিজেই ভেবে দেখুন এবার, ওয়ার্ডপ্রেস কতোটা লো নাকি হাই কোয়ালিটির জিনিষ!

ওয়ার্ডপ্রেস নতুনদের জন্য

ওয়ার্ডপ্রেস অনেক সহজ একটি ওয়েবসাইট বিল্ডার, এর জন্য অনেকে মনে করতে পারেন এটা বাচ্চাদের জন্য, মানে যারা কেবল ওয়েবসাইট বিল্ড করতে শিখছেন তাদের জন্য। নিজেকে অনেক বড় মনে করা ডেভেলপাররা অনেকেই ওয়ার্ডপ্রেসকে বিগেনার টুল বলে আখ্যায়িত করে থাকেন। কেনোনা ওয়ার্ডপ্রেস দ্বারা ওয়েবসাইট বানাতে আপনাকে এইচটিএমএল, জাভা স্ক্রিপ্ট, সিএসএস, ইত্যাদি কিছুই শিখতে হয় না।

ব্যাপারটা কিন্তু সম্পূর্ণ এরকম নয়, হ্যাঁ, ওয়ার্ডপ্রেস মারাত্মক পরিমাণে বিগেইনার ফ্রেন্ডলি, কিন্তু পাশাপাশি এটাকে কর্পোরেশন, বিজনেস, এবং ডেভেলপার’রা ইউজ করেন। ওয়ার্ডপ্রেস যেমন বিগেনারদের জন্য স্বর্গরাজ্য, ঠিক তেমনি অ্যাডভান্স লেভেল ইউজারদের জন্যও এতে রয়েছে অনেক কিছু। নতুন ইউজাররা কোন ঝামেলা ছাড়ায় প্রথম ওয়েবসাইট নিজে থেকে তৈরি করতে পারেন, অপরদিকে অ্যাডভান্স ইউজারগন সাইট আরো ফ্লেক্সিবল তৈরি করেন, থিম ও প্লাগইন ডেভেলপ করেন!

সব ওয়ার্ডপ্রেস সাইট দেখতে একই, কোনই পার্থক্য নেই!

অনেকের মতে সকল ওয়ার্ডপ্রেস সাইট দেখতে একই রকমের। ওয়ার্ডপ্রেস সাইটটির ফ্রন্টএন্ড দেখতে কেমন হবে সেটা নির্ভর করে সাইটের থিমের উপরে। ওয়ার্ডপ্রেসের জন্য অনেক ফ্রী থিম রয়েছে, এদের মধ্যে কিছু ফ্রী থিম মারাত্মক জনপ্রিয় আর সেই ধরণের কোন থিম ইউজ করলে, হ্যাঁ আপনার সাইটের ডিজাইন বাকিদের মতোই দেখতে লাগতে পারে।

কিন্তু ভুলে গেলে চলবে না, ওয়ার্ডপ্রেসের প্রিমিয়াম থিমের বিশাল ভান্ডার ও রয়েছে। অনেক প্রিমিয়াম থিম শপ StudioPress, CSSIgniter, Themify, Themeforest — এদের কাছে যেকোনো টাইপের ওয়েবসাইটের জন্য অসাধারণ থিম কালেকশন রয়েছে। প্রত্যেকটি থিম নিজস্ব কাস্টমাইজেশনের সাথে আসে, এতে একই থিম ইউজ করার পরেও আপনার থিমটিকে আলাদা ফ্লেভার যুক্ত করতে পারবেন।

তাছাড়া ওয়ার্ডপ্রেসের জন্য অনেক ভিজুয়াল পেজ বিল্ডার প্লাগইন রয়েছে, যেগুলো ইউজ করে সম্পূর্ণ নিজের ইচ্ছা মতো আপনার সাইট ডিজাইন করতে পারবেন, আর মজার ব্যাপার হচ্ছে এর জন্য আপনাকে এক লাইন ও কোড জানতে হবে না!

ওয়ার্ডপ্রেস যদি হঠাৎ করে গায়েব হয়ে যায়?

অনেকেই ওয়ার্ডপ্রেসের ফিউচার নিয়ে আশঙ্কিত, তারা ওপেন সোর্স সফটওয়্যার কিভাবে কাজ করে এই ব্যাপারে আইডিয়া রাখেন না, কিন্তু মনে মনে ভয় পুষে রেখেছেন, যদি ওয়ার্ডপ্রেস হঠাৎ করে উধাও হয়ে যায় কোন দিন? — ওয়ার্ডপ্রেস কোন সিঙ্গেল ডেভেলপার দ্বারা নির্মিত নয়, এটা সম্পূর্ণ দুনিয়ার বিশাল এক প্যাশনেট ডেভেলপার গ্রুপ দ্বারা নির্মিত। এর ট্রেডমার্ক প্রটেক্টেড এবং ওয়ার্ডপ্রেস ফাউন্ডেশন নামক এক নন-প্রফিট অর্গানাইজেশন হচ্ছে এর মালিক।

হাজারো এবং লাখো কোম্পানি রয়েছে যারা ওয়ার্ডপ্রেস রিলেটেড প্রোডাক্ট সেল করে। অনেক কোম্পানি সরাসরি ওয়ার্ডপ্রেস কমিউনিটির সাথে সম্পর্ক যুক্ত। ওয়ার্ডপ্রেস কোন এক কোম্পানি বা পারসন বা গ্রুপের উপরে নির্ভর করেনা যে হঠাৎ করে এটা গায়েব হয়ে যাবে কোন এক দিন! এটা গোটা দুনিয়ার লাখো, কোটি মানুষের উপরে নির্ভরশীল।

ওয়ার্ডপ্রেস নিজে থেকে ফ্রী প্ল্যাটফর্ম হলেও, প্রত্যেক মাসে এটা থেকে নানান কোম্পানি মিলিয়ন ও বিলিয়ন ইউএস ডলার রেভিনিউ জেনারেট করে। তো কেউ নিজের সোনার ডিম পারা হাঁসকে কেন হারিয়ে যেতে দেবে বলুন। যদি চিন্তা করেন আলাদা প্ল্যাটফর্মের কথা, যেমন- গুগল ব্লগার — হ্যাঁ, গুগল যেকোনো মুহূর্তে চাইলে এটাকে বন্ধ করে দিতে পারে। কিন্তু ওয়ার্ডপ্রেসে এমন কোনই ঝুঁকি নেই!


আশা করছি এই আর্টিকেল থেকে ওয়ার্ডপ্রেস সম্পর্কে কমন ভুল ধারণা গুলো হয়তো দূর হবে। আপনি এই আর্টিকেল থেকে হয়তো ওয়ার্ডপ্রেসের কিছু ট্রু ক্ষমতা সম্পর্কে অবগত হয়েছেন। আপনি যদি এখনো ওয়ার্ডপ্রেস ইউজ করতে আগ্রহী না হয়ে থাকেন, সেক্ষেত্রে আমাদের এই আর্টিকেলটি পড়তে পারেন; যে ৫টি গুরুত্বপূর্ণ কারণে আপনার ওয়ার্ডপ্রেসে ওয়েবসাইট তৈরি করা উচিৎ!


WiREBD এখন ইউটিউবে, নিয়মিত টেক/বিজ্ঞান/লাইফ স্টাইল বিষয়ক ভিডিও গুলো পেতে WiREBD ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুণ! জাস্ট, youtube.com/wirebd — এই লিংকে চলে যান এবং সাবস্ক্রাইব বাটনটি হিট করুণ!

Images: Shutterstock.com

তাহমিদ বোরহান
প্রযুক্তির জটিল টার্মগুলো কি আপনাকে বিভ্রান্ত করছে? কিছুতেই কি আপনার মস্তিষ্কে পাল্লা পড়ছে না? তাহলে বন্ধু, আপনি এবার সঠিক জায়গায় এসেছেন—কেনোনা এখানে আমি প্রযুক্তির সকল জটিল বিষয় গুলো ভাঙ্গিয়ে সহজ পানির মতো উপস্থাপন করার চেষ্টা করি, যাতে সকলে সহজেই সকল টেক টার্ম গুলো বুঝতে পারে।