বর্তমান তারিখ:21 September, 2019

অ্যালিটা: ব্যাটেল অ্যাঞ্জেল (Alita: Battle Angel) | দ্য বেস্ট একশন মুভি অব দ্য ইয়ার? [রিভিউ]

অ্যালিটা: ব্যাটেল অ্যাঞ্জেল

গেল বছরে একদিন ইউটিউবে হটাত করে একটা মুভির ট্রেইলার নজরে পড়েছিলো। নাম অ্যালিটা – ব্যাটল এঞ্জেল। জেমস ক্যামেরনের মুভি! জেমস ক্যামেরন এই নামটাই যথেস্ট মুভির প্রতি হাইপ তুলে দেওয়ার জন্যে। টাইটানিক দিয়ে হলিউডের কোন মুভিকে আয়ের দিক দিয়ে সর্বপ্রথম ২ বিলিয়নের ঘরে পৌঁছানোর মালিক জেমস ক্যামেরন কিংবদন্তীতে পরিণত হন এভাটার দিয়ে। আয়ের দিক দিয়ে হলিউডে সর্বকালের সেরা মুভির রেকর্ড এই এভাটারের দখলেই আছে!

সেই জেমস ক্যামেরন যখন অ্যালিটা ব্যাটল এঞ্জেল মুভি নিয়ে আসছেন রব উঠলো ইন্টারনেট দুনিয়ায়, তখন অন্য সবার মতো আমি ও দিন গুণছিলাম কবে দেখবো,কবে দেখবো। (যদিও পরে শোনা গেছে জেমস ক্যামেরন এর পরিচালনা বাদ দিয়ে রবার্ট রদ্রিগেজের হাতে ধরিয়ে দিয়ে নিজে এভাটার টু নিয়ে ব্যস্ত হয়ে গেছেন। তবে পরিচালনায় না থাকলেও ছবিটির সাথে জড়িত ছিলেন তিনি।) অবশেষে অপেক্ষার পালা শেষ হলো। কিছুদিন আগেই রিলিজ হলো HD প্রিন্ট। দুইদিন আগেই তাই দেখতে বসে গেলাম অ্যালিটা নামের দুধর্ষ যোদ্ধার জার্নি দেখার জন্যে!

মুভির গল্প শুরু হয় ভবিষ্যতে.২৫০০ সালের পোস্ট-এপোক্যালিপ্টিক দুনিয়াতে। মহাযুদ্ধের কারনে দুনিয়ার সব শহর ধ্বংসহয়ে গেছে। টিকে আছে কেবল আয়রন সিটি। এখানেই শেষপর্যন্ত সার্ভাইব করা মানুষ-সাইবর্গ একসাথে মিলেমিশে থাকে। আর এই আয়রন সিটিকে নিয়ন্ত্রন করে জালেম নামের স্কাই সিটি। স্কাই সিটি থেকে নির্বাসিত ড. ইডো একদিন জালেম থেকে নির্গত আস্তাকুড়ে থেকে মিলিটারি সাইবর্গ অ্যালিটার ধ্বংসাবশেষ খুজে পান।এবং তাকে রিপেয়ার করেন নিজের মেয়ের জন্যে বানানো বডি দিয়ে।

সিটি অফ জালেম @আলফাকোডার

জ্ঞান ফেরার পর আলিটা আবিষ্কার করে তার পুর্বর্তী কিছুই মনে নাই। জাস্ট দুটো জিনিস ছাড়া। সে চকোলেট ভালোবাসে আর মারামারির ক্ষমতা তার সহজাত প্রবৃত্তি। যেকোন পরিস্থিতেই সে মারামারি করে রেডি থাকে! এহেন এই অ্যালিটা কে ছিল, তার মধ্যে এত ফাইটিং স্কিলের হেতুটাইবা কি? জালেমের সাথে তার সম্পর্কইবা কি? নিজের আইডেন্টিটি খোজার জন্যে আলিটার মিশনে সঙ্গী হওয়ার জন্যে দেখে ফেলুন মুভিটি!

মুভিটি আগাগোড়াই স্টারকাস্টে ভর্তি। ড. ইডোর ভুমিকায় ক্রিস্টোফ ওয়াল্টজ, ভেক্টরের ভুমিকায় দ্য ব্লাক ডায়মন্ড মার্শাহলেলা আলী, আর জালেম শাসক নোভার ভূমিকায় আছেন ফাইটক্লাব খ্যাত এডওয়ার্ড নর্টন!

মুভির স্টোরি টেলিং ফাস্ট!বলতে গেলে পুরাই উসাইন বোল্ট মত ফাস্ট! এইজন্যেই বোধকরি কিছুকিছু জায়গায় খাঁপছাড়া লেগেছে। বিশেষত রোমান্সের সীন গুলো মনে হয় জোর করে ভরে দেওয়া হয়েছে! এছাড়া ড. ইডোর আলিটার প্রতি যে ডটার সুলভ ইমোশনাল এটাচমেন্ট দেখানো হয়েছে তা আরেকটু নিখুঁত করা যেত বলেই মনে করি।

তবে মুভির সিজিয়াই এবং একশন সীন গুলো এত্ত এত্ত বেশী অসাধারন আর গুজবাম্পস এর অনুভূতি দিচ্ছিলো যে এর জন্যে ন্যারেটিভ এর সাতখুন মাফ করে দেওয়া যায় চোখ বন্ধ করে! বিশেষত সিজিয়াই আর উরুম ধুরুম মারামারির সীন গুলোর জন্যেই মুভিটি বার বার দেখতে ইচ্ছে করতে পারে। আর হ্যা মুভিতে এন্ডিং টানা হয় নি। এখানে শুধু অ্যালিটার আত্বপরিচয় খোজার অংশটাতে ফোকাস করা হয়েছে। আসছে বছর এর সিক্যুয়েল রিলিজ হবে। ধামাকার যে আরো অনেক বাকী আছে!

সাইফাই আর একশন প্রেমি হলে আপনার জন্যে ২ঘন্টার একটা উত্তম পরিবেশন হবে জাপানি মাংগার রুপালী পর্দার চিত্রায়ন “অ্যালিটা – ব্যাটল এঞ্জেল”!

হ্যাপি ওয়াচিং!

পুনশ্চঃ বাংলা সাবটাইটেল আছে! HD রেজুলেশনও টরেন্টে এভেলেইবল!



WiREBD এখন ইউটিউবে, নিয়মিত টেক/বিজ্ঞান/লাইফ স্টাইল বিষয়ক ভিডিও গুলো পেতে WiREBD ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুণ! জাস্ট, youtube.com/wirebd — এই লিংকে চলে যান এবং সাবস্ক্রাইব বাটনটি হিট করুণ!

Feature Image:  wall.alphacoders.com

মুভি,টিভি-সিরিজ লাভার! প্রচন্ড অলস প্রকৃতির এই লোক ঠিক করেছেন তিনি সারাজীবন মুভি আর সিরিজ দেখেই কাটিয়ে দিবেন!

6 Comments

  1. জাহিদুর রহমান Reply

    স্কাই সিটিতে কি আছে সেটা দেথানো হয় নি

  2. জাহিদুর রহমান Reply

    স্কাই সিটিতে কি আছে সেটা দেথানো হয় নি.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *