উইন্ডোজ কে আরো মডার্ন অপারেটিং সিস্টেমে পরিণত করার পরিকল্পনা মাইক্রোসফটের!

উইন্ডোজ কে আরো মডার্ন অপারেটিং সিস্টেমে পরিণত করার পরিকল্পনা মাইক্রোসফটের!

উইন্ডোজ ওএস ধীরেধীরে যেন ক্রোম ওএস এর মতো হয়ে যাচ্ছে! — কয়েকদিন যাবত এক গুজন শোনা যাচ্ছিলো, মাইক্রোসফট নাকি নতুন এক উইন্ডোজ লাইট ভার্সন নিয়ে কাজ করছে। যদিও মাইক্রোসফট সেটা অফিশিয়ালভাবে স্বীকার করেনি, কিন্তু তারা উইন্ডোজকে আরো মডার্ন করার লক্ষে কাজ করছে। আজকের Computex স্টেজ থেকে উইন্ডোজের সামনের পদক্ষেপ গুলোর সম্পর্কে অনেকটা ধারণা পাওয়া গেছে।

যদিও তারা লাইট উইন্ডোজ নিয়ে কোন আলোচনা করেনি, তবে উইন্ডোজ আপডেট নিয়ে তারা এবার সিরিয়াসলি কাজ করছে। কয়েক বছরে যদিও উইন্ডোজ আপডেটে তারা নানান পরিবর্তন আনার চেষ্টা করেছে, কিন্তু সামনে সেটা আরো আদর্শ হবে, আপডেট সিস্টেম সম্পূর্ণ ব্যাকগ্রাউন্ডে কাজ করবে, এতে ইউজারদের কোন ঝামেলা পোহাতে হবে না।

মাইক্রোসফট অনুসারে, এই মডার্ন ওএস আরো সিকিউর হবে, যেটা অনেকটা ক্লাউড নির্ভর হবে অ্যাপ্লিকেশন গুলো ক্লাউডে রান করবে, এতে ওএস বেশি সিকিউর হবে। সাথে তারা এই মডার্ন ওএস এর সাথে ৫জি সাপোর্ট যুক্ত করতে চলেছে।

তাদের এই ব্লগ পোস্টে নতুন মডার্ন ওএস নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে, কিন্তু সেখানে মডার্ন ওএস কে উইন্ডোজ হিসেবে টার্গেট করেনি। মানে হতে পারে সেটা সম্পূর্ণ আলাদা একটি ওএস, তবে তাদের মডার্ন ওএস এর অনেক ফিচারই বর্তমান উইন্ডোজ এ মজুদ রয়েছে। তবে মাইক্রোসফট ফোকাস দিয়ে বলেছে, সামনের মডার্ন ডিভাইজ গুলোর জন্য যে মডার্ন ওএস আসবে সেটা বেশিরভাগ ক্লাউড নির্ভর হবে, আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স কাজে লাগিয়ে কাজ করবে।

এটা নিশ্চিত, মাইক্রোসফট নতুন কিছু নিয়ে কাজ করছে, হোক সেটা উইন্ডোজ লাইট ভার্সন বা আলাদা কোন ওএস — তবে সেই মডার্ন ওএস এ থাকবে দক্ষ ব্যাকগ্রাউন্ড আপডেট, নতুন সিকিউরিটি ফিচার, ৪জি ও ৫জি সাপোর্ট এবং টেকসই কর্মক্ষমতা! সাথে অপারেটিং সিস্টেমটি ক্লাউড নির্ভর হবে এবং আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স সাপোর্টেড হবে।

নতুন এই ওএসটি সকল ডিভাইজের সাথে ক্লাউড ইউজ করে কানেক্টেড থাকবে এবং একে অপরের মাঝে ডাটা সিঙ্ক করবে। যেমনটা বর্তমান উইন্ডোজ ১০ ও মোবাইল একসাথে কানেক্ট থাকতে পারে, দুই ডিভাইজ একে অপরের সাথে নোটিফিকেশন গুলো শেয়ার করতে পারে।

মাইক্রোসফট এর এই নতুন অপারেটিং সিস্টেম যেটাকে তারা মডার্ন ওএস বলছে বা উইন্ডোজ লাইট, যাই হোক না কেন, সেটাকে ব্যাস্তবে দেখতে একটু দেরি হতে পারে। যদি তারা ক্লাউড এবং লাইট পারফর্মেন্স নিয়ে কাজ করে হতে পারে ক্রোমিয়াম নির্ভর ইঞ্জিনের দিকে মুভ করতে পারে, কেননা তারা তাদের ইন্টারনেট ব্রাউজারকে অলরেডি ক্রোমিয়ামে শিফট করে দিয়েছে। যদিও পরিষ্কার করে কোন তথ্য পাওয়া যায়নি, তবে আপাতত জানা গেলো সামনের উইন্ডোজ কি রকমের হতে পারে। লেটেস্ট কোন আপডেট পেলে ওয়্যারবিডিতে পাবলিশ করা হবে।



WiREBD এখন ইউটিউবে, নিয়মিত টেক/বিজ্ঞান/লাইফ স্টাইল বিষয়ক ভিডিও গুলো পেতে WiREBD ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুণ! জাস্ট, youtube.com/wirebd — এই লিংকে চলে যান এবং সাবস্ক্রাইব বাটনটি হিট করুণ!

Image: Shutterstock