বর্তমান তারিখ:18 August, 2019

সর্বাধিক হ্যাক হওয়া পাসওয়ার্ড লিস্ট : আপনি ও এই পাসওয়ার্ড গুলো ইউজ করেন না তো?

সর্বাধিক হ্যাক হওয়া পাসওয়ার্ড লিস্ট : আপনি ও এই পাসওয়ার্ড গুলো ইউজ করেন না তো?

লাখো কোটি ইন্টারনেট ইউজারদের পাসওয়ার্ড হ্যাক হচ্ছে, কেবল সহজ আর সহজেই অনুমান করা যেতে পারে এই রকমের পাসওয়ার্ড ইউজ করার জন্য। আমি ওয়্যারবিডিতে যতগুলো সিকিউরিটি রিলেটেড আর্টিকেল লিখেছি, সব গুলোতেই প্রায় শক্তিশালী পাসওয়ার্ড ব্যবহার করার পরামর্শ দিয়ে থাকি। সাইবার ক্রিমিনাল গন তাক লাগিয়ে বসে রয়েছে কখন আপনার অনলাইন অ্যাকাউন্ট গুলো হ্যাক করবে কখন আপনার ব্যাংক থেকে সব টাকা পয়সা ঝেড়ে মেরে দেবে। আর আপনার ইজি পাসওয়ার্ড ব্যবহার করার মানে, নিজে হাতে ঘরের চাবি চোরের হাতে তুলে দেওয়া।

রিসেন্ট এক গবেষণা থেকে ১ লক্ষ মোস্ট কমন ব্যবহার হওয়া পাসওয়ার্ড লিস্ট প্রকাশিত করা হয়েছে। আর সবচাইতে বেশি ব্যবহৃত পাসওয়ার্ড গুলো দেখে আমার ব্যাক্তিগতভাবে মনে হলো, “শক্তিশালী পাসওয়ার্ড নিয়ে কারোই মাথা ব্যাথা নেই, কেউ তোয়াক্কায় করে না!” ১ লক্ষ মোস্ট কমন ব্যবহার হওয়া পাসওয়ার্ড লিস্টটি বিভিন্য হ্যাক হওয়া এবং ডাটা ব্রিচ থেকে কালেক্ট করা হয়েছে।

শক্তিশালী পাসওয়ার্ড ব্যবহার আপনাকে হ্যাক হওয়া থেকে বাঁচাতে পারে, এমনকি হ্যাকার হয়তো কোন ওয়েবসাইট থেকে ডাটাবেজ ডাউনলোড করে নিয়েছে, কিন্তু ডাটাবেজে পাসওয়ার্ড প্লেইন টেক্সটে থাকে না, এনক্রিপশন করানো থাকে। যদি আপনার পাসওয়ার্ড অনেক শক্তিশালী হয়ে থাকে সেক্ষেত্রে হ্যাকারের কাছে ডাটাবেজ থাকার পরেও আপনার পাসওয়ার্ড হয়তো ক্র্যাক হবে না। আর সহজ পাসওয়ার্ড গুলো ক্র্যাক করতে কয়েক মিনিট বা ঘণ্টার ব্যাপার মাত্র।

সবচাইতে বেশি হ্যাক হওয়া পাসওয়ার্ড গুলো

হ্যাক হওয়া ডাটাবেজ এবং ডাটা ব্রিচ থেকে পাওয়া তথ্য অনুসারে সর্বাধিক ব্যবহৃত পাসওয়ার্ডটি হচ্ছে, ‘123456’ বাহ, কি মজার পাসওয়ার্ড তাই না? আচ্ছা বলুন তো এই পাসওয়ার্ড অনুমান করা বা ক্র্যাক করা কয় সেকেন্ডের কাজ? এখনো অবাক হতে বাকি রয়েছেন, তাহলে শুনুন, কমপক্ষে ২ কোটির মতো অ্যাকাউন্টে এই পাসওয়ার্ড ব্যবহার করতে দেখা গেছে। আরো ৭৭ লক্ষ ইউজার’রা ‘123456789’ ব্যবহার করেন পাসওয়ার্ড হিসেবে।

তাছাড়া ‘qwerty’ এই ওয়ার্ডটি ৩৮ লক্ষ বার, ‘password’ এই ওয়ার্ডটি ৩৬ লক্ষ বার, এবং ‘111111’ এই পাসওয়ার্ডটি ৩১ লক্ষ বার পাসওয়ার্ড হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে। মোস্ট ৫০টি ব্যবহার হওয়া পাসওয়ার্ডে সবাই বেসিক আইডিয়া ইউজ করে পাসওয়ার্ড তৈরি করেছে। মোস্ট ২০টি পাসওয়ার্ডের মধ্যে রয়েছে ‘iloveyou’, ‘monkey’ এবং ‘dragon’ — আরো অবাক করা পাসওয়ার্ডটি হচ্ছে, ‘myspace1’ যেটার র‍্যাংক ২৬ নাম্বার ৭৩৫,৯৮০ ইউজারগন এটিকে পাসওয়ার্ড হিসেবে সেট করে রেখেছেন। MySpace হচ্ছে ফেসবুক আসার আগের এক সোশ্যাল নেটওয়ার্ক, যেটার নাম অনেকেই ভুলেই গেছেন।

সবচাইতে কমন ব্যবহৃত পাসওয়ার্ড গুলোর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে নামকে পাসওয়ার্ড হিসেবে সেট করা — লক্ষ লক্ষ ইউজারগন তাদের প্রথম বা দ্বিতীয় নামকে পাসওয়ার্ড হিসেবে সেট করে রেখেছেন। সবচাইতে কমন নামটি হচ্ছে ‘ashley’ এবং ‘michael’ এই সিঙ্গেল নাম দুইটি প্রায় ৪ লক্ষ বারের ও বেশি পাসওয়ার্ড হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে। চিন্তা করে দেখুন, আপনি যদি নিজের নামকেই পাসওয়ার্ড হিসেবে সেট করে রাখেন সেটা হ্যাকার কতো সহজেই হ্যাক করে ফেলবে, যেখানে আপনার ইমেইল অ্যাড্রেসেই বা সোশ্যাল প্রোফাইলের আপনার নাম পেয়ে যাবে।

তাছাড়া পছন্দের কোন খেলোয়াড়, পপ-শিল্পী, পছন্দের ব্র্যান্ডকেও পাসওয়ার্ড হিসেবে সেট করতে দেখা গেছে মারাত্মক পরিমাণে। অনেকে পছন্দের ফুটবল টিমের নামেও পাসওয়ার্ড সেট করে রাখেন। মোস্ট ব্যবহৃত পাসওয়ার্ড গুলো মধ্যে ’50cent’, ‘enimem’, ‘metallica’ এই পপ শিল্পীদের নামকে পাসওয়ার্ড হিসেবে ব্যবহার হতে দেখা গেছে।

আপনি যদি আপনার পছন্দের সঙ্গীত শিল্পীর নাম, পছন্দের প্লেয়ার বা টিমের নামকে পাসওয়ার্ড হিসেবে সেট করে রাখেন, হ্যাকার সহজেই সেটা অনুমান করে ফেলবে। তারা সোশ্যাল মিডিয়া গুলো কাজে লাগাবে, আপনি অবশ্যই হয়তো আপনার পছন্দের শিল্পী বা টিমকে উদ্দেশ্য করে পোস্ট করেছেন কখনো, সেই পোস্ট থেকেই হ্যাকার আপনার পাসওয়ার্ড এর ধারণা গ্রহণ করবে।

একে তো সহজ পাসওয়ার্ডের ব্যবহার, তারপরে আবার একই পাসওয়ার্ড সকল অনলাইন অ্যাকাউন্ট গুলোতে ইউজ করে সবাই। এতে একটি পাসওয়ার্ড হ্যাকার পেয়ে গেলে আলাদা অনলাইন অ্যাকাউন্ট গুলোও আরামে হ্যাক করে ফেলে।

শক্তিশালী পাসওয়ার্ড ব্যবহার করতে হবে এবং আলাদা আলাদা অ্যাকাউন্ট গুলোতে আলাদা আলাদা পাসওয়ার্ড ব্যবহার করতে হবে। এখানে হ্যাকার প্রুফ পাসওয়ার্ড তৈরি করার কিলার ফর্মুলা গুলো জেনে নিন এবং কিভাবে অনলাইনে নিরাপদ থাকা যায় সেগুলো জানুন!

ইউনিক পাসওয়ার্ড গুলো মনে রাখা অনেক ঝামেলার কাজ, তাই এই কাজের জন্য পাসওয়ার্ড ম্যানেজার ইউজ করতে পারেন। এখানে ৫টি সেরা পাসওয়ার্ড ম্যানেজার সম্পর্কে জানতে পারেন!



WiREBD এখন ইউটিউবে, নিয়মিত টেক/বিজ্ঞান/লাইফ স্টাইল বিষয়ক ভিডিও গুলো পেতে WiREBD ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুণ! জাস্ট, youtube.com/wirebd — এই লিংকে চলে যান এবং সাবস্ক্রাইব বাটনটি হিট করুণ!

Feature Image: Shutterstock.com

প্রযুক্তির জটিল টার্মগুলো কি আপনাকে বিভ্রান্ত করছে? কিছুতেই কি আপনার মস্তিষ্কে পাল্লা পড়ছে না? তাহলে বন্ধু, আপনি এবার সঠিক জায়গায় এসেছেন—কেনোনা এখানে আমি প্রযুক্তির সকল জটিল বিষয় গুলো ভাঙ্গিয়ে সহজ পানির মতো উপস্থাপন করার চেষ্টা করি, যাতে সকলে সহজেই সকল টেক টার্ম গুলো বুঝতে পারে।

One Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *