টেক চিন্তা

ডার্ক থিম চোখের ও ব্যাটারির জন্য সত্যিই কতোটা উপকারী? — আপনার যা জানা প্রয়োজনীয়!

8
ডার্ক থিম চোখের ও ব্যাটারির জন্য সত্যিই কতোটা উপকারী?

ডার্ক থিম বা ডার্ক মোড বর্তমান ইন্টারনেট ইউজারদের কাছে বেশ জনপ্রিয় একটি টার্ম। অনেকেই ট্রেন্ড অনুসরণ করার জন্য ডার্ক থিম ব্যবহার করেন, আবার অনেকে রাতের অন্ধকারে বেটার ভিউ পাওয়ার জন্য এবং অনেকের ফোনের ব্যাটারি দীর্ঘস্থায়ী করার জন্যও ডার্ক থিম ইউজ করেন।

কালো কিছু রাতে চোখের চাপ অবশ্যয় কমায়, কিন্তু সকল টাইপের ডিসপ্লে ব্যাটারি সেভ করার সুবিধা পায় না। তবে চোখও কি সত্যিই কোন সুবিধা পায়? কোন টাইপের ডিসপ্লে গুলো ডার্ক মোড থেকে সুবিধা নিতে পারে? — চলুন, বিষয় গুলো বিস্তারিত আলোচনা করা যাক।

ডার্ক থিম ব্যাটারি সেভ করে?

চলুন ঘুড়িয়ে বা পেঁচিয়ে আর কোন কিছু এক্সপ্লেইন না করি — আপনার ফোনে কি সুপার-অ্যামোলেড বা ওলেড ডিসপ্লে রয়েছে? যদি উত্তরটি হয় “হ্যাঁ”, সেক্ষেত্রে ইয়েস ডার্ক থিম আপনার ফোনের ব্যাটারি সেভ করতে সক্ষম। যদি আপনার ফোনে LCD বা আলাদা টাইপের ডিসপ্লে থাকে, সেক্ষেত্রে ফোনের কালার চেঞ্জ হয়ে ব্ল্যাক হলেই কোন উপকারিতা নেই আপনার জন্য।

অ্যামোলেড ডিসপ্লে তে ব্ল্যাক কালার প্রদর্শন করার মাক্যানিজম হচ্ছে, জাস্ট পিক্সেলটি সম্পূর্ণ অফ করে দেওয়া। অ্যামোলেড গভীর কালো কালার জেনারেট করতে বিখ্যাত। কেনোনা এমোলেড ডিসপ্লেতে কোন ব্যাকলাইট থাকে না, এর প্রত্যেকটি পিক্সেলকে লাইট হিসেবে ব্যবহার করা যায়। যখন কোন লাইটের দরকার নেই বা অন্ধকার সিন রয়েছে, জাস্ট পিক্সেল অফ করে দিলেই এটি পিওর ব্ল্যাক কালার জেনারেট করে, কেনোনা সেখানে কোন আলোই জ্বলছে না।

ডার্ক থিম ব্যাটারি সেভ করে?

আর যেহেতু কোন আলোই জ্বলছে না সেখানে অবশ্যই ব্যাটারি সেভ হচ্ছে। অ্যামোলেড ডিসপ্লে গুলো LCD ডিসপ্লের তুলনায় ব্যাটারি সাশ্রয়ী হয়ে থাকে, কিন্তু সাদা ব্যাকগ্রাউন্ড দেখাতে গেলে তখন কিন্তু অ্যামোলেড বা ওলেড আর ব্যাটারি সাশ্রয় করে না। শোনা যাচ্ছে সামনের আইওএস এবং অ্যান্ড্রয়েডে ডিফল্ট ডার্ক থিম সাপোর্ট থাকবে, মানে ওএস লেভেল থেকে সাপোর্ট থাকবে — ফলে অ্যামোলেড ডিসপ্লে ওয়ালারা ফোনের ব্যাটারিকে আরো দীর্ঘস্থায়ী করতে পারবে।

অপরদিকে LCD বা আলাদা ডিসপ্লে টাইপ গুলোতে ডার্ক মোড থেকে কোন লাভ আসে না। তবে যদি ডিস্প্লের ব্রাইটনেস কমানো হয় সেক্ষেত্রে ব্যাটারি সেভ হতে পারে। যখন ডিসপ্লেতে কালো কালার প্রদর্শিত করানো হয়, তখন ও পিক্সেল গুলো জ্বলতে থাকে সাথে ডিসপ্লে ব্যাকলাইট জ্বলে, ফলে মোটেও ব্যাটারি সেভ করে না।

তো এক কথায় বলতে গেলে ব্যাপারটি দাঁড়াচ্ছে, AMOLED/OLED ডার্ক থিম থেকে অনেক সুবিধা পায়, কিন্তু LCD মোটেও কোন সুবিধা পায় না।

ডার্ক থিম চোখ রক্ষা করে?

এই ব্যাপারটির উত্তর উপরের প্রশ্নের মতো এক বাক্যে দেওয়া সম্ভব নয়। হ্যাঁ ডার্ক থিম বা ডার্ক মোড আপনার চোখের জন্য উপকারী হতে পারে, কিন্তু সেটা সব সময়ের জন্য নয়। সাধারণত সাদা ব্যাকগ্রাউন্ড এবং কালো টেক্সট বেস্ট রিডাবিলিটি প্রদান করে। সাদা কালারে কালার স্পেকট্রামের প্রত্যেকটি তরঙ্গদৈর্ঘ্য মজুদ থাকে, ফলে সাদা কালার বোঝার জন্য আইরিসকে প্রশস্তভাবে খোলার দরকার পরে না।

যেহেতু আইরিস প্রশস্তভাবে খোলার দরকার পরে না তাই চোখের লেন্স সঠিক মাপে থাকে, ফলে জিনিষ আরো শার্প দেখতে পাওয়া যায়। অপরদিকে কালো কালার আলো প্রতিফলিত না করে আলো শোষণ করে নেয়। তাই কালো ব্যাকগ্রাউন্ডের উপরে সাদা টেক্সট সব সময় বেস্ট রিডাবিলিটি প্রদান করে না। যেহেতু কালো কালার আলো শোষণ করে, তাই আইরিসকে প্রশস্তভাবে খোলার দরকার পরে যাতে সঠিক মাত্রায় আলো চোখে পৌছাতে পারে।

ডার্ক থিম চোখ রক্ষা করে?

আমাদের কাছে কালো ব্যাকগ্রাউন্ডে সাদা টেক্সট বেশি সহনীয় হলেও, অনেকের কাছে আবার অত্যন্ত বিরক্তিকর ব্যাপার হিসেবে প্রমাণিত হতে পারে। কালো ব্যাকগ্রাউন্ডে সাদা টেক্সট অনেকের ব্যাড ইফেক্ট ফেলে আর সেটা বৈজ্ঞানিকভাবে প্রমাণিত।

তাহলে ব্যাপারটি কি দাঁড়ালো? হ্যাঁ, কালো ব্যাকগ্রাউন্ড আর সাদা টেক্সট, মানে যেটা ডার্ক থিম এ ব্যবহৃত হয় — চোখের উপর কম চাপ ফেলে এবং বলতে পারেন একদিক থেকে চোখের জন্য ভালো কিন্তু সেটা লো লাইটে। মানে রাতের বেলা বা ঘরের মধ্যে পড়ার জন্য ডার্ক থিম বেস্ট হতে পারে। ডার্ক থিমে যদি ব্যাকগ্রাউন্ড এবং টেক্সট কালারের মধ্যে হাই কনট্রাস্ট থাকে সেটা চোখের জন্য বেশি সহনীয়। তবে আপনাকে যদি শর্ট টেক্সট পড়ার দরকার পরে, যেমন- প্রোগ্রামিং করার সময় syntax হাইলাইটিং এর দিকে নজর রাখতে হয় সেক্ষেত্রে ডার্ক থিমই বেস্ট।

তবে দিনের বেলা বা বেশি আলো রয়েছে এমন জায়গায় ডার্ক থিম চোখের চাপ আরো বারিয়ে দিতে পারে। বেশি আলোর কন্ডিশনে কালো ব্যাকগ্রাউন্ডে সাদা টেক্সট আপনি হয়তো খুব কস্টে পড়তে পারবেন। তবে যদি বড় টেক্সট বা প্যারাগ্রাফ পড়তে হয় সেক্ষেত্রে ডার্ক থিমের তুলনায় লাইট থিম ব্যবহার করার রেকোমেন্ড করবো।

তাহলে আপনি কি ডার্ক থিম বা ডার্ক মোড ব্যবহার করবেন? — হ্যাঁ, অবশ্যই! যদি লভ্য থাকে অবশ্যই ব্যবহার করুণ। হোক সেটা চোখের চাপ কমাতে বা হোক ট্রেন্ড অনুসরণ করতে। তবে ফোনের ডিসপ্লে যদি অ্যামোলেড হয়ে থাকে সেক্ষেত্রে অবশ্যই কিছু ব্যাটারি সেভ করতে পারবেন। রাতে ডার্ক থিম ব্যবহার করতে পারেন, দিনে লাইট থিম, অথবা আপনার যেটা বেস্ট পছন্দ!



WiREBD এখন ইউটিউবে, নিয়মিত টেক/বিজ্ঞান/লাইফ স্টাইল বিষয়ক ভিডিও গুলো পেতে WiREBD ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুণ! জাস্ট, youtube.com/wirebd — এই লিংকে চলে যান এবং সাবস্ক্রাইব বাটনটি হিট করুণ!

Feauture Image: Shutterstock

তাহমিদ বোরহান
প্রযুক্তির জটিল টার্মগুলো কি আপনাকে বিভ্রান্ত করছে? কিছুতেই কি আপনার মস্তিষ্কে পাল্লা পড়ছে না? তাহলে বন্ধু, আপনি এবার সঠিক জায়গায় এসেছেন—কেনোনা এখানে আমি প্রযুক্তির সকল জটিল বিষয় গুলো ভাঙ্গিয়ে সহজ পানির মতো উপস্থাপন করার চেষ্টা করি, যাতে সকলে সহজেই সকল টেক টার্ম গুলো বুঝতে পারে।

৫০ হাজারের মধ্যে বা সকলের চেয়ে অর্ধেক দামে ৫জি ফোনের প্রতিজ্ঞা হুয়াওয়ের!

Previous article

অ্যামাজন চায়নাতে তাদের লোকাল মার্কেটপ্লেস বন্ধ করছে!

Next article

You may also like

8 Comments

  1. Ohhh YES!! BEST CONTENT BRO.

  2. খুবই উপকারী আর্টিকেল। খুব ভালো লাগলো। ধন্যবাদ ভাইয়া।

  3. S7 EDGE te ki lav hobe via? dark theme?

  4. উপকারী

  5. বোঝার একটা বিষয় আছে।জানার একটা রাস্তাও আছে ।

  6. Joss hoyece vai.
    new jante parlam kichu.
    you are awesome boss.

  7. তথ্য বহুল লেখা।ভালো লাগলো পড়ে। উপকৃত হলাম কাকা।

Leave a reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *