বর্তমান তারিখ:23 July, 2019

ভারতে টিকটক ব্যান : সরকার গুগল ও অ্যাপেলকে অ্যাপ স্টোর থেকে টিকটক সরিয়ে নিতে বলেছে!

ভারতে টিকটক ব্যান

মাদ্রাজ হাইকোর্ট সরকারকে ভারতে টিকটক ব্যান করার নির্দেশনা দিয়েছে, এতে টিকটক অ্যাপটির প্রতি প্রভাব পরতে পারে। তাছাড়া রিপোর্ট থেকে জানা গেছে গুগল ও অ্যাপেলকে তাদের প্লে স্টোর এবং অ্যাপ স্টোর থেকে টিকটক অ্যাপটি উঠিয়ে নেওয়ার জন্য জিজ্ঞেস করা হয়েছে। টিকটক হঠাৎ করে ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করা একটা ভিডিও শেয়ারিং অ্যাপ, যার বর্তমানে ০.৫ বিলিয়ন ইউজার রয়েছে। তবে ভারত থেকেই কেবল ১১৯ মিলিয়নের মতো ইউজার টিকটক ব্যবহার করে।

ভিডিও প্ল্যাটফর্মটি ভারতের শিশু, কিশোর, যুবক সবাই ব্যবহার করে। ভিডিও শেয়ারিং অ্যাপটিতে স্বল্পদৈর্ঘ্য কৌতুক আপলোড করতো ইউজার’রা। কিন্তু সমস্যায় আসে তখন যখন এই প্ল্যাটফর্মে অশ্লীল ও নোংরা ভিডিও গুলো আপলোড অ্যালাউ করা শুরু হয়, যেটা তরুণ সমাজের জন্য মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ!

এই বছরের শুরুর দিকে Public interest litigation ফাইল করা হয় এবং সেই সূত্র অনুসারে মাদ্রাজ হাই-কোর্ট ৩-এপ্রিল সরকারের কাছে টিকটক ব্যান করার নির্দেশ পাঠায়। এরপরে ব্যাপারটি সুপ্রিম কোর্টে উঠানো হয়, আর এখনো ব্যাপারটি বিচারাধীন রয়েছে, ২২-এপ্রিল যেটার সুনানি হবে।


এই ব্যাপারের উপরে টিকটক তাদের অফিশিয়াল স্টেটমেন্ট প্রদান করেছে;

“As per the proceedings in the Supreme Court today, the Madras High Court will hear the matter on ex parte ad interim order. The Supreme Court has listed the matter again for April 22, 2019, to be apprised of the outcome of the hearing on the April 16th, 2019 before the Madurai Bench of Madras High Court. At TikTok, we have faith in the Indian Judicial system and the stipulations afforded to social media platforms by the Information Technology (Intermediaries Guidelines) Rules, 2011. We are committed to continuously enhancing our existing measures and introducing additional technical and moderation processes as part of our ongoing commitment to our users in India. In line with this, we have been stepping up efforts to take down objectionable content. To date, we have removed over 6 million videos that violated our Terms of Use and Community Guidelines, following an exhaustive review of content generated by our users in India.”


তবে টিকটক ব্যান করলেও তেমন কিছুই হবে না। ব্যান করে টিকটকের আক্সেস হয়তো সরাসরি বন্ধ হয়ে যাবে, কিন্তু সেটা আন-ব্লক করতে একটা ভিপিএন অ্যাপ ডাউনলোড করায় যথেষ্ট। তাছাড়া অ্যাপটি প্লে স্টোর বা অ্যাপ স্টোর থেকে সরিয়ে নিলেও অলরেডি মিলিয়ন ইউজারের মোবাইলে সেটা ইন্সটল করা রয়েছে, ব্যান করলেই বা সরিয়ে নিলেই তো আর মোবাইল থেকে অ্যাপটি উধাও হয়ে যাবে না।


WiREBD এখন ইউটিউবে, নিয়মিত টেক/বিজ্ঞান/লাইফ স্টাইল বিষয়ক ভিডিও গুলো পেতে WiREBD ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুণ! জাস্ট, youtube.com/wirebd — এই লিংকে চলে যান এবং সাবস্ক্রাইব বাটনটি হিট করুণ!

প্লে স্টোর থেকে অ্যাপটিকে সরিয়ে নিলে অ্যান্ড্রয়েড ইউজাররা তৃতীয়পক্ষ সোর্স থেকে অ্যাপটি ডাউনলোড করতে শুরু করবে, যেটার মাধ্যমে ম্যালওয়্যার ছড়ানোর ঝুঁকি বেড়ে যাবে এবং নতুন এক সমস্যার তৈরি করবে।

প্রযুক্তির জটিল টার্মগুলো কি আপনাকে বিভ্রান্ত করছে? কিছুতেই কি আপনার মস্তিষ্কে পাল্লা পড়ছে না? তাহলে বন্ধু, আপনি এবার সঠিক জায়গায় এসেছেন—কেনোনা এখানে আমি প্রযুক্তির সকল জটিল বিষয় গুলো ভাঙ্গিয়ে সহজ পানির মতো উপস্থাপন করার চেষ্টা করি, যাতে সকলে সহজেই সকল টেক টার্ম গুলো বুঝতে পারে।

One Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *