বর্তমান তারিখ:19 October, 2019

ফেসবুক ও ম্যাসেঞ্জার কে শীঘ্রই একটি অ্যাপ বানিয়ে ফেলা হবে!

ফেসবুক ও ম্যাসেঞ্জার কে শীঘ্রই একটি অ্যাপ বানিয়ে ফেলা হবে!

দ্যা ভার্জ এর এই রিপোর্ট অনুসারে — মেসেঞ্জার আর আলাদা কোন অ্যাপ হিসেবে থাকবে না, একে আসল ফেসবুক অ্যাপের মধ্যে অন্তর্ভুক্ত করার প্ল্যান করা হচ্ছে। এর ফলে আপনি সোশ্যাল মিডিয়া ফিড এবং ম্যাসেজিং একই প্লেস থেকে করতে পারবেন,আলাদা কোন ম্যাসেঞ্জার ইউজ করার দরকার পরবে না। ম্যাসেঞ্জারের বর্তমান আইকন ঠিকই থাকবে, কিন্তু ফেসবুক অ্যাপ থেকে সেই আইকনে ক্লিক করলে আলাদা ম্যাসেঞ্জার অ্যাপ ওপেন হবে না বরং ফেসবুক অ্যাপ থেকে চ্যাট সেকশনটি ওপেন হবে আর একই জায়গায় চ্যাট করা যাবে।

২০১১ এর পূর্বে ফেসবুক ও ম্যাসেঞ্জার একই সাথে কাজ করতো, ২০১১তে প্রথম আলাদা ম্যাসেঞ্জার অ্যাপ রিলিজ করা হয় এবং ২০১৪তে মেইন ফেসবুক অ্যাপ থেকে ম্যাসেজিং সিস্টেম সম্পূর্ণ বাতিল করা হয়েছিলো। তাহলে ২০১৯ এ এসে কেন ফেসবুক আবার ২০১১তে ফেরত যাচ্ছে?

এক ফেসবুক গবেষক Jane Manchun Wong জানান, ফেসবুককে তাদের আলাদা সার্ভিস গুলো যেমন হোয়াটস অ্যাপ, ইন্সটাগ্রাম, ম্যাসেঞ্জার ইত্যাদির সাথে আরো বেশি ইন্টিগ্রেট করার চেষ্টা করা হচ্ছে যাতে সকল অ্যাপ গুলো একে অপরের সাথে কথা বলতে পারে, আরো বেটার একে অপরকে বুঝতে পারে। তাছাড়া ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারকে মেইন ফেসবুক অ্যাপের মধ্যে নিয়ে এসে এন্ড-টু-এন্ড এনক্রিপশন ম্যাথড ইউজ করা হবে, যাতে ইউজার ডাটা আরো বেশি প্রাইভেট থাকতে পারে।

ফেসবুক বর্তমানে এই ফিচারটি আনার জন্য হাজারো ডেভেলপার দ্বারা একত্রে কাজ করিয়ে নিচ্ছে, ২০১৯ এর মধ্যেই ফেসবুক ও ম্যাসেঞ্জার একটি অ্যাপে পরিণত হয়ে যাবে অথবা ২০২০ এর প্রথম দিকে এটা দেখতে পাওয়া যাবে।


WiREBD এখন ইউটিউবে, নিয়মিত টেক/বিজ্ঞান/লাইফ স্টাইল বিষয়ক ভিডিও গুলো পেতে WiREBD ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুণ! জাস্ট, youtube.com/wirebd — এই লিংকে চলে যান এবং সাবস্ক্রাইব বাটনটি হিট করুণ!

বর্তমানে তাদের এই টেস্টিং ফিচারটি প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে, ফেসবুক অ্যাপের মধ্যে যে চ্যাট সেকশন থাকবে সেখানে শুধু বেসিক ম্যাসেজিং করা যাবে কোন রিয়াকশন, কল, ভিডিও, বা ফটো সেন্ড করা যাবে না। এগুলো আলাদা ফিচার ইউজ করার জন্য আপনাকে এখনো ম্যাসেঞ্জার অ্যাপ ইউজ করতে হবে। এ থেকে বোঝা যাচ্ছে ম্যাসেঞ্জার অ্যাপকে সম্পূর্ণ রুপে কিল করা হবে না হয়তো, কিন্তু ফেসবুক অ্যাপ থেকে বেসিক ম্যাসেজিং করা যাবে।

প্রযুক্তির জটিল টার্মগুলো কি আপনাকে বিভ্রান্ত করছে? কিছুতেই কি আপনার মস্তিষ্কে পাল্লা পড়ছে না? তাহলে বন্ধু, আপনি এবার সঠিক জায়গায় এসেছেন—কেনোনা এখানে আমি প্রযুক্তির সকল জটিল বিষয় গুলো ভাঙ্গিয়ে সহজ পানির মতো উপস্থাপন করার চেষ্টা করি, যাতে সকলে সহজেই সকল টেক টার্ম গুলো বুঝতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *