ইন্টারনেটটেক চিন্তানিরাপত্তা

ব্যাক বাটন হাইজ্যাকিং : আপনার যা জানা প্রয়োজনীয়! [ওয়্যারবিডি স্পেশাল]

3
ব্যাক বাটন হাইজ্যাকিং

ওয়েব ব্রাউজ করা অনেক সহজ, রাইট? জাস্ট গুগলে প্রবেশ করলেন, আপনার সার্চ টার্ম এন্টার করলেন আর রেজাল্ট থেকে কোন ওয়েবসাইটে চলে গেলেন! কিন্তু অনেক সময় প্রথম রেজাল্ট থেকে কোন ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার পরেও সেটা খুব একটা কাজের হয় না, তাই স্বাভাবিকভাবে আপনি ব্যাক বাটন প্রেস করে আবার পূর্বের গুগল সার্চ রেজাল্টে চলে আসতে চান। কিন্তু অনেক সময় ওয়েব ব্রাউজারের ব্যাক বাটন ক্লিক করার পরেও পেছনের পেজে আর আসে না, বারবার কারেন্ট পেজটিই রিলোড হতে থাকে। আপনি বারবার ক্লিক করেন, বাট ভাগ্য খারাপ, বারবারই কারেন্ট পেজ রিলোড করে, পেছনে ফিরে আসে না!

বিশেষ করে পাইরেটেড ওয়েবসাইট গুলো ভিজিট করার সময় এমন হয়ে থাকে। জানি ব্যাপারটা হজম হবে না, তবে হ্যাঁ, আপনার ব্যাক বাটন হাইজ্যাক করে নিয়েছে ওয়েবসাইটটি!

মানে কি? ব্যাক বাটন হাইজ্যাকিং আবার কি জিনিষ? — এতো ব্রেইন খাটানোর দরকার নেই, আমাকেই এক্সপ্লেইন করতে দিন!

ব্যাক বাটন হাইজ্যাকিং

ব্যাক বাটন হাইজ্যাকিং নিয়ে জানতে হলে প্রথমে জানতে হবে ওয়েব ব্রাউজারে ব্যাক এবং ফরওয়ার্ড বাটন কিভাবে কাজ করে। আপনার ব্রাউজারের ব্যাক এবং ফরওয়ার্ড বাটন বিশেষ করে কাজ করে আপনার ওয়েব ব্রাউজিং হিস্ট্রির উপরে। ব্যাক বাটন হাইজ্যাক করার জন্য কোন ওয়েবসাইট আপনার ব্রাউজারের ব্রাউজিং হিস্ট্রির সাথে ধোঁকাবাজি করে, তারপরে কোন কোড ইউজ করে বা রিডাইরেক্ট ম্যাথড ইউজ করে আপনাকে একই পেজে বারবার রেখে দেয়।

চলুন সম্পূর্ণ ব্যাপারটিকে আরো সহজ করে বোঝার চেষ্টা করা যাক। মনে করুণ, আপনি পেজ “ক” তে অবস্থান করছেন বর্তমানে। এই পেজ “ক” এ পেজ “খ” এর লিংক রয়েছে। আপনি সেখানে ক্লিক করলে পেজ “খ” তে চলে যাবেন। আবার ব্যাক বাটন প্রেস করলে পেজ “ক”তে রিটার্ন করবেন রাইট? কিন্তু এখানেই হাইজ্যাকিং ম্যাথডটি কাজ করে।

যখন আপনি পেজ “ক” থেকে পেজ “খ” তে যাওয়ার জন্য লিংক ক্লিক করেন, আপনি পেজ “খ” তে পৌছার সাথে সাথে রিডাইরেক্ট হয়ে পেজ “গ”তে চলে যান। যখন আপনি ব্যাক বাটন প্রেস করেন পেছনে যাওয়ার জন্য, আপনি পেজ “খ” তে চলে যান এবং সাথে সাথে রিডাইরেক্ট হয়ে আবার পেজ “গ”তেই চলে আসেন। আপনি জানেনই না যে পেজ “গ”তে রয়েছেন আপনি! আর এভাবে আর পেজ “ক” আক্সেস করা সম্ভব হয় না।

এখন আপনি যদি অনেক দ্রুত ব্যাক বাটন প্রেস করেন, সেক্ষেত্রে আপনি পেজ “ক”তে ফিরে আসতে পারবেন। মানে পেজ “খ” লোডই হবে না, আর আপনি দ্রুত “ক”তে চলে আসতে পারবেন। তবে এই জাল আরো অনেক জটিল হতে পারে। ধরুন আপনাকে একসাথে অনেক গুলো পেজ রিডাইরেক্ট করে নিয়ে যাওয়া হয়েছে, সেক্ষেত্রে যতোদ্রুতই ক্লিক করুণ না কেন পেছনে আসতে পারবেন না, এক বিশাল রিডাইরেক্ট লুপের খপ্পরে পরে যেতে পারেন।

কেন ব্যাক বাটন হাইজ্যাক করে?

ব্যাক বাটন হাইজ্যাকিং এর অনেক কারণ থাকতে পারে। অনেক ওয়েবসাইট এমন কিছু স্ক্রিপ্ট ইউজ করে, ফলে যখনই আপনি ব্যাক বাটন প্রেস করেন আপনাকে ইচ্ছা মতো অন্য কোন পেজে নিয়ে যেতে পারে, যেখানে তারা কোন প্রমোশনাল অফার সম্পর্কে আপনাকে জানাতে পারে। আপনাকে একই পেজে ফেঁসে রাখতে পারে, আপনাকে অ্যাডস দেখাতে পারে, বা আলাদা আরো অনেক ট্রিক কাজে লাগাতে পারে। অনেক সময় ম্যালিসিয়াস কাজের জন্যও ব্যাক বাটন হাইজ্যাক করতে পারে।

যেভাবে ব্যাক বাটন কাজ করে, সে অনুসারে ব্যাক বাটন হাইজ্যাকিং করে অনেক ডাটা কালেক্ট করা যেতে পারে। যেমন ধরুন, গুগল সার্চ পেজ থেকে ওয়েবসাইট “ক” তে প্রবেশ করলেন। সেখানে ব্যাক বাটন প্রেস করার মাধ্যমে ওয়েবসাইট “ক” আপনাকে রিডাইরেক্ট করে ওয়েবসাইট “খ”তে নিয়ে গেলো যেটা দেখতে হুবহু আপনার পূর্বের গুগল সার্চ পেজের মতো। সেখানে আপনি ওয়েবসাইট “ক” এর প্রতিযোগী ওয়েবসাইটের লিংক দেখতে পাবেন যেগুলোও হবে আসলে ফেইক ওয়েবসাইট। তারপরে সেই ওয়েবসাইট গুলোতে ক্লিক করে ভিজিট করার মাধ্যমে সহজেই ট্র্যাক করা যেতে পারে আপনি প্রতিযোগী ওয়েবসাইট গুলোতে কি রকমের অ্যাক্টিভিটি করে থাকেন।

আপনি ঐ ওয়েবসাইট গুলোতে যে ডাটা গুলো প্রবেশ করাবেন সেগুলো এবং আপনার ক্রেডিট কার্ড তথ্য গুলোও চুরি করা সম্ভব হবে, কেননা আপনি আসল ওয়েবসাইটে তো প্রবেশই করেন নি!

কিভাবে এটা ঠেকানো যেতে পারে?

আপাতত আপনাকে ব্রাউজিং করার ক্ষেত্রে চোখ কান খোলা রেখে ব্রাউজ করতে হবে। আপনাকে লক্ষ্য করতে হবে আপনি সঠিক লিংকে রয়েছেন কিনা। তবে রিসেন্টলি, গুগল ক্রোমিয়াম প্রজেক্ট ইঞ্জিনিয়ার’রা এটা নিয়ে কাজ করছেন। তারা এরকম ব্রাউজার হিস্ট্রি বুঝতে পারলেই ফ্ল্যাগ করে দেওয়ার সিস্টেমের উপর কাজ করছেন। যাতে এরকম সাইটে প্রবেশ করলে আর ব্যাক বাটন হ্যাক না হতে পারে।

কিন্তু ব্যাপারটা অনেক ট্রিকি হতে পারে। যেহেতু এই সিস্টেম হিস্ট্রি ফ্ল্যাগ হওয়ার উপরে কাজ করে, তাই অনেক সময় ভালো ওয়েবসাইট ফ্ল্যাগ হয়ে যেতে পারে যেখানে ম্যালিসিয়াস ওয়েবসাইট ফিল্টারিং থেকে বেঁচেও যেতে পারে। আর এই জন্যই এখনো এই ফিচার ডেভেলপমেন্টের মধ্যে রয়েছে। তবে আশা করা যায়, ২০১৯ সালের কোন সময়ে ক্রোমের ফ্ল্যাগ পেজে এই ফিচারটি দেখতে পাওয়া যেতে পারে।

আপাতত, ব্যাক বাটন হাইজ্যাকিং এর কোন মোক্ষম সলিউশন নেই, তবে হয়তো কয়েক বছরের মধ্যে ক্রোম সহ আলাদা ওয়েব ব্রাউজার গুলো পদক্ষেপ গ্রহণ করবে এবং ব্রাউজার ব্যাক বাটন হাইজ্যাকিং সম্পূর্ণ ইতিহাসে পরিণত হবে!


Image credit: By Evan Lorne/Shutterstock

তাহমিদ বোরহান
প্রযুক্তির জটিল টার্মগুলো কি আপনাকে বিভ্রান্ত করছে? কিছুতেই কি আপনার মস্তিষ্কে পাল্লা পড়ছে না? তাহলে বন্ধু, আপনি এবার সঠিক জায়গায় এসেছেন—কেনোনা এখানে আমি প্রযুক্তির সকল জটিল বিষয় গুলো ভাঙ্গিয়ে সহজ পানির মতো উপস্থাপন করার চেষ্টা করি, যাতে সকলে সহজেই সকল টেক টার্ম গুলো বুঝতে পারে।

ডিএনএস লিক (DNS Leak) কি? কিভাবে ডিএনএস লিক চেক এবং ফিক্স করবেন?

Previous article

আপনার ওয়ার্ডপ্রেস সাইট হ্যাক হওয়ার পরে কি করবেন?

Next article

You may also like

3 Comments

  1. movie download korte giye erokom parai porte hoy vai. Tab na kete dile ar way thake na.

    1. পাইরেটেড ওয়েবসাইট গুলো থেকে দূরে থাকায় ভালো!

  2. টরেন্ট সাইটগুলো ব্যাক বাটন হাইজ্যাকিং এর আদর্শ উদাহারণ

Leave a reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *