ExelNode Hosting: সাশ্রয়ী মূল্যের ডোমেইন/হোস্টিং সাথে ২৪/৭ সাপোর্ট! [রিভিউ]

এক্সেলনোড

আপনি সম্ভবত এক্সেলনোড হোস্টিং (ExelNode Hosting) এর নাম শুনেন নি, তবে এটা সত্যিই লজ্জার ব্যাপার। যদিও এক্সেলনোড দেশী-বিদেশি অনেক নামী হোস্টিং প্রোভাইডারদের মতো খ্যাতিমান নয়, কিন্তু তারা বর্তমান মার্কেটে সবচাইতে সাশ্রয়ী মূল্যের ডোমেইন, দ্রুততর হোস্টিং, এবং ২৪/৭ সাপোর্ট এর অঙ্গীকার প্রদান করছে।

এক্সেলনোড হোস্টিং এর ডাটা সেন্টার লোকেশন ইউএসএ নির্ভর সাথে তারা শেয়ার্ড হোস্টিং প্ল্যানের সাথে ৯৯.৯০% আপটাইম এবং ভার্চুয়াল সার্ভার ও ডেডিকেটেড হোস্টিং এর ক্ষেত্রে ৯৯.৯৯% আপটাইমের নিশ্চয়তা প্রদান করে থাকেন।

শেয়ার্ড হোস্টিং এর ক্ষেত্রে আমি যেটা লক্ষ্য করেছি, বাংলাদেশের প্রায় বেশিরভাগ হোস্টিং কোম্পানিই অনেক কম দামে শেয়ার্ড হোস্টিং প্রদান করে থাকেন, কিন্তু সমস্যা হচ্ছে পারফর্মেন্স এবং সাপোর্ট। একটি সার্ভার কনফিগার করে সেখানে সি-প্যানেল ইন্সটল করে আর ডিসেন্ট পরিমাণে হার্ডওয়্যার রিসোর্সের সাথে সত্যিই অনেক কম মূল্যেই শেয়ার্ড হোস্টিং সেল করা সম্ভব। কিন্তু যতো প্ল্যান সেল হবে, আপনার ওয়েবসাইটের পারফর্মেন্স ততোই স্লো হতে থাকবে। সাথে যেহেতু আপনার শেয়ার্ড প্ল্যানটি অনেক সস্তা, তাই অনেক কোম্পানিই আপনাকে ঠিক মতো সাপোর্ট প্রদান করবে না, বিশেষ করে আমি নিজে প্রত্যক্ষ করেছি, আপনাকে তারা ইগ্নোর পর্যন্ত করতে পারে।

এক্সেলনোডের এই ব্যাপারটিই আমার কাছে সেরা মনে হয়েছে, আপনি কোন প্ল্যান এবং কতো টাকায় কিনেছেন এটা ব্যাপার নয়, যখন কথা আসবে সাপোর্ট নিয়ে, এক্সেলনোড আপনাকে প্রত্যেক ক্ষেত্রে ডেডিকেটেড সাপোর্ট প্রদান করবে। এদের লাইভ চ্যাট সিস্টেম রয়েছে, তবে তাৎক্ষনিক যোগাযোগ স্থাপন করার জন্য এক্সেলনোডের ডেডিকেটেড সাপোর্ট পোর্টাল রয়েছে (আপনাকে সমস্যা উল্লেখ্য করে একটি টিকিট সাবমিট করতে হবে, সাধারণত ৩০ মিনিটের মধ্যে সাপোর্ট টিম আপনার সাথে যোগাযোগ করবেন), তাছাড়া ২৪/৭ ফোন সাপোর্ট তো রয়েছেই!

তাহলে এক্সেলনোডের হাইলাইটেড ফিচার গুলো কি দাঁড়ালো? — সাশ্রয়ী দাম, দ্রুততর সার্ভার, অসাধারণ আপটাইম, এবং ডেডিকেটেড “গুরু সাপোর্ট”, রাইট? ওয়েল, আমরা নিজে থেকে পরীক্ষা না করে কখনোই ওয়্যারবিডিতে রিভিউ পাবলিশ করি না, আমরা এক্সেলনোড থেকে শেয়ার্ড হোস্টিং আকাউন্ট নিয়েছি এবং টেস্ট করার জন্য ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করেছি, যাতে আপনাদের সামনে একটি সৎ রিভিউ উপস্থাপন করতে পারি।

সুতরাং, সবকিছুর বিস্তারিত রিপোর্ট পেতে অবশ্যই রিভিউটির শেষ পর্যন্ত চোখ বোলানর অনুরোধ রইলো! সাথে এক্সেলনোডের কিছু অসাধারণ অফার সম্পর্কেও আলোচনা করা হয়েছে, হতে পারে আপনার দৃষ্টি আকর্ষণ করবে।

কেন এক্সেলনোড?

WIREBD” — প্রমো কোড ব্যবহার করে পেতে পারেন ৫০% পর্যন্ত ডিস্কাউন্ট! বিস্তারিত এখানে…

এক্সেলনোড গ্রেট স্পীড প্রদান করে, সাথে এদের গ্রেট সাপোর্ট টিম রয়েছে! সত্যিই কি তাই? এক্সেলনোড নিয়ে রিভিউ করার পূর্বে আমি এর অ্যাডমিনকে এই প্রথম প্রশ্নটি করি, “কেন এক্সেলনোড, কেন আপনাদেরই মানুষ ভরসা করবে?” এর উত্তর সরূপ তারা আমাকে তাদের সার্ভিস তদন্ত করে দেখতে বলেছে। সব কোম্পানিই সেল করার জন্য অনেক বড় বড় স্লোগান বিজ্ঞাপন করিয়ে থাকে, এটা নতুন কোন ব্যাপার নয়। কিন্তু যতক্ষণ আমি সবদিক থেকে পরীক্ষা করে না দেখবো ততোক্ষণ রিভিউ তো দূরের কথা এ নিয়ে কোথাও কমেন্ট পর্যন্ত করবো না!

সার্ভার টেস্ট করার পূর্বে আমি এক্সেলনোডের অ্যাডমিনকে কিছু প্রশ্ন করেছিলাম। প্রথম জিজ্ঞাস করি, “আপনাদের সার্ভার ফাস্ট বলে আপনারা দাবি করছেন ঠিক আছে, আমি অবশ্যই পারফর্মেন্স টেস্ট করবো, কিন্তু আমাকে সংক্ষেপে ব্যাখ্যা করুণ কিভাবে আপনারা এই স্পীড মেইন্টেইন করেন?” অ্যাডমিন আমাকে বলেন, ” প্রথমত, আমরা এসএসডি স্টোরেজ ইউজ করি, দ্বিতীয়ত আমরা একটি সার্ভারে খুব বেশি ইউজার রাখিনা ফলে সকল ইউজার’রা গ্রেট স্পীড বেনিফিট পেতে পারে। তৃতীয়ত, আমাদের সার্ভার পোর্ট স্পীড ১ জিবিপিএস, ফলে গ্রেট ব্যান্ডউইথ সাপোর্ট প্রদান করা সম্ভব হয়।

.Com এবং .Net ডোমেইন কিনুন মাত্র ৩৪৯ টাকায়! সাথে .xyz ডোমেইন ৯৫ টাকায়! (১ম বছরের জন্য)

তো এই ছিল এক্সেলনোডের অ্যাডমিনের ভাষ্যকার। তবে এবার আমার টেস্ট করার পালা, চলুন দেখে নিন আমি কি রেজাল্ট খুঁজে পেয়েছি!

সেরা দ্রুততর শেয়ার্ড হোস্টিং

যদি আমার নিজের কথা বলি, আমি ক্লাউড হোস্টিং ইউজ করতে বেশি পছন্দ করি, যদিও এতে টেকনিক্যাল নলেজ আর গ্যাঁটের টাকা দুটোই বেশি খরচ করতে হয়, তবে শেয়ার্ড হোস্টিং এতো ভালো পারফর্ম করবে সেটা অনেকটা জ্ঞানের বাইরে ছিল। লাস্ট ২০১৫তে শেয়ার্ড হোস্টিং ব্যবহার করেছি, আর যা প্যারা পেয়েছিলাম সেটা বর্ণনা করার মতো নয়। এক্সেলনোড সত্যিই আমার দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে।

যদি এক কথায় বলি, এক্সেলনোড এর শেয়ার্ড হোস্টিং বিদেশি নামী হোস্টিং গুলোর মতোই পারফর্ম করে।

আসলে আপনার ওয়েবসাইট কতোটা ফাস্ট হবে এটা অনেকটায় নির্ভর করে আপনার ওয়েব অ্যাপলিকেশন, আপনার অপটিমাইজেশন ট্রিক্স, ভালো ক্যাশ কনফিগ, থিম ইত্যাদির উপর। অনেক হাই পারফর্মেন্স সার্ভার হলেই যে ওয়েবপেজ তড়তড় করে লোড নেবে এমনটা মোটেও নয়। তবে হ্যাঁ, অবশ্যই ভালো ওয়েব সার্ভার এবং হোস্টিং এর গুরুত্ব রয়েছে। হোস্টিং ভালো হলে আপনি বেটার রেসপন্স টাইম পাবেন। মানে কোন লিংকে ক্লিক করার সাথে সাথে খুব কম লেটেন্সিতে নতুন পেজের ডাটা রিসিভ হতে শুরু করবে।

এক্সেলনোডের শেয়ার্ড হোস্টিং এ একটি বেসিক ওয়ার্ডপ্রেস সাইট হোস্ট করে আমি অনলাইন টুল ব্যবহার করে বিভিন্ন লোকেশন থেকে সার্ভার রেসপন্স টাইম চেক করেছি। আর আমার পাওয়া রেজাল্ট নিচের স্ক্রীনশট থেকে দেখে নিতে পারেন। অথবা, এই লিংক থেকে নিজেই রেজাল্ট পেজ চেক করতে পারবেন!

১৮০ মিলি সেকেন্ড এর নিচের স্কোর মানে নিঃসন্দেহে আপনার সার্ভার রেসপন্স টাইম A+। কিছু লোকেশন থেকে যদিও রেসপন্স টাইম একটু বেশি, তবে নিচের স্ক্রীনশট থেকে আপনি এক্সেলনোডের সাথে দুনিয়ার বড় বড় হোস্ট প্রোভাইডারের রেসপন্স টাইম তুলনা করতে পারবেন। আর হ্যাঁ জানিয়ে রাখা ভালো ইন্ডাস্ট্রি এভারেজ লেটেন্সি ৮৯০ মিলি সেকেন্ড, সুতরাং আপনি এবার নিজেই বিচার করতে পারবেন।

তো দুনিয়ার বড় বড় কোম্পানিদের লক্ষ্য করলে দেখবেন, সেই অনুসারে এক্সেলনোড মোটেও খারাপ পারফর্ম করছে না। এখন কাহিনী হচ্ছে, কম্পিউটার নেটওয়ার্ক যেভাবে কাজ করে তার অনুসারে কখনোই একই লেটেন্সি পাওয়া সম্ভব নয়, এটা অবশ্যই পরিবর্তনশীল। সাথে নেটওয়ার্ক কতোবড় এবং আপনার সাইটের ভিজিটর গুলো কোন দেশের তার উপর নির্ভর করে আপনি পারফর্মেন্স পাবেন। আমি সকল লোকেশন থেকে বেটার রেসপন্স টাইম পাওয়ার জন্য শেয়ার্ড হোস্টিং এর সাথে ক্লাউডফ্লেয়ার ইউজ করতে রেকমেন্ড করবো।

এবার কথা বলি সাইট ফুল লোডিং টাইম নিয়ে। যদিও একটা বেশির ভাগই নির্ভর করে আপনার অপটিমাইজেশন ম্যাথড এর উপরে। আপনি ভালো অপ্টিমাইজ করতে পারলে সাইট দ্রুত রেন্ডার হবে এটাই স্বাভাবিক। সাথে অবশ্যই থিম নির্বাচন অনেক বড় ভূমিকা পালন করে। যাইহোক, আমি GTmetrix এ ৯৯% পেজ স্পীড স্কোর পেয়েছি এবং Pingdom Tools থেকে ৯৬ গ্রেড অর্জন করেছি। সাইট ফুল লোডিং টাইম ছিল মোটামুটি ~৪০০ মিলি সেকেন্ডের মধ্যে। তবে আপনাকে জানিয়ে রাখি, একটি সম্পূর্ণ ফ্যাংশনাল সাইট এতো দ্রুত লোড নেওয়ানো সম্ভব হবে না। তাছাড়া অ্যাডস ইউজ করলে অবশ্যই পেজ লোডিং টাইম দেরি হবে কিছুটা। তাছাড়া আমার টেস্টিং সাইটে একেবারেই বেসিক থিম ইউজ করা হয়েছে।

এখন, আপনি যদি প্রশ্ন করেন, কিভাবে তারা এতো ভালো স্পীড প্রদান করেন, তো এর উত্তর অ্যাডমিন উপরের প্যারাগ্রাফেই প্রদান করে দিয়েছেন। আর আমার টেস্ট অনুসারে এদের স্পীড এবং রেসপন্স টাইমকে A+ দেওয়ায় যায়। তারপরেও বলবো, শেয়ার্ড হোস্টিং কিন্তু শেয়ার্ড হোস্টিংই, কখনোই এর সাথে ডেডিকেটেড বা ভিপিএস হোস্টিং এর তুলনা করবেন না।

দ্রুত কাস্টমার সাপোর্ট

এক্সেলনোড আমাকে পূর্বেই পরিস্কার করে দিয়েছিল তারা ছোট প্যাক আর বড় প্যাক হিসেবে কাস্টমার বাছাবাছি করেন না। আপনি ১০০ টাকার সার্ভিস গ্রহণ করেন আর হাজার টাকার, যখন সাপোর্টের প্রশ্ন আসবে এক্সেলনোড সাপোর্ট টীম আপনাকে সেরা সাপোর্ট প্রদান করারই চেষ্টা করবে। যেহেতু ২০১০ সাল থেকে প্রায় ওয়েবসাইট তৈরি করে আসছি, তাই অনেক ওয়েব হোস্টিং ইউজ করেছি এবং অনেকের সাপোর্ট খেয়াল করেছি। অনেকে শেয়ার্ড হোস্টিং কাস্টমারদের কাস্টমার মনেই করেন না।

বাট আমি অনেকটা নিশ্চিত করেই বলতে পারি এক্সেলনোড এই দিক থেকে সম্পূর্ণই আলাদা। আমি যতোবারই কল সাপোর্ট নেওয়ার চেষ্টা করেছি অলমোস্ট ইনস্ট্যান্ট আমার কল রিসিভ হয়েছে। তবে এক্সেলনোড সাপোর্ট পোর্টাল ইউজ করার রেকোমেন্ড করে। আর আমি সেটাও চেক করে দেখেছি। আমার অভিজ্ঞতা অনুসারে মোটামুটি ৩০ মিনিটের মধ্যে আপনার সাথে সাপোর্ট টিম যোগাযোগ করবেন। তবে এক্সেলনোড থেকে আমাকে বলা হয়েছে সর্বচ্চ ১ ঘণ্টা পর্যন্ত দেরি হতে পারে।

তবে অবশ্যই এটা ইন্টারনেট, মানে এখানে সময়ের সবচাইতে বেশি মূল্য রয়েছে। তাই অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ মামলা থাকলে সাপোর্ট টিকিট সাবমিট করে এক্সেলনোডকে ফোন করে আরো দ্রুত সাপোর্ট পেতে পারবেন। তাছাড়া এরা ৩৬৫/২৪/৭ সাপোর্ট অঙ্গীকার করে থাকেন, মানে ছুটির দিনেও আপনি ডেডিকেটেড সাপোর্ট পাবেন বলে এরা দাবি করে।

সেরা আপটাইম

সাইট এক মিনিটের জন্য ডাউন থাকলে লস হতে পারে হাজার হাজার টাকা। আমি নিজে থেকে এক্সেলনোডের আপটাইম পরীক্ষা করতে পারিনি, কেননা এটা এক দিনের পরীক্ষার জিনিষ নয়। আমাকে কমপক্ষে ৩ মাস পরীক্ষা করতে হবে, তবেই আমার পরীক্ষা করা রেজাল্ট প্রদান করতে পারবো।

আমি এক্সেলনোডকে আপটাইমের ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করি, তিনি উত্তর করেন, “শেয়ার্ড হোস্টিং এর ক্ষেত্রে তারা মূলত ৯৯.৯০% আপ টাইমের নিশ্চয়তা প্রদান করে থাকে, এবং ভার্চুয়াল সার্ভার হোস্টিং ও ডেডিকেটেড হোস্টিং ৯৯.৯৯% আপটাইম নিশ্চয়তা প্রদান করেন”। আর হ্যাঁ, ভার্চুয়াল সার্ভার হোস্টিং ও ডেডিকেটেড হোস্টিং এ অনাকাঙ্ক্ষিত ডাউন টাইম প্রমাণিত হলে তারা ডাউন টাইমের টাকা ফেরত দেওয়ার অঙ্গীকার করেন। যেটা আমার কাছে বেশ পাকাপোক্ত একটি ব্যাপার মনে হয়েছে।

সাশ্রয়ী মূল্য

কথায় রয়েছে, এক সস্তার তিন অবস্থা। আমি এক সস্তার বারো অবস্থাও দেখেছি। কিন্তু যদি সস্তা আর কোয়ালিটি এক সাথে পেয়ে যান, তাহলে কিন্তু পূর্বের প্রবাদ আর কাজে লাগে না। এক্সেলনোডের শেয়ার্ড হোস্টিং প্ল্যান $1.95/মাস থেকে শুরু, আপনি এখান থেকে শেয়ার্ড হোস্টিং প্ল্যান গুলো এক্সপ্লোর করতে পারবেন। তবে ওয়্যারবিডির পাঠকদের জন্য বিশেষ এক ছাড় রয়েছে, আপনি প্রথম অর্ডারে “WIREBD” প্রমো কোডটি ব্যবহার করলে যেকোনো শেয়ার্ড হোস্টিং প্ল্যানে সাথে সাথে ৫০% ডিস্কাউন্ট পেতে পারবেন!

আমি পূর্বেই বলেছি, অনেক হোস্টিং কোম্পানিই অনেক কমদামে শেয়ার্ড হোস্টিং প্রদান করতে পারে, কিন্তু পারফর্মেন্স এবং সাপোর্ট কেমন পেতে পারবেন সেটার নিশ্চয়তা পাওয়া মুশকিল। আপনি চাইলে মোটামুটি ~১০০০/বছর টাকার মতো খরচ করে আপনার প্রথম ওয়েবসাইটটি হোস্ট করে ফেলতে পারবেন। আর ডেডিকেটেড সাপোর্ট তো থাকছেই!

বহুমুখী পেমেন্ট ম্যাথড সুবিধা

অনেকের শুধু একটি ইন্টারন্যাশনাল ক্রেডিট/ডেবিট কার্ড না থাকার কারণে বাইরের দেশ থেকে ডোমেইন হোস্টিং কিনতে পারেন না। সত্যি বলতে বাংলাদেশের জন্য কার্ড পাওয়া অনেক ঝামেলার কাজ। এই কারণেই বাংলাদেশি হোস্টিং ব্যবহার করেন অনেকেই, কেননা এতে মোবাইল ব্যাকিং ব্যবহার করে হোস্ট বিল পে করা যায়। কিন্তু এতেও অনেক প্যারায় পড়তে হয় অনেক কাস্টমারদের। কেননা বেশিরভাগ হোস্টিং কোম্পানি ম্যানুয়ালভাবে বিল হ্যান্ডেল করেন। ফলে বিল সেন্ড করার পরে এবং সার্ভিস একটিভ হতে খানিকটা সময় লেয়ে যেতে পারে।

এক্সেলনোড এই দিক থেকে ভালোই প্রফেশনাল। এদের পেমেন্ট গেটওয়ে রয়েছে, মানে আপনি বহুমুখী পেমেন্ট ম্যাথড ইউজ করে এক্সেলনোড থেকে প্রোডাক্ট ক্রয় করতে পারবেন এবং সবকিছু স্বয়ংক্রিয় কাজ করবে, কোন ম্যানুয়াল ভেরিফিকেশনের মুখে পড়তে হবে না।

আপনি বিকাশ, রকেট, ইন্টারনেট ব্যাংকিং, মাস্টারকার্ড, ভিসা কার্ড — প্রায় সকল সম্ভাব্য ম্যাথড ইউজ করেই পে করতে পারবেন। আর বিশ্বাস করুণ, এটা অনেক আরামদায়ক। আপনার সার্ভিস গুলো কিনতে বা রিনিউ করতে মোটেও করো সাথে ম্যানুয়াল যোগাযোগ করতে হবে না, জাস্ট পে করে দিলেন, অটো সার্ভিস একটিভ বা রিনিউ হয়ে যাবে। দেশীয় কোম্পানি হিসেবে সত্যিই এটি অনেক বড় সুবিধা।

বাংলাদেশী সার্ভার লোকেশন

আপনার সাইটি কি বাংলাদেশী ভিজিটরদের টার্গেট করে তৈরি করা? তাহলে বাংলাদেশী সার্ভার লোকেশনের চেয়ে বেটার কোন সলিউশন আর হতেই পারে না। অনেক কম হোস্টিং প্রভাইডার রয়েছে যারা বাংলাদেশে অবস্থিত সার্ভার প্রদান করে। এক্সেলনোড বিডিআইএক্স কানেক্টেড ভিপিএস সার্ভার সেল করে থাকে, বিডিআইএক্স নিয়ে আর টেকনিক্যাল টার্ম খুলতে যাবো না। শুধু এটুকু জানুন, এটার কানেক্টিভিটি থাকলে দেশের বেশিরভাগ ব্রডব্যান্ড ইউজারদের কাছে আপনার সাইট পানির মতো স্পীডে লোড হবে (যদিও এটি নির্ভরশীল আপনার অপ্টিমাইজেশনের উপরে)।

আর হ্যাঁ, এক্সেলনোড কিন্তু একেবারেই বিগেনার ফ্রেন্ডলি, মানে অনেক ওয়েব অ্যাপ মাত্র কয়েক ক্লিকেই আপনি তাদের সার্ভারে ইন্সটল করে ফেলতে পারবেন। আপনাকে মোটেও টেকনিক্যাল ব্যাক্তি হতে হবে না। যেহেতু তাদের হোস্টিং প্যানেল সি-প্যানেলে তৈরি, তাই সি-প্যানেল নিয়ে আপনার পূর্বের অভিজ্ঞতা থাকলে এক্সেলনোড কন্ট্রোল করা আপনার বাম হাতের খেল হতে পারে।

এক্সেলনোডের কিছু ডাউন সাইড

আমি আবারো বলছি, আমার টেস্ট অনুসারে এক্সেলনোড সত্যিই অনেক ফাস্ট, সিকিউর, এবং সাশ্রয়ী হোস্টিং কোম্পানি। তাছাড়া এরা আচানক দাম বাড়িয়ে আপনাকে চমকে দেবে না। তবে দুনিয়ার কোন কোম্পানিই পারফেক্ট নয়, সুতরাং এক্সেলনোডেরও কিছু ডাউন সাইড রয়েছে, চলুন দেখে নেওয়া যাক…

এক্সেলনোডের চ্যাট সাপোর্ট রয়েছে, কিন্তু সেখানে এদের খুব বেশি অনলাইন পাওয়া যায় না। যদিও এদের কল সাপোর্ট এবং সাপোর্ট পোর্টাল অনেক পাওয়ারফুল, তারপরেও এগুলোর মতো চ্যাট সাপোর্ট উন্নত করার দরকার ছিল।

শেয়ার্ড হোস্টিং প্ল্যান গুলো অনেক সাশ্রয়ী এবং আকর্ষণীয় তবে কোন প্ল্যানে কতোটুকু র‍্যাম বা সিপিইউ দেওয়া হয়েছে সেটা উল্লেখ্য নেই (যদিও অনেক কোম্পানিই শেয়ার্ড হোস্টিং এ এগুলো উল্লেখ্য করে না)। তবে এখানে একটি বেটার ব্যাপার হচ্ছে, এক্সেলনোডের সবচাইতে কম দামের প্ল্যান কিনেও আপনি আনলিমিটেড ওয়েবসাইট হোস্ট করতে পারবেন, যেটা অনেক নামী কোম্পানি গুলোও আপনাকে অফার করে না।

স্পেশাল অফার!!!

এক্সেলনোড হোস্টিং এ বর্তমানে কিছু বিশেষ অফার চলছে। এরা ডোমেইন এবং হোস্টিং এর উপরে কিছু এক্সক্লুসিভ ডীল প্রদান করছেন, হতে পারে আপনার জন্য যা একেবারেই বাজেট ফ্রেন্ডলি। বিশেষ করে ওয়্যারবিডি পাঠকগন তাদের প্রথম অর্ডারে “WIREBD” প্রমো কোডটি ব্যবহার করে ৫০% পর্যন্ত ডিস্কাউন্ট পেতে পারবেন (শুধু শেয়ার্ড হোস্টিং এর  ক্ষেত্রে প্রযোজ্য)।

তাছাড়া টপ লেভেল ডোমেইন এক্সটেনশন .Com এবং .Net ডোমেইন প্রথম বছরের জন্য কিনতে পারবেন মাত্র ৩৪৯ টাকায়। সাথে .xyz ডোমেইন কিনতে পারবেন ৯৫ টাকায় প্রথম বছরের জন্য।

তবে এই স্পেশাল রেটে ডোমেইন কেনার জন্য কোন প্রমো কোড ইউজ করার প্রয়োজন নেই। আর হোস্টিং এর ক্ষেত্রে অবশ্যই প্রমো কোড ইউজ করতে হবে। আপনি মাসিক বা বাৎসরিক দুই টার্মেই হোস্টিং কিনতে পারবেন, তবে বেস্ট সাশ্রয় করতে পুরো বছরের জন্য হোস্টিং প্ল্যান কেনা বেস্ট হবে।

আর হ্যাঁ, প্রমো কিন্তু ইউজার এবং পারচেজ হিসেবে লিমিটেড। শুধু প্রথম বছর অফারের মূল্য প্রযোজ্য হবে, তারপরে রেগুলার দামে প্যাক রিনিউ করতে হবে।

এক্সেলনোড হোস্টিং ফিচার

আমি এই রিভিউতে মূলত এক্সেলনোডের শেয়ার্ড হোস্টিং নিয়ে আলোচনা করেছি। কিন্তু এক্সেলনোড হোস্টিং কোম্পানি আরো অনেক সার্ভিস ও ফিচার প্রদান করে থাকে। এদের সার্ভিস ও ফিচার গুলো নিচে সংক্ষিপ্ত আকারে প্রদান করা হলো।

ফিচারঃ—

  • মার্কেট সেরা পারফর্মেন্স
  • এসএসডি পাওয়ার্ড সার্ভার
  • হাই কোয়ালিটি সাপোর্ট
  • বেস্ট আপটাইম
  • কাস্টমার পরিতৃপ্তিতে বিশ্বাসী

সার্ভিসঃ—

  • ডোমেইন
  • শেয়ার্ড হোস্টিং
  • ভার্চুয়াল সার্ভার
  • ডেডিকেটেড সার্ভার
  • ক্লাউড হোস্টিং
  • ইমেইল হোস্টিং
  • মার্কেটিং টুলস

যোগাযোগ

এক্সেলনোড ওয়েবসাইট থেকে লাইভ চ্যাটের মাধ্যমে এদের সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন, তবে বেস্ট হয় সরাসরি কল করা। এক্সেলনোডের হটলাইন হচ্ছে; +880 1943 589 447 — যেখানে আমি ২৪/৭ কল সাপোর্ট পাবেন বা কিছু কেনার পূর্বে জিজ্ঞাসার জন্য কল করতে পারবেন।
তাছাড়া এই ফর্ম পুরন করে আপনি তাদের মেইল সেন্ড করতে পারবেন। কেনার পূর্বে বিস্তারিত সকল প্রশ্ন বিস্তারিত করে লিখে এক্সেলনোডকে সেন্ড করতে পারবেন। তাছাড়া আপনি ফেসবুক পেজের মাধ্যমেও এক্সেলনোডের সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন। যেকোনো প্রয়োজনে বিন্দু মাত্র লজ্জা না করে সাথে সাথে কল করতে পারেন তাদের হটলাইন নাম্বারে।

 

এক্সেলনোডকে এক্ষুনি কল করুণ!

আমরা কি এক্সেলনোড রেকোমেন্ড করছি?

হ্যাঁ! — নিঃসন্দেহে!

আমার দেখা মতে এক্সেলনোড এমন একটি কোম্পানি যারা লোভনীয় অ্যাডস তৈরিতে ব্যাস্ত না থেকে ফাস্ট সার্ভার এবং ডেডিকেটেড সাপোর্ট প্রদান করার চেষ্টা করছে। আরে ভাই, স্পনসর্ড কন্টেন্ট বলে যে গলা ফাটিয়ে সুনাম গাইছি সেটা মোটেও ধরে নেবেন না। আমি এদের সার্ভার ট্রায় করেই রিভিউ লিখতে বসেছি।

এদের কাজের মধ্যে ডেডিকেশন খেয়াল করেছি, তাই আপনাদের সামনে উপস্থান করা। আপনার ফাস্ট, সিকিউর, এবং বিগেনার ফ্রেন্ডলি হোস্টিং প্রয়োজনীয়, যেখানে প্রায় যেকোনো টাইপের ওয়েবসাইট হোস্ট করতে চান? — তাহলে এক্সেলনোডকে একবার ট্রায় করে দেখতে পারেন। আমার মনে হয়না আপনি নিরাশ হবেন। তবে হ্যাঁ, আপনি গ্রাহক, তাই অবশ্যই আরো দুই চারটে কোম্পানি যাচায় করেই তবেই কিনবেন। এক নিঃশ্বাসে কিনে ফেলতে মোটেও রেকোমেন্ড করবো না!


WiREBD এখন ইউটিউবে, নিয়মিত টেক/বিজ্ঞান/লাইফ স্টাইল বিষয়ক ভিডিও গুলো পেতে WiREBD ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুণ! জাস্ট, youtube.com/wirebd — এই লিংকে চলে যান এবং সাবস্ক্রাইব বাটনটি হিট করুণ!

ExelNode.Com ভিজিট করুণ

আপনি কি এক্সেলনোড ব্যবহার করেছেন? আপনার অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে পারেন কমেন্ট করে!

তাহমিদ বোরহান
প্রযুক্তির জটিল টার্মগুলো কি আপনাকে বিভ্রান্ত করছে? কিছুতেই কি আপনার মস্তিষ্কে পাল্লা পড়ছে না? তাহলে বন্ধু, আপনি এবার সঠিক জায়গায় এসেছেন—কেনোনা এখানে আমি প্রযুক্তির সকল জটিল বিষয় গুলো ভাঙ্গিয়ে সহজ পানির মতো উপস্থাপন করার চেষ্টা করি, যাতে সকলে সহজেই সকল টেক টার্ম গুলো বুঝতে পারে।