নতুন ক্লাউড গেমিং সার্ভিস নিয়ে কাজ করছে অ্যামাজন

অ্যামাজন, পৃথিবীর সবথেকে বড় ই-কমার্স এবং অন্যতম ক্লাউড কম্পিউটিং ইন্ডাস্ট্রি, এবার কাজ করতে চাইছে গেম স্ট্রিমিং নিয়ে। না, এখানে সেই ধরনের গেম স্ট্রিমিং এর কথা বলা হচ্ছে না, যেখানে অন্য কেউ গেমস খেলে এবং আপনি ভিডিওতে তার গেমপ্লে দেখেন। অ্যামাজন মুলত ক্লাউড গেমিং নিয়ে কাজ করতে চলেছে, যেখানে আপনি বাড়িতে বসেই ইন্টারনেটের মাধ্যমে ক্লাউড কম্পিউটিং টেকনোলজি ব্যাবহার করে নিজেই যেকোনো গেম খেলতে পারবেন।

অ্যামাজন গেমারদের জন্য কাজ করছে, এটা এই প্রথম নয়। পৃথিবীর সবথেকে বড় গেম স্ট্রিমিং সার্ভিস/সোশ্যাল মিডিয়া Twitch এর মালিকও অ্যামাজন। তবে ক্লাউড গেমিং নিয়ে অ্যামাজনের এটা প্রথম ইনিশিয়েটিভ। তবে অ্যামাজন ক্লাউড গেমিং নিয়ে কাজ করছে, সেটা অফিসিয়ালি অ্যামাজন কোথাও অ্যানাউন্স করেনি। কিছু ইন্ডেপেন্ড সোর্সের রিপোর্ট থেকে জানা যায় এই ইনফরমেশনটি। তাছাড়া অ্যামাজন তাদের জবস পেজে নতুন দুটি জব পোস্টের অপশন রেখেছে যার টাইটেল Cloud Gaming Engineer। এর থেকে নিশ্চিতভাবেই ধারনা করা যায়, অ্যামাজন এবার ক্লাউড গেমিং সার্ভিস নিয়ে কাজ করতে চলেছে।

অ্যামাজন পৃথিবীর ওয়ান অফ দ্যা বেস্ট ক্লাউড কোম্পানি। তাই ক্লাউড গেমিং সার্ভিস ডেভেলপ করা তাদের জন্য তেমন কোন কঠিন এবং ব্যায়বহুল হবে না। আনঅফিসিয়াল রিপোর্টগুলো থেকে জানা যায়, ২০২০ সালের মধ্যেই অ্যামাজন তাদের ক্লাউড গেমিং সার্ভিস কনজিউমার এবং স্পেশালি গেমারদের জন্য পাবলিকলি রিলিজ করে দিতে পারে।


WiREBD এখন ইউটিউবে, নিয়মিত টেক/বিজ্ঞান/লাইফ স্টাইল বিষয়ক ভিডিও গুলো পেতে WiREBD ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুণ! জাস্ট, youtube.com/wirebd — এই লিংকে চলে যান এবং সাবস্ক্রাইব বাটনটি হিট করুণ!

অ্যামাজন ক্লাউড গেমিং সার্ভিস চালু করলে তা আরও কয়েকটি গেমিং ইন্ডাসট্রির কাছে চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়াতে পারে। যেমন- Nvidia Geforce Now, Microsoft XCloud, Google Yeti বর্তমানে অনেক বড় এবং অনেক সম্ভাবনাময় ক্লাউড গেমিং প্রোজেক্ট। অ্যামাজন এর ক্লাউড গেমিং সার্ভিস এসব জনপ্রিয় প্রোজেক্টগুলোকে কতোটা চ্যালেঞ্জ করতে পারবে তা নির্ভর করবে অ্যামাজন এর ক্লাউড গেমিং সার্ভিসের পারফরমেন্স এবং মেইনলি সার্ভিসটির প্রাইসিং এর ওপরে।