টেক নিউজ

শাওমি রেডমি নোট ৭ : ৪৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা!

1

গত বছরের শেষের দিকেই শাওমির প্রেসিডেন্ট Lin Bin তাদের আপকামিং একটি ডিভাইস টিজ করেছিলেন যেটাতে থাকবে ৪৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। ৪৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরার কথা শুনেই অনেকেই ধারনা করেছিলেন যে, এটা শাওমির আরেকটি ফ্ল্যাগশিপ লাইনআপের ডিভাইস হতে চলেছে। কিন্তু না, তেমন কিছুই করেনি শাওমি। আজ শাওমি অ্যানাউন্স করেছে তাদের মিড বাজেট রেডমি নোট লাইনআপের পরবর্তী  ডিভাইস, রেডমি নোট ৭ যেটিতে থাকছে ৪৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা।

ডিজাইনের দিক থেকে রেডমি নোট ৭ ডিভাইসটি শাওমির লো বাজেট স্মার্টফোন, মি প্লে এর মতো, যেটি একটি বাজেট স্মার্টফোন যা শাওমি কয়েক সপ্তাহ আগে রিলিজ করেছিলো। মি প্লে এর মতোই রেডমি নোট ৭ এ থাকছে একটি ওয়াটার ড্রপ নচ। ব্যাক প্যনেলে কয়েক ধরনের কালারফুল গ্র্যাডিয়েন্ট ফিনিশ দেখা যাবে। তাছাড়া ফোনের ব্যাক প্যানেলে আছে রিয়ার মাউন্টেড ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর এবং ডুয়াল রিয়ার ক্যামেরা সেটাপ, যার একটি ৪৮ মেগাপিক্সেল সেন্সর এবং এফ ১.৮ অ্যাপারচারযুক্ত এবং দ্বিতীয়টি একটি ৫ মেগাপিক্সেলের ডেপ্ট সেন্সিং ক্যামেরা। আর ফ্রন্টে থাকছে ১৩ মেগাপিক্সেল রিয়ার ক্যামেরা।

শাওমির ভাষ্যমতে, এই ফোনটির প্রাইমারি রিয়ার ক্যামেরা ভালো লাইটিং কন্ডিশনে এর ৪৮ মিলিয়ন ছোট ছোট ০.৮ মাইক্রন পিক্সেলগুলো ব্যাবহার করে ছবি ক্যাপচার করতে পারে, যার ফলে এই প্রাইস রেঞ্জের অন্যান্য প্রায় সব স্মার্টফোনের থেকে অনেক বেটার পিকচার প্রোভাইড করতে পারে। তাছাড়া এই ফোনটির প্রাইমারি রিয়ার ক্যামেরা সেন্সরটি ফিজিক্যালিও অন্যান্য স্মার্টফোন ক্যামেরার থেকে কিছুটা বড়। তবে টেকনিক্যাল স্পেসিফিকেশন এবং মেগাপিক্সেলই সবকিছু নয়। তাই এই ফোনটির ক্যামেরা রিয়াল লাইফ ইউজেসে কেমন পারফরমেন্স দেবে সে বিষয়ে নিশ্চিতভাবে কিছুই বলা যায়না।

এছাড়া রেডমি নোট ৭ এ থাকছে ৬.২ ইঞ্চির ফুল এইচডি স্ক্রিন, যার অ্যাসপেক্ট রেশিও ১৯.৫ঃ৯। প্রোসেসর হিসেবে থাকছে স্ন্যাপড্রাগন ৬৬০, যা এখনো পর্যন্ত মিড বাজেটের বেস্ট প্রোসেসর। সবথেকে ভালো ব্যাপার হচ্ছে, মিড বাজেটের স্মার্টফোন হওয়ার পরেও রেডমি নোট ৭ এ ব্যাবহার করা হ্নয়েছে ইউএসবি টাইপ সি এবং একইসাথে একটি ডেডিকেটেড ৩.৫ এমএম হেডফোন জ্যাক। এই ফোনটি দুটি ভ্যারিয়েন্টে পাওয়া যাবে যার একটি হচ্ছে ৩/৩২ এবং ৬/৬৪ (র‍্যাম/স্টোরেজ)।

রেডমি নোট ৭ প্রথমত চায়নাতেই এভেইলেবল হবে এবং পরবর্তীতে ইন্ডিয়া এবং গ্লোবাল মার্কেটেও রিলিজ করা হতে পারে ডিভাইসটি। এটির ৩/৩২ ভার্সনটির প্রাইস ৯৯৯ ইউয়ান যা ১৫০ ইউএস ডলারের (প্রায় ১২,৫০০ টাকা) সমান এবং ৬/৬৪ ভার্সনটির প্রাইস ১৩৯৯ ইউয়ান যা ২০০ ইউএস ডলারের ( ১৬,৬৫০ টাকা) সমান। তবে বাংলাদেশের মার্কেটে এভেইলেবল হলে ফোনটির দাম এর থেকে কিছুটা বেশি হবে বলেই আশা করা যায়।

ওয়্যারবিডি নিউজ

স্মার্ট ফ্রিজ, স্মার্ট টুথব্রাশের পরে এবার স্মার্ট আয়না!

Previous article

সৌরজগতের অন্যান্য গ্রহ গুলোতে কতক্ষণ বেঁচে থাকা সম্ভব?

Next article

You may also like

1 Comment

  1. এত কম দাম? ক্যামেরা অনুযায়ী তো দাম ২৫ হাজার এর উপর হতে পারে।

Leave a reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *