বর্তমান তারিখ:23 August, 2019

২০১৮ সালের সেরা ১০ টি ফ্রি অ্যান্টিভাইরাস!

কম্পিউটার ব্যবহার করেন কিন্তু অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহার করেন না এরকম লোক বর্তমানে খুবই কম রয়েছে। বিশেষ করে উইন্ডোজ ১০ আসার পর এখন আপনি না চাইলেও “বাধ্যতামূলকভাবে” উইন্ডোজ ডিফেন্ডার বা উইন্ডোজ সিকুরিটি সেন্টার চালু করা থাকবে। ভাইরাস এবং ম্যালওয়্যার থেকে আমাদের পিসিকে নিরাপদ ও সুরক্ষিত রাখতে আমরা অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার ব্যবহার করে থাকি। প্রাইসের দিক থেকে এই অ্যান্টিভাইরাসকে দুই ভাগে বিভক্ত করা যায়, এগুলো হচ্ছে ফ্রি অ্যান্টিভাইরাস এবং পেইড অ্যান্টিভাইরাস।

ফ্রি অ্যান্টিভাইরাসের থেকে পেইড অ্যান্টিভাইরাসে ফিচারের সংখ্যা বেশি থাকে। তবে আমাদের মতো অধিকাংশ “হোম ইউজার”দের জন্য ফ্রি অ্যান্টিভাইরাসই যথেষ্ট। কিন্তু যারা যারা করর্পোরেট ইউজার রয়েছেন মানে অফিসে কিংবা ব্যবসায় ক্ষেত্রে পিসিতে পেইড অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহার করাই শ্রেয়। কারণ করর্পোরেট কম্পিউটারগুলোতে কোম্পানির বিভিন্ন সেন্সিটিভ ডাটা থাকে যেগুলো চুরি হয়ে গেলে আর্থিক এবং অনান্য ক্ষতির সম্ভাবনা থাকে।

হোম ইউজারদের জন্য ফ্রি অ্যান্টিভাইরাসই যথেষ্ট। কিন্তু যেকোনো ফ্রি অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহার করার আগে সেটা সম্পর্কে ইন্টারনেটে  একটু গবেষনা করা উচিত। কারণ অনেক ফ্রি অ্যান্টিভাইরাসে বিভিন্ন বিজ্ঞাপন (এড) অন্তভুর্ক্ত করা থাকে যেগুলো হঠাৎ হঠাৎ আমাদের কম্পিউটারের সামনে চলে আসে। যারা যারা উইন্ডোজ ১০ এর জেনুইন ভার্সন ব্যবহার করেন তাদের জন্য আলাদা করে কোনো অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহার করার  প্রয়োজন হয় না, কারণ উইন্ডোজ ১০ এর সাথে আপনি মাইক্রোসফটের অ্যান্টিভাইরাস “Windows Defender / Windows Security Center” পেয়ে যাচ্ছেন।

তবে যারা যারা আগের সংস্করণের উইন্ডোজ ব্যবহার করেন এবং যারা যারা কোন ফ্রি অ্যান্টিভাইরাসটি ব্যবহার করবেন যেটা নিয়ে চিন্তিত রয়েছেন তাদের জন্যেই আমার আজকের এই পোষ্ট। আজকের পোষ্টে আমি আপনাদের সাথে এ বছরের সেরা ১০টি ফ্রি অ্যান্টিভাইরাস নিয়ে আলোচনা করবো। চলুন দেখে নেই কোন কোন অ্যান্টিভাইরাস আপনি ফ্রিতেই ব্যবহার করতে পারবেন:

AVAST Free Antivirus

ফ্রি অ্যান্টিভাইরাসের কথা বললে সবার আগে বলতে হয় অ্যাভাস্ট অ্যান্টিভাইরাসের কথা। বিশ্বের অন্যতম সবথেকে জনপ্রিয় ফ্রি অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার হচ্ছে অ্যাভাস্ট। বেসিক অ্যান্টিভাইরাসের বেস্ট প্রটেক্টশন আপনি পাবেন অ্যাভাস্ট থেকে। এছাড়াও ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বরে কোম্পানিটি AVG টেকনোলজিকে কিনে নিয়েছে, তাই এখন আপনি AVG এবং AVAST এই দুটি অ্যান্টিভাইরাসের সমন্নিত রূপ পাবেন অ্যাভাস্টেই। অ্যাভাস্ট অ্যান্টিভাইরাসের ফ্রি সংষ্করণে আপনি পাবেন ভাইরাস এবং ম্যালওয়্যার থেকে প্রটেক্টশন, পাবেন ওয়াই ফাই সিকুরিটি স্ক্যান এবং পাসওর্য়াড স্টোরেজ ভল্ট যেখানে আপনার ব্রাউজারের সকল সাইটের পাসওর্য়াডকে সুরক্ষিতভাবে সংরক্ষণ করে রাখতে পারবেন। এই ফিচারগুলো একজন সাধারণ হোম ইউজারের জন্য যথেষ্ট। নিয়মিত আপডেট ছাড়াও সহজে ব্যবহারযোগ্য ইউজার ইন্টারফেস থাকায় এই অ্যাভাস্ট ফ্রি অ্যান্টিভাইরাসটি অনেকেই ব্যবহার করেন। খুবই কম রিসোর্স খায় বিধায় অ্যান্টিভাইরাসটি ২ গিগাবাইট র‌্যামের পিসিতেও আপনি ব্যবহার করতে পারবেন।

Microsoft Security Essentials

মাইক্রোসফট সিকিউরিটি এসেনশিয়াল নিয়ে নতুন করে কিছু বলার নেই। যারা এখনো উইন্ডোজ ৭ কিংবা ৮ ব্যবহার করেন তারা এই অ্যান্টিভাইরাসকে আলাদাভাবে ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। কিন্তু যারা উইন্ডোজ ১০ ব্যবহার করেন তাদের জন্য মাইক্রোসফট এই অ্যান্টিভাইরাসকে বিল্ট ইন ভাবে দিয়ে দিয়েছে এবং এর নাম পরিবর্তন করে উইন্ডোজ ডিফেন্ডার রাখা হলেও সম্প্রতি এর পুনরায় নামকরণ করা হয় Windows Security Center নামে। তাই বলা চলে যে উইন্ডোজ ১০ ব্যবহার করলে আলাদা করে কোনো ফ্রি অ্যান্টিভাইরাসের প্রয়োজন নেই।

তবে আলাদা ইন্টারনেট সিকুরিটি আপনি চাইলে ব্যবহার করতে পারেন। উইন্ডোজ ৭ অপারেটিং সিস্টেম এই অ্যান্টিভাইরাসটি Microsoft Security Essentials নামে রয়েছে, উইন্ডোজ ৮ / ৮.১ অপারেটিং সিস্টেমের অ্যান্টিভাইরাসটি রয়েছে Windows Defender নামে এবং উইন্ডোজ ১০ এর ২০১৮ এপ্রিল আপডেট থেকে অ্যান্টিভাইরাসটি উইন্ডোজ সিকুরিটি সেন্টার নামে রয়েছে। উইন্ডোজ ৭ ও ৮ / ৮.১ অপারেটিং সিস্টেমে অ্যান্টিভাইরাসকে আলাদাভাবে আপডেট দেওয়ার প্রয়োজন হলেও উইন্ডোজ ১০ য়ে একে আলাদাভাবে আপডেট দেওয়ার প্রয়োজন হয় না; কারণ উইন্ডোজ আপডেটের সাথেই এই অ্যান্টিভাইরাসের ডেফিনেশন ও ইঞ্জিণ আপডেট হয়ে থাকে।

AVG Free Antivirus

অ্যাভাস্টের পরেই যে ফ্রি এন্টিভাইরাসের নাম আসে তা হলে AVG । আর আগেই বলেছি যে এখন আপনি AVAST ও AVG এর ডেভেলপারদের একসাথেই পাচ্ছেন তাই এই দুটি অ্যান্টিভাইরাসের প্রটেক্টশন লেভেলও খুব আপগ্রেড হয়েছে। AVG এর ফ্রি অ্যান্টিভাইরাসের আপনি পাবেন ভাইরাস, স্পাইওয়্যার, র‌্যানসমওয়্যার এবং অনান্য ম্যালওয়্যার থেকে প্রক্টেশন। পাবেন ব্রাউজারের অসুরক্ষিত লিংকস, ডাউনলোডও এবং ইমেইল এটাচমেন্ট রিয়েল টাইমে স্ক্যান করার ফিচার। পাবেন পিসি পারফরমেন্স ট্রাবলশুট করার ফিচার আর নিয়মিত আপডেট তো থাকছেই।

Avira Free Antivirus

আরেকটি টপ ক্লাস ফ্রি অ্যান্টিভাইরাস হচ্ছে Avira Free Antivirus । Avira Free Antivirus আপনার পিসিকে বিভিন্ন ধরণের ভাইরাস ইনফেক্টশন, ট্রোজান, স্পাইওয়্যার, এডওয়্যার এবং বিভিন্ন ধরণের ম্যালওয়্যার থেকে সুরক্ষিত রাখে। একটি কমপ্লিট অ্যান্টি-ম্যালওয়্যার হিসেবে আপনি ব্যবহার করতে পারে Avira Free Antivirus কে। অ্যান্টিভাইরাসটি উইন্ডোজ ১০ থেকে এক্সপি পর্যন্ত সার্পোট করে যদিও এক্সপি এখন অফিসিয়ালি ডেড!

একটি ফ্রি অ্যান্টিভাইরাইসে যা যা থাকা দরকার তার সবই Avira Free Antivirus য়ে রয়েছে, প্লাস বোনাস হিসেবে আপনি পাচ্ছেন বিভিন্ন এড-অনস। অ্যান্টিভাইরাসটি ইন্সটলের সময় আপনি অতিরিক্ত বিভিন্ন এড-অনসও এর সাথে ইন্সটল করে নিতে পারবেন; যেমন প্রাইভেসি ভিক্তিক ওয়েবব্রাউজার, ভিপিএন ইত্যাদি। তবে Avira Free Antivirus টি নিজের মতো করে কাস্টমাইজেশন করাটা একটু কঠিন হবে। কিন্তু মনে রাখা দরকার যে Avira Antivirus 2019 টি AV-Test Top Product Award টি জয় করে নিয়েছে।

Bitdefender Free Antivirus

ফ্রি অ্যান্টিভাইরাসের লিস্টে Bitdefender এর কথা না বললেই নয়। কারণ এই অ্যান্টিভাইরাসটির পেইড ভার্সনে যে টাইপের প্রটেক্টশন পাবেন ঠিক একই ধরণের অ্যান্টিভাইরাস প্রটেক্টশন আপনি ফ্রি সংস্করণেও পাবেন। অনান্য ফ্রি অ্যান্টিভাইরাসের মতোই সার্ভিস পেলেও Bitdefender Free Antivirusয়ে আপনি পিসিতে সবথেকে হালকা ইমপ্যাক্ট পাবেন। অর্থ্যাৎ অ্যান্টিভাইরাসটি পিসির জায়গা এবং রিসোর্স খুবই কম ব্যবহার করে থাকে, তাই উইন্ডোজ ডিফেন্ডারের মতোই ব্যাকগ্রাউন্ডে যে অ্যান্টিভাইরাস কাজ করছে সেটা আপনি বুঝতেই পারবেন না।

বেসিক অ্যান্টিভাইরাসের পাশাপাশি এতে পাবেন ফ্রি এড-অন সফটওয়্যার, সিকিউর ব্রাউজার এবং লিমিটেড পাসওর্য়াড ম্যানেজার। এছাড়াও এই অ্যান্টিভাইরাসে আপনি পেইড সংষ্করণের বিজ্ঞাপন এবং অফারগুলোর এডসও দেখতে পারবেন না। তবে যারা অ্যান্টিভাইরাস বেশি পরিমাণে কাস্টমাইজেশন করে থাকেন তাদের জন্য Bitdefender Free Antivirus টি প্রযোজ্য হবে না।

Kaspersky Free

যারা যারা পেইড অ্যান্টিভাইরাস ইউজ করেন তাদের কাছে ক্যাসপারেস্কি অ্যান্টিভাইরাস বেশ সুপরিচিত। কিন্তু আপনি জানেন কি তাদের ফ্রি অ্যান্টিভাইরাসও রয়েছে। তবে অনান্য ফ্রি অ্যান্টিভাইরাসের তুলনায় ক্যাসপারেস্কি ফ্রি অ্যান্টিভাইরাসে তুলনামূলকভাবে খুবই কম ফিচার রাখা হয়েছে তাই আমাদের আজকের লিস্টের শেষের দিকে ক্যাসপারেস্কিকে রেখেছি আমি। ক্যাসপারেস্কি ফ্রি অ্যান্টিভাইরাসের আপনি বেসিক প্রক্টেশন যেমন পিসিকে ভাইরাস থেকে মুক্ত রাখতে পারবেন, ঝুঁকিপূর্ণ ফাইস এবং অ্যাপসকে রিয়েল টাইম ব্লক করতে পারবে এবং ব্রাউজারে নেট ব্রাউজিং করার সময় ঝুঁকিপূর্ণ ওয়েবসাইট সম্পর্কে আপনাকে ওর্য়ানিং দিতে পারবে। তবে মনে রাখতে হবে যে ক্যাসপারেস্কি অ্যান্টিভাইরাসটি পেইড সংষ্করণের জন্য অন্যতম বেস্ট চয়েজ, তাই ফ্রি সংষ্করণে কোম্পানিটি তেমন কোনো ফিচারই রাখেনি।

Panda Free Antivirus

আপনি যদি ফ্রিতে মোটামুটি লেভেলের ভাইরাস প্রটেক্টশন খুঁজে থাকেন এবং একই সাথে অ্যান্টিভাইরাসের পিছনে পিসির রিসোর্স কম খরচ করতে চান তাহলে Panda Free Antivirus আপনারই জন্য। Panda Free Antivirus টি আপনাকে বেশ কয়েক প্রকারের কাস্টমাইজেশন এবং স্ক্যানিং অপশন উপহার দিবে। রিয়েল টাইম প্রটেক্টশন থাকলেও এই অ্যান্টিভাইরাসে আপনি পেইড সংষ্করণের আপগ্রেডের নোটিফিকেশন পেতে থাকবেন। এই দিকটা বাদ দিলে Panda Free Antivirus একটি ভালো ফ্রি অ্যান্টিভাইরাস হিসেবে আখ্যায়িত করা যায়।

অ্যান্টিভাইরাসে আপনি পাবেন কাস্টমাইজেবল ইউজার ইন্টারফেস যেখানে বিভিন্ন কনফিগারেশন অপশন আপনি পেয়ে যাবেন, আর পিসির রিসোর্স কম ব্যবহার করা ফ্রি অ্যান্টিভাইরাসগুলোর মধ্যে Panda Free Antivirus হচ্ছে অন্যতম। এছাড়াও আপনি ফ্রি সংস্করণে পেয়ে যাবেন URL স্ক্যানিং এবং ওয়েব ফিল্টারিং ফিচারটি, পাবেন অটোমেটিক USB প্রটেক্টশন, আলাদা Rescue Kit যেখানে সিকিউর বুটেবল USB ড্রাইভ তৈরি করতে পারবেন এবং রয়েছে Gaming Mode যেটা অন রাখলে অ্যান্টিভাইরাস থেকে কোনো প্রকার পপআপ নোটিফিকেশন আসবে না।

Comodo Antivirus

ফ্রি অ্যান্টিভাইরাসে সবথেকে সেরা কাস্টমাইজেশন পাবেন আপনি Comodo Antivirus য়ে। Comodo Antivirus এর ফ্রি সংস্করণে আপনি পাবেন Manage Protection অপশন যেখানে অ্যান্টিভাইরাসের প্রায় প্রতিটি অপশনকে ON/OFF করার সুযোগ পাবেন, যেমন Firescope, HIPS, Website Filtering ইত্যাদি ফিচার অন কিংবা অফফ করার সুযোগ। এর মাধ্যমে সঠিক সময়ে আপনি সঠিক মানের প্রক্টেশন আপনার নিজের মতো করেই সাজিয়ে নিতে পারবেন।

এছাড়াও Comodo Antivirus য়ের অন্যতম উল্লেখযোগ্য দিক হলো একবার ইন্সটল করার পর আপনার পিসির সকল প্রোগ্রামকে এই অ্যান্টিভাইসারের স্ক্যানারের মধ্য দিয়েই যেতে হয়, তাই আপনার পিসির সকল প্রোগ্রামে ভাইরাসের আক্রমণ থেকে আপনি সুরক্ষিত এবং নিশ্চিত থাকতে পারেন। এছাড়াও Comodo অ্যান্টিভাইরাসে রয়েছে ক্ল্যাউড স্ক্যানিং ফিচার। ইন্টারফেসের কথা বলতে গেলে এই অ্যান্টিভাইরাসে আপনি বেশ কয়েকটি থিম ব্যবহার করতে পারবেন। Auto-Sandbox, Viruscope এবং Host Instrusion Preveniton System ফিচারগুলো আপনি Comodo অ্যান্টিভাইরাসের ফ্রি সংষ্করণে পেয়ে যাবেন। তবে মনে রাখতে হবে যে লিস্টের অনান্য ফ্রি অ্যান্টিভাইরাসের থেকে তুলনামুলকভাবে একটু বেশি পিসি রিসোর্স ব্যবহার করবে এই Comodo অ্যান্টিভাইরাসটি।

ZoneAlarm Free Antivirus 2019

ফ্রিতে বেস্ট ফায়ারওয়্যাল প্রটেক্টশন চাইলে আপনি Check Point’s কোম্পানির  ZoneAlarm Free Antivirus টি দেখে নিতে পারেন। ZoneAlarm Free Antivirus য়ে রয়েছে অনান্য ফ্রি অ্যান্টিভাইরাসের থেকে তুলনামূলকভাবে বেটার ফায়ারওয়াল সিস্টেম। তবে কথা হচ্ছে যে অ্যান্টিভাইরাসটি ইন্সটল করার সময় একটু চোখ খোলা রাখতে হবে কারণ এটি ইন্সটলের সময় অটোমেটিক ব্রাউজার টুলবারও ইন্সটল করে থাকে, যেটা ইন্সটলের সময় টিক চিহ্ন উঠিয়ে দিতে হয় যদি আপনি ব্রাউজার টুলবার না চান।

এছাড়াও ইন্সটলের সময়েই ZoneAlarm Free Antivirusটি তাদের লেটেস্ট ভাইরাস ইঞ্জিণ এবং অ্যান্টিভাইরাস সিগনেচারগুলো ডাউনলোড করে থাকে, তাই শুরু থেকেই লেটেস্ট প্রটেক্টশন আপনি পেয়ে যাবেন ZoneAlarm Free Antivirus য়ে। আরেকটি কথা হচ্ছে এই অ্যান্টিভাইরাসটির ফায়ারওয়াল এবং অ্যান্টিভাইরাসটি ক্যাসপারেস্কির লাইসেন্সে রয়েছে তাই ফ্রিতে অন্যতম বেস্ট ফায়ারওয়াল প্রটেক্টশন আপনি পাবেন এতে।

Ad-Aware Free Antivirus

আমাদের আজকের সেরা ফ্রি অ্যান্টিভাইরাসের সর্বশেষে রয়েছে Ad-Aware Free Antivirus । লিস্টের অনান্য কোনো অ্যান্টিভাইরাস আপনার পছন্দ না হলে এই অ্যান্টিভাইরাসকে ট্রাই করে দেখতে পারেন। বেসিক অ্যান্টিভাইরাসের সকল ফিচারই রয়েছে এতে যেমন স্পাইওয়্যার, ভাইরাস এবং অনান্য ম্যালওয়্যার থেকে রিয়েল টাইম প্রটেক্টশন, রয়েছে সাইলেন্ট মোড যা গেমিং বা মাল্টিমিডিয়া দেখার সময় চালু থাকবে। ব্রাউজার থেকে কোনো ফাইল ডাউনলোড করার সময় ইন্সট্যান্ট স্ক্যানিং ফিচারটিও আপনি পেয়ে যাবেন Ad-Aware এর ফ্রি অ্যান্টিভাইরাসে।


এই ছিলো সেরা ফ্রি অ্যান্টিভাইরাসের লিস্ট যেখান থেকে আপনি ইচ্ছেমতো যেকোনো একটিকে বেছে নিতে পারেন। তবে আমি রেকোমেন্ড করবো যারা বেসিক অ্যান্টিভাইরাসের ফিচার পেতে চান তারা উইন্ডোজ ১০ এর নিজস্ব অ্যান্টিভাইরাসের উপর ভরসা রাখা। তবে যারা ম্যাক বা লিনাক্স ব্যবহার করেন কিংবা উইন্ডোজের আগের সংস্করণ ব্যবহার করেন তারা অ্যাভাস্ট, এভিজি বা লিস্টের অনান্য ফ্রি অ্যান্টিভাইরাস থেকে বেছে নিতে পারেন।

তবে যে অ্যান্টিভাইরাসই ব্যবহার করেন  না কেন নিয়মিত অ্যান্টিভাইরাস ইঞ্জিণ এবং ডেফিনেশন আপডেট দিতে দ্বিধাবোধ করবেন না যেন। আর লিস্টের বাইরের কোনো ফ্রি অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহার করার আগে সে অ্যান্টিভাইরাস সম্পর্কে ইন্টারনেটে একটু রিসার্চ করে নিবেন, যাতে ফ্রি অ্যান্টিভাইরাসের নামে খোদ ভাইরাস বা স্পাইওয়্যার যাতে ইন্সটল না করে ফেলেন। পোষ্টটি কেমন লাগলো এবং লিস্টের বাইরের কোনো ফ্রি অ্যান্টিভাইরাস যদি আপনি ব্যবহার করে থাকেন এবং ভালো সার্ভিস যদি আপনি পেয়ে থাকেন তাহলে নিচের কমেন্ট বক্সে সেটা আমাদের সাথে শেয়ার করে সবাইকে জানিয়ে দিতে পারেন।


WiREBD এখন ইউটিউবে, নিয়মিত টেক/বিজ্ঞান/লাইফ স্টাইল বিষয়ক ভিডিও গুলো পেতে WiREBD ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুণ! জাস্ট, youtube.com/wirebd — এই লিংকে চলে যান এবং সাবস্ক্রাইব বাটনটি হিট করুণ!

Image Credit : rawpixel.com Via Shutterstock

যান্ত্রিক এই শহরে, ভিডিও গেমসের উপর নিজের সুখ খুঁজে পাই। যার কেউ নাই তার কম্পিউটার আছে! কম্পিউটারকে আমার মতো করে আপন করে নিন দেখবেন আপনার আর কারো সাহায্যের প্রয়োজন হবে না।

One Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *