১০টি সেরা প্রিমিয়াম অ্যান্টিভাইরাস প্রোগ্রাম [২০১৯ এডিশন!]

১০টি সেরা প্রিমিয়াম অ্যান্টিভাইরাস প্রোগ্রাম [২০১৯ এডিশন!]

ফ্রি জিনিস সবসময় ভালো হয় না, আবার ফ্রি জিনিস সবসময়ই খারাপ হয় না। আর ফ্রি সফটওয়্যার বিশেষ করে অ্যান্টিভাইরাসের ক্ষেত্রে এই কথাটি বেশ প্রযোজ্য। আর তাই সেরা ফ্রি অ্যান্টিভাইরাস নিয়ে সেদিক আপনাদের সাথে আলোচনা করেছিলাম।

তবে আজ আলোচনা করবো পেইড অ্যান্টিভাইরাস নিয়ে। যারা নিজেদের কম্পিউটারকে ভাইরাস, ম্যালওয়্যার, স্পাইওয়্যার সহ সকল প্রকার ভাইরাস থেকে ১০০% সুরক্ষিত রাখতে চান এবং অ্যান্টিভাইরাসের প্রিমিয়াম ফিচারগুলো উপভোগ করতে চান তারা টাকা খরচ করে হলেও প্রিমিয়াম অ্যান্টিভাইরাস কিনে থাকেন।

এখন আপনি যদি মনে করে ফ্রি অ্যান্টিভাইরাস দিয়ে আপনার পোষাচ্ছে না আর সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকেন যে প্রিমিয়াম পেইড অ্যান্টিভাইরাস কিনবেন তাহলে আজকের পোষ্টাটি আপনারই জন্য। আজকের পোষ্টে আমি ২০১৮ সালে সেরা ১০টি পেইড অ্যান্টিভাইরাসের কথা আপনাদের সাথে শেয়ার করবো যাতে আপনারা সহজেই সেরা পেইড অ্যান্টিভাইরাসটি বেছে নিতে পারেন, যেহেতু পেইড বা টাকা খরচ করে অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহার করতে যাবেন তাহলে সেরাটাই ব্যবহার করা উচিত।

এখন আপনাদের অনেকেই প্রশ্ন করতে পারেন ফ্রি অ্যান্টিভাইরাস এবং পেইড অ্যান্টিভাইরাসের মধ্যে পার্থক্য কি। নামেই বুঝতে পারছেন যে একটিকে আপনি ফ্রিতেই ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে পারবেন এবং অন্যটি ব্যবহার করতে হলে আপনাকে অর্থ ব্যায় করতে হবে। ফ্রি অ্যান্টিভাইরাসে আপনি ভাইরাস থেকে সুরক্ষার “বেসিক” ফিচারগুলো পাবেন।

আপনি যদি হোম ইউজার হন কিংবা অফলাইন ইউজার হোন তাহলে ফ্রি অ্যান্টিভাইরাস  দিয়েই আপনার দিন পার হয়ে যাবে (সব সময় নয় যদিও!)। তবে আপনি যদি বিজনেস পারসন হোন কিংবা অফিসের কম্পিউটারগুলোকে যেখানে কোম্পানির সেন্সিটিভ তথ্যাবলি থাকে সেখানে শুধু ভাইরাস নয় বরং তথ্য চুরি করার জন্য বিভিন্ন প্রোগ্রামের আক্রমণ হতে পারে।

এ সকল ক্ষেত্রে আমাদের প্রিমিয়াম বা পেইড অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহার করা উচিত। প্রিমিয়াম অ্যান্টিভাইরাসে আপনি “এডভান্স” ফিচারগুলো পাবেন যা ফ্রি অ্যান্টিভাইরাসে দেওয়া থাকে না। যেমন উন্নত ল্যাব রির্পোট, সকল প্রকার ম্যালওয়্যার স্পাইওয়্যার এডওয়্যার থেকে নিরবিচ্ছিন্ন সুরক্ষা, “মাল্টিলেয়ারের” ভাইরাস প্রটেক্টশন, শক্তিশালি ফায়ারওয়াল এবং Ransomware থেকে সুরক্ষা, প্রিমিয়াম পাসওর্য়াড ম্যানেজার, প্রিমিয়াম ভিপিএন সহ পিসির জাঙ্ক ফাইলস রিমুভের সফটওয়্যারও একটি প্রিমিয়াম অ্যান্টিভাইরাসে দেওয়া হয়ে থাকে।


Kaspersky Internet Security 2020

Independent Testing Lab এর সকল সেক্টরে পারফেক্ট স্কোর রয়েছে ক্যাসপারেস্কি অ্যান্টিভাইরাসের। তাই বলা চলে মোটামুটি সকল সেক্টরে মানে Phising Protection test, malware-blocking, malcious URL blocking সহ বোনাস স্ক্যান, কাস্টমার সার্পোট সহ সকল সেক্টরে ক্যাসপারেস্কি অ্যান্টিভাইরাসের স্কোর অনান্য পেইড অ্যান্টিভাইরাসের থেকে তুলনামূলকভাবে ভালো।

kis2016_12100_0113-272590

তাই আমাদের সেরা পেইড অ্যান্টিভাইরাসের ১ম স্থানে রয়েছে এই ক্যাসপারেস্কি অ্যান্টিভাইরাসে। তবে তাদের কম্পিউটার তুলনামূলক ভাবে পুরাতন কিংবা তেমন শক্তিশালি নয় তাদের জন্য এই অ্যান্টিভাইরাসটি একটু বোঝা হয়ে দাঁড়াতে পারে। কারণ বোনাস স্ক্যান আর এডভান্স প্রটেক্টশনের জন্য CPU সোর্স উল্লেখযোগ্য হারে ব্যবহার করে থাকে এই অ্যান্টিভাইরাসটি। তাই ৪ গিগাবাইট র‌্যামের নিচের পিসিগুলোতে এই অ্যান্টিভাইরাসটি পিসিকে স্লো করে দেবার সম্ভাবনা থাকে।

আর অ্যান্টিভাইরাসটির Total Security ভার্সনটি অনান্য প্রিমিয়াম অ্যান্টিভাইরাসের দামের থেকে অনেক বেশি থাকায় অনেকেই এটাকে এফোর্ড করতে পারেন না । তবে ইন্টারনেট সিকিউরিটি থেকে টোটাল সিকুরিটি পার্থক্য হচ্ছে টোটাল সিকিউরিটিতে আপনি এক্সট্রা ফিচার হিসেবে Parental Controls, পাসওর্য়াড ম্যানেজার এবং ফাইলস প্রটেক্টশন ফিচারগুলো পাবেন। এগুলো যদি আপনার দরকার না হয় তাহলে ইন্টারনেট সিকুরিটিই আপনার জন্য বেস্ট।

Bitdefender Total Security 2020

প্রিমিয়াম অ্যান্টিভাইরাসে ক্যাসপারেস্কির পরেই নাম আসে বিটডিফেন্ডার অ্যান্টিভাইরাসের। Independent Lab Test এর স্কোরে প্রায় ক্যাসপারেস্কির কাছাকাছিই স্কোর রয়েছে এই অ্যান্টিভাইরাসে। তবে ক্যাসপারেস্কির মতো হেভি CPU সোর্স ব্যবহার করে না বিধায় অনেকেই এই অ্যান্টিভাইরাসটিকে ব্যবহার করে থাকে।

im7K5n3Kmt29vR3evU4Eyi

প্রিমিয়াম ওয়েব প্রটেক্টশন, মাল্টিলেয়ারের র‌্যানসামওয়্যার প্রটেক্টশন, পাসওর্য়াড ম্যানেজার, ব্যাংকিং প্রটেক্টশন, ভিপিএন সুবিধা সহ অনেক ফিচারই আপনি পেয়ে যাবেন এই অ্যান্টিভাইরাসে। আর Low Resource ব্যবহার করার কারণে কম্পিউটারের উপর খুব কম প্রেসার দেয় তাই মোটামুটি মানের কম্পিউটারে এটা চালাতে আপনি টেরই পাবেন না যে ব্যাকগ্রাউন্ডে সবসময় অ্যান্টিভাইরাস কাজ করছে। তবে এর একটি সমস্যা হলো VPN এর আনলিমিটেড একসেস এর জন্য আলাদা সাবস্ক্রিপটশন এর প্রয়োজন হবে।

Webroot SecureAnywhere AntiVirus

পেইড অ্যান্টিভাইরাসের আজকের লিস্টের ৩য় স্থানে রয়েছে Webroot SecureAnywhere অ্যান্টিভাইরাসটি। প্রিমিয়াম ম্যালওয়্যার প্রটেক্টশন, URL ফ্রড টেস্টে ভালো স্কোর এবং উন্নত র‌্যানসামওয়্যার প্রটেক্টশন আপনি পাবেন এতে।

621291-webroot-secureanywhere-antivirus-advanced-tools.png

আর সিস্টেম রিসোর্স খুবই কম ব্যবহার করার এটি অন্যতম লাইটওয়েট প্রিমিয়াম অ্যান্টিভাইরাস আর একই সাথে অনান্য প্রিমিয়াম অ্যান্টিভাইরাসের থেকে দ্রুততর সময়ে স্ক্যানিং করতে পারবেন আপনি এতে। আর ওভারঅল অ্যান্টিভাইরাসের সাইজও ছোট কিন্তু বেশ স্পিডি! এখানে সংস্করণ হিসেবে আপনি Internet Security Plus কে ব্যবহার করতে পারেন।

তুলনামূলক বেশি দামের Internet Security Complete ব্যবহার করার দরকার নেই কারণ এতে প্লাস সংষ্করণের থেকে বোনাস ফিচার হিসেবে ২৫ গিগাবাইটের অনলাইন স্টোরেজ এবং অনলাইন এক্টিভিটির Trace গুলোকে মুছার ফিচারগুলো রয়েছে। তাই এগুলো আপনার দরকার না হলে Internet Security Plus সংস্করণই সবার জন্য বেস্ট।

McAfee Antivirus Plus

আপনি যদি কম খরচে আপনার বাসার সকল উইন্ডোজ, ম্যাকওএস, অ্যান্ড্রয়েড এবং আইওএস ডিভাইসের অ্যান্টিভাইরাস সুরক্ষা পেতে চান তাহলে McAfee Antivirus Plus দেখতে পারেন। শুধুমাত্র একটি সিঙ্গেল সাবস্ক্রিপশন দিয়েই আপনি আপনার সকল Windows, Android, macOS এবং iOS ডিভাইসকে সুরক্ষিত রাখতে পারবেন।

607398-mcafee-antivirus-plus-main-window

Independent Lab টেস্টে র‌্যানসামওয়্যার প্রটেক্টশন, এন্টিফিশিং স্কোর সহ এই অ্যান্টিভাইরাসের পাবেন পিসি বুস্টসহ আরো অনেক বোনাস ফিচার। অ্যান্টিভাইরাসটির দুর্বল দিকগুলোর মধ্যে একটি হচ্ছে PC Boost ফিচারের web speedup অপশনটি শুধুমাত্র গুগল ক্রোমে কাজ করে, আর অ্যান্টিভাইরাসটির ম্যাক ও আইওএস সংষ্করণে তুলনামূলক কম ফিচার রয়েছে।

Avast Internet Security

যারা ফ্রি অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহার করেন তাদের কাছে এভাস্ট এন্টিভাইরাস বেশ সুপরিচিত। ফ্রি অ্যান্টিভাইরাস ছাড়াও এভাস্টের প্রিমিয়াম দুটি সংস্করণ রয়েছে। ইন্টারনেট সিকুরিটি সংস্করণে Wifi inspector, পাসওর্য়াড ম্যানেজার, Pro-Only Sandbox সহ বেশ কিছু প্রিমিয়াম ফিচার আপনি পাবেন। তবে এদের মধ্যে কিছু কিছু ফিচারগুলোকে আপনাকে আলাদাভাবে কিনে নিতে হবে।

imgingest-6101397858513381020

তবে Avast Premier সংস্করণে সকল বোনাস ফিচারই রয়েছে তবে সেটার দাম একটু বেশি। তবে বলা বাহুল্য যে, এভাস্টের ফ্রি সংস্করণে যে এন্টিভাইরাস ইঞ্জিণ ব্যবহৃত হয়েছে সেটাই বাকি দুটি প্রিমিয়াম সংস্করণেও ব্যবহৃত হয়েছে।

ESET NOD32 Antivirus

২০১৯ সালের সেরা টপ ১০ পেইড অ্যান্টিভাইরাসের আজকের লিস্টের ৬ষ্ট স্থানে রয়েছে ESET NOD32 Antivirus । এই পেইড অ্যান্টিভাইরাসের অন্যতম ইউনিক ফিচার হলো এটায় রয়েছে UEFI স্ক্যানার, এর মাধ্যমে আপনি আপনার পিসির ফার্মওয়্যারে ম্যালওয়ারের জন্য স্ক্যান করতে পারবেন।

EAV_MAIN_MENU

এছাড়াও এতে রয়েছে HIPS কম্পোনেন্ট যা বিভিন্ন ধরণের exploits থেকে আপনার পিসিকে সুরক্ষিত রাখবে। অ্যান্টিভাইরাসটির UI দিয়ে ডিভাইস কনট্রোলেও পাবেন স্বাচ্ছন্দ্য। ESET NOD32 এর রয়েছে তিনটি অ্যান্টিভাইরাস সংষ্করণ আর তিনটিই পেইড অর্থ্যাৎ কোনো ফ্রি অপশন নেই তবে ৩০ দিনের ট্রায়ালের সুবিধা রয়েছে তিনটি সংষ্করণেই।

Symantec Norton Antivirus

product_symantec_main

পেইড এন্টিভাইরাস হিসেবে বেশ কয়েক বছর ধরেই নরটন এন্টিভাইরাসটি বাংলাদেশের অনেকেই ব্যবহার করে থাকেন । তবে দুর্বল antiphising স্কোর, ফুল স্ক্যানিং বেশ স্লো, লিমিটেড টেক সার্পোট এবং বেশ চড়া মূল্যের কারণে Norton এন্টিভাইরাসটি আমাদের আজকের লিস্টের ৭তম স্থানে রয়েছে। নরটর এর বেসিক সংষ্করণটি আমি ব্যবহার করাতে রেকোমেন্ড করবো।

Trend Micro Antivirus+

629693-trend-micro-antivirus-security-main

এন্টিফিশিং স্কোরে বেশ ভালো রেজাল্ট এবং Malicious URL ব্লকিং টেস্টেও বেশ ভালো রেজাল্ট নিয়ে আমাদের আজকের লিস্টের অষ্টম স্থানে রয়েছে Trend Micro Antivirus+। অ্যান্টিভাইরাসটি ভালো হলেও নতুন ব্রান্ড হওয়ায় এর উপর অনেকেই ভরসা করতে পারেন না। তবে আমি বলবো বাজেটের মধ্যে অন্যতম সেরা পেইড এন্টিভাইরাস হলো Trend Micro Antivirus+ । এতে আপনি ভাইরাস প্রটেক্টশন, ইন্টারনেট সিকুরিটি সহ পাবেন স্প্যাম ফিল্টার, ফায়ারওয়াল বুস্টার সহ বিভিন্ন বোনাস ফিচার।

Check Point ZoneAlarm PRO Antivirus + Firewall

check-point-zonealarm-pro-antivirus-firewall-2016_1k23

ZoneAlarm এর ফ্রি সংষ্করণের মতোই এর পেইড বা প্রিমিয়াম সংষ্করণে আপনি পাবেন অন্যতম সেরা এডভান্স ফায়ারওয়াল ফিচার। এছাড়াও এটার এন্টিভাইরাসটি ক্যাসপারেস্কি থেকে লাইসেন্সকৃত তাই এন্টিভাইরাস ইঞ্জিণ নিয়ে চিন্তার কোনো কারণ নেই। ফিশিং থেকে সুরক্ষার জন্য এতে রয়েছে ইউনিক এবং ইফেক্টটিভ ব্যবস্থা। আর বোনাস টুলস তো থাকছেই। তবে এর এডভান্স ফিচারগুলো সাধারণ ব্যবহারকারীদের জন্য “অতিরিক্ত পরিমাণের” এডভান্স, তাই লিমিটেড বা সাধারণ জ্ঞান ছাড়া পিসি ব্যবহারকারীদের এই অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহারে বেশ ঝামেলা পোহাতে হতে পারে।

Sophos home premium

633202-sophos-home-premium-dashboard

আমাদের আজকের লিস্টের সর্বশেষ স্থানে রয়েছে sophos home premium এন্টিভাইরাসটি। ফ্রি সংস্করণের থেকে প্রিমিয়াম সংষ্করণে আপনি পাবেন ১০টি ডিভাইস পর্যন্ত অ্যান্টিভাইরাসটি ব্যবহারের সুযোগ, পাবেন প্রতি সোমবার থেকে শুক্রবার পর্যন্ত চ্যাট এবং ইমেইলে টেক সার্পোট, পাবেন এডভান্স ম্যালওয়্যার রিমুভার, পাবেন প্রাইভেসি প্রটেক্টশন, ব্যাংকিং প্রটেক্টশন, এডভান্স ওয়েব, এডভান্স র‌্যানসামওয়্যার এবং এডভান্স রিয়েল টাইম প্রটেক্টশন পাবেন। আর দামের দিকেও তেমন উচ্চমূল্যের নয় এটি। তবে লিমিটেড Parental Control এবং ওয়েবক্যাম প্রটেক্টশন রয়েছে এতে।


আশা করবো আমার আজকের পোষ্টটি থেকে কোন পেইড এন্টিভাইরাসটি আপনি ব্যবহার করবেন সেটা নির্ধারণ করতে পারবেন। বিশেষ করে ক্যাসপারেস্কি এবং বিটডিফেন্ডারে আমার পারসোনাল প্রেফারেন্স থাকবে। আর এভাস্টে ইনভেস্ট না করাই ভালো কারণ এভাস্ট ফ্রি সংষ্করণের জন্য বেস্ট তবে প্রিমিয়ামের জন্য অন্যকিছুতে দেখুন।

লিস্টে উল্লেখিত এন্টিভাইরাসগুলো ছাড়া অন্য কোনো পেইড এন্টিভাইরাস যদি আপনি ব্যবহার করে থাকেন তাহলে নিচের কমেন্ট বক্সে সবার সাথে শেয়ার করে দিতে পারেন।



WiREBD এখন ইউটিউবে, নিয়মিত টেক/বিজ্ঞান/লাইফ স্টাইল বিষয়ক ভিডিও গুলো পেতে WiREBD ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুণ! জাস্ট, youtube.com/wirebd — এই লিংকে চলে যান এবং সাবস্ক্রাইব বাটনটি হিট করুণ!

Feature Images: Shutterstock.com

যান্ত্রিক এই শহরে, ভিডিও গেমসের উপর নিজের সুখ খুঁজে পাই। যার কেউ নাই তার কম্পিউটার আছে! কম্পিউটারকে আমার মতো করে আপন করে নিন দেখবেন আপনার আর কারো সাহায্যের প্রয়োজন হবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *