সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং _ wirebd.com

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কি? কেন, এবং কিভাবে করবেন।

বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং একটি জনপ্রিয় মাধ্যম হয়ে দাঁড়িয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম ব্যবহার করে আমরা দেশ বিদেশের চেনা অচেনা বিভিন্ন মানুষের সাথে ছবি, ভিডিও, স্ট্যাটাস এবং কথার মাধ্যমে মনের ভাব প্রকাশ করি।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যবসা করতে হলে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। এ বিষয়টিকে “ডিজিটাল মার্কেটিং” বা ” ই-মার্কেটিংও” বলা হয়ে থাকে। কারণ, এই সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিংকে ডিজিটাল মার্কেটিং এর একটি অংশ ধরা হয় কেননা এক্ষেত্রে ডিজিটাল পদ্ধতি ব্যবহার করে প্রোডাক্টের মার্কেটিং করা হয়ে থাকে।

আজকের এই আর্টিকেলে আমরা সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কি ? কেন, এবং কিভাবে ব্যবহার করবেন এসব নিয়ে আলোচনা করবো। চলুন তবে শুরু করা যাক-

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কি?

সহজ ভাষায় বলতে গেলে, সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং হলো এমন এক টেকনিক বা প্রক্রিয়া, যেখানে বিভিন্ন আলাদা আলাদা সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম যেমন, ফেসবুক, ইউটিউব, ইন্সটাগ্রাম, লিংকডিন, কোরা এবং আরোও অন্যান্য প্লাটফর্ম গুলিতে সক্রিয় থাকা লোকেদেরকে লক্ষ্য করে, পণ্যের গুণমান সচেতনতা ছড়ানো হয় বা বিভিন্ন প্রোডাক্ট, সার্ভিস এবং বিজনেস এর প্রচার করা হয়।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কি? _ wirebd.com

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিংকে সংক্ষেপে SMM বলা হয়ে থাকে। কোন মার্কেটিং এজেন্সি কোন প্রোডাক্ট, সোশ্যাল মিডিয়ার সাহায্য প্রমোট করে এবং মার্কেটিং করে সেটিকে কাস্টমার পর্যন্ত পৌঁছানোর জন্য যে সমস্ত জিনিসগুলি করে থাকে সেটিকেই সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং বলে। যেহেতু এই ধরনের মার্কেটিং সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম এর মাধ্যমে করা হয়ে থাকে, সেই কারণেই এই ধরনের মার্কেটিংকে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং নাম দেওয়া হয়।

সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে মার্কেটিং করবার জন্য কাস্টমারদের Interact করতে আলাদা আলাদা Technique এর ব্যবহার করা হয়। যার মাধ্যমে কাস্টমার প্রোডাক্ট নিতে বাধ্য হয়।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কেন এত জনপ্রিয়?

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং ডিজিটাল মার্কেটিং এর একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং সম্পর্কে জানতে হলে আমাদের সর্বপ্রথম জানতে হবে সোশ্যাল মিডিয়া কি। সোশ্যাল মিডিয়া হলো, এমন কিছু ওয়েবসাইট বা অ্যাপ্লিকেশন যা ব্যবাহারকারীদের সুযোগ করে দেয় তাদের বন্ধুবান্ধব্দের মাঝে সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং এ সম্পৃক্ত হতে।

একটি গবেষণায় দেখা গেছে, পৃথিবীর প্রায় ৫১% মানুষ সোশ্যাল মিডিয়াতে এক্টিভ রয়েছে এবং প্রায় ৩.৯৬ বিলিয়ন মানুষ সোশ্যাল মিডিয়ার সাথে সম্পৃক্ত। আরোও দেখা গেছে, সারা বিশ্বের মানুষ গড়ে প্রতিদিন ১৪৪ মিনিট করে সোশ্যাল মিডিয়াতে সময় কাটায়। আর যদি এখান থেকে ১৩ বছরের আগের শিশুদের বাদ দেওয়া হয় তাহলে পরিসংখ্যান বলে পৃথিবীর ৬৫ শতাংশ লোক সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে থাকে।

পরিসংখ্যানে দেখা গেছে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার কারীর দিক থেকে সবার উপরে রয়েছে ফিলিপাইন। সেখানকার মানুষ গড়ে প্রতিদিন ৩ ঘন্টা ৫৩ মিনিট করে সোশ্যাল মিডিয়াতে সময় কাটান। এর পরের তালিকাতেই রয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। তাদের মানুষ গড়ে প্রতিদিন ২ ঘন্টা ৩ মিনিট করে সোশ্যাল মিডিয়াতে সময় কাটান। গড়ে প্রতিদিন ১ মিলিয়ন মার্কিনি মানুষ সোশ্যাল মিডিয়াতে সংযুক্ত হছে।

এসব তথ্য উপাত্ত থেকে বোঝায় যাচ্ছে, বিশ্বের প্রায় কি পরিমাণ মানুষ তাদের মহা মূল্যবান সময় সোশ্যাল মিডিয়াতে বসে কাটাচ্ছেন। কিন্তু আপনি যদি একজন মার্কেটার হয়ে থাকেন তাহলে আপনার জন্য বিষয়টা খুবই ইন্টারেস্টিং কিছু। কারণ, বিশাল পরিমাণে মানুষ থাকা মানে বেশি পরিমাণে মানুষের কাছে সহজে রিচ করা যাবে। তাহলে এবার আপনিই বলুন, সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কেনই বা জনপ্রিয় হবে না।

মার্কেটিং এর দিক থেকে জনপ্রিয় কিছু সোশ্যাল মিডিয়া

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর নিয়ম বা প্রক্রিয়া অনেক সহজ। সোশ্যাল মিডিয়াতে বিভিন্ন ধরনের প্লাটফর্ম রয়েছে। আজ আমরা আলোচনা করবো সোশ্যাল মিডিয়ার জনপ্রিয় কিছু প্লাটফর্ম সম্পর্কে। যথাঃ

ফেসবুক

সোশ্যাল মিডিয়ার জনপ্রিয় প্লাটফর্মগুলোর মধ্যে একটি হচ্ছে ফেসবুক। পৃথিবীতে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মগুলোর মধ্যেও অন্যতম হচ্ছে এই ফেসবুক

Facebook _ wirebd.com

 

  • বিশ্বের প্রায় ৮৯% মার্কেটার তার মার্কেটিং এর জন্য ফেসবুক ব্যবহার করে থাকে।
  • বিশ্বের প্রায় ৬৬% ব্যবহারকারী ফেসবুকে তাদের পছন্দের ব্র্যান্ডকে ফলো করে থাকে।
  • প্রতিমাসে গড়ে প্রায় ২০৫ মিলিয়ন মানুষ ফেসবুকে এক্টিভ থাকে।
  • প্রায় ৮৩% ভোক্তা এই প্লাটফর্ম ব্যবহার করে থাকে।
  • বর্তমানে লাইভে এসে মার্কেটিং সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয় হয়েছে। প্রায় ৪২% মার্কেটার তাদের লাইভ প্রোগ্রামের কন্টেন্ট রেডি করেন ফেসবুকে লাইভ করবেন বলে।

ইন্সটাগ্রাম

ইন্সটাগ্রাম হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ার এমন একটি প্লাটফর্ম যেটি খুবই অল্প সময়ে জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। নতুন নতুন ফিচার সংযুক্ত করতে পটু এই প্লাটফর্মটি। এরা খুব অল্প সময়ের মাঝে ইউজারদের জন্য মজাদার ফিচার নিয়ে আসায় ব্যভারকারীদের মধ্যে খুব দ্রুতই জনপ্রিয় হয়ে ওঠেছে। মার্কেটারদের ২য় পছন্দের তালিকায় রয়েছে এই ইন্সটাগ্রাম।

ইন্সটাগ্রাম _ wirebd.com

  • বর্তমানে ইন্সটাগ্রামে এক্টিভ ব্যবহারকারীর সংখ্যা মাসে গড় প্রতি ১ বিলিয়ন বা তারও অধিক।
  • বিশ্বের প্রায় ৯০% ব্যবহারকারী ইন্সটাগ্রামে তাদের পছন্দের ব্র্যান্ডকে ফলো করে থাকে।
  • ৮৯% ইনফ্লুয়েন্সার মার্কেটার মনে করেন ইন্সটাগ্রাম সবচেয়ে উপযুক্ত প্লাটফর্ম।
  • ৭৮% লোক মনে করেন কন্টেন্ট বুস্টিং এর জন্য ইন্সটাগ্রাম সবচেয়ে কার্যকর।
  • দৈনিক প্রায় ৫০০ মিলিয়নের মতো মানুষ ইন্সটাগ্রামে স্টোরি চেক করেন।

টুইটার

বিশ্বের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যেসব ব্যাক্তি রয়েছেন তাদের সকলের সোশ্যাল মিডিয়ার প্লাটফর্ম হিসেবে প্রথম পছন্দ হলো টুইটার। তারা এই টুইটারকেই বেশি ব্যবহার করে থাকেন।

টুইটার _ wirebd.com

  • বর্তমানে টুইটারে এক্টিভ ব্যবহারকারীর সংখ্যা মাসে গড় প্রতি ৩৩০ মিলিয়ন।
  • প্রতিদিন ১৪৫ মিলিয়ন মানুষ টুইটারে এক্টিভ থাকে।
  • ২৬% মানুষ টুইটারে এড দেখতে বেশি সাচ্ছন্দ করেন।
  • টুইটারের রেভিনিউ প্রতি বছর গড়ে ৯% করে বৃদ্ধি পায়।

লিংকডিন

যারা প্রফেশনাল রয়েছে শুধুমাত্র তারাই লিংকডিন ব্যবহার করে থাকেন। এই সোশ্যাল প্লাটফর্মটি মার্কেটিং এর দিক থেকে যথেষ্ট ভালো।

 

  • লিংকডিন _ wirebd.comলিংকডিনে ইউজার সংখ্যা ৬৬০ মিলিয়ন।
  • ৪৫% মার্কেটার তাদের কাস্টমার পেয়ে থাকেন এই লিংকডিন প্লাটফর্মটির মাধ্যমে।
  • লিংকডিনে মাসিক এক্টিভ ইউজার সংখ্যা ৩০৩ মিলিয়ন।
  • ২০১৮ সালে লিংকডিনের রেভিনিউ ছিল ৫.২ বিলিয়ন ডলার। যা এক বছর পর বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬.৭ বিলিয়ন ডলারে।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কেন করতে হয়?

একজন সফল উদ্যোক্তার সবচাইতে বড় গুন হচ্ছে সে কখনোই থেমে থাকে না, যখন তার কোনো বিপদ আসে তখন সে সেটা সমাধান করার চেষ্টা করে। আর যখন কোনো বিপদ আসে না তখন সে নতুন কোনো এক্সপেরিমেন্টের কাজ করে। নতুন নতুন আইডিয়া জেনারেট করে।

আজ সোশ্যাল মিডিয়া ছাড়া আমরা আমাদের জীবন চিন্তায় করতে পারি না। বাংলাদেশের প্রায় ৭৫ লক্ষ মানুষ ফেসবুক ব্যবহার করে। আপনার যদি সোশ্যাল মিডিয়া ছাড়াই ক্রেতা থাকে, তারপরও আপনার সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর দিকে নজর দেওয়া উচিত। অনলাইন মার্কেটিং হতে পারে কম খরচে পর্যাপ্ত ক্রেতা পাওয়ার উপযুক্ত মাধ্যম। মার্কেটিং দিক থেকে আপনার লক্ষ যা হওয়া উচিত-

  • আপনার পণ্য এবং প্রতিষ্ঠানের পরিচিত বৃদ্ধি।
  • আপনার পণ্যর ভালো দিক গুলো তাদের কাছে তুলে ধরা।
  • ক্রেতার সাথে সুসম্পর্ক তৈরি করা।
  • মানুষকে আপনার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে আসতে উৎসাহিত করা।
  • আপনার পণ্য বিক্রি করা।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কিভাবে করবেন

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কিভাবে করবেন?

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং প্রক্রিয়াটি অনেক সহজ। প্রথমে আপনাকে সোশ্যাল মিডিয়া ওয়েবসাইটগুলোতে যেমন (ফেসবুক, ইন্সটাগ্রামে) নিজের ব্র্যান্ডের নামে একটি পেজ তৈরি করতে হবে।

সোশ্যাল মিডিয়াতে পেজ তৈরি করার পর আপনার পেজে লাইক, ফলোয়ার্স এবং মেম্বারস প্রচুর পরিমাণে বাড়াতে হবে। লাইক, ফলোয়ার্স বৃদ্ধি করানোর পাশাপাশি নিয়মিত প্রোডাক্টের আপডেট সম্পর্কে পোস্ট করতে হবে। এতে করে যত মানুষ আপনার পেজে লাইক করবে তত বেশি লোক আপনার প্রোডাক্টের আপডেট সম্পর্কে জানতে পারবে।

আপনি paid advertisement এর মাধ্যমেও সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করতে পারবেন। এক্ষেত্রে যদি ফেসবুকের কথা বলি, তাহলে আপনার লিখা ফেসবুক পেজের পোস্ট বুস্ট করতে হবে। এর জন্য আপনাকে ফেসবুককে অবশ্যই ডলার প্রদান করতে হবে। এরপর ফেসবুক নিজেই আপনার প্রজ টার্গেট করা অডিয়েন্সদের মাঝে পৌছে দিবে। এতে লোকেরা সহজেই আপনার পেজের সব আপডেট সম্পর্কে জানতে পারবে।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করার কিছু নিয়ম

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করার কিছু নিয়ম

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করার কিছু নিয়ম ও নীতি রয়েছে। নিচে তা লেখা হলোঃ

  • Law of Focus:- সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম গুলিতে প্রোডাক্ট সম্পর্কে সব থেকে ভালো কন্টেন্ট Provide করুন। যার মাধ্যমে কাস্টমার খুব সহজেই engage হয়ে যায়।
  • Law of Listening:- আপনার টার্গেট কাস্টমারদের track করতে থাকুন এবং তারা কি চাইছে সেই হিসেবে তাদের সামনে পণ্য প্রদর্শন করুন।
  • Law of Quality:- টাকার থেকে সর্বপ্রথম কাস্টমারের পণ্যের কোয়ালিটির উপর নজর দিন। আপনি যদি আপনার কাস্টমারকে ভালো প্রোডাক্ট দিতে পারেন তাহলে আপনার ব্যবসা অটোমেটিক বৃদ্ধি পাবে।
  • Law of patience:- আপনাকে আপনার কাজ ধৈর্যর সাথে চালিয়ে যেতে হবে। কারণ, কোনো জিনিসই রাতারাতি সফল হয় না। ধৈর্য ধরে কাজ চালিয়ে যেতে পারলে একদিন অবশ্যই সাফল্য আসবে

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর ৫ টি লাভ ও সুবিধা

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর ৫ টি লাভ ও সুবিধা

ছাত্র থেকে শুরু করে বিজনেস ম্যান, প্রাইভেট চাকরি করা লোকেরা সরকারি চাকরি লোকেরা সবাই সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করছেন। এই সোশ্যাল মিডিয়ার অনেক লাভ ও সুবিধা রয়েছে। নিচে ৫টি সেরা লাভ ও সুবিধা সম্পর্কে আলোচনা করা হলোঃ

  • যেকোনো জিনিসের প্রমোশন সম্ভবঃ- সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে আপনি নিজেই ঘরে বসে আপনার প্রোডাক্টের প্রমোশন করতে পারবেন।
  • কম খরচে paid advertisement:- এই প্রক্রিয়াতে অনেক কম টাকায় মার্কেটিং করা সম্ভব। সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম গুলিতে প্রোফাইল পেজ বানাতে হবে তারপর নিজের প্রোডাক্ট সম্পর্কে সময়ে সময়ে ফ্রীতেই লোকেদের আপডেট দিতে পারবেন।
  • Targeted promotion:- সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে করা প্রমোশনে আপনার হাতে অনেক ধরনের অপশন থাকবে। মানে, আপনি কোন জায়গার লোকেদের টার্গেট করে বিজ্ঞাপন দেখাতে চান, সেটা কতদিন চালাতে চান, চাহিদার হিসেবে বিজ্ঞাপন দেখানো যাবে।
  • সহজেই ক্রেতা পাবেনঃ- সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে করা মার্কেটিংয়ে টার্গেট করা ব্যাক্তিদের বিজ্ঞাপন দেখানোর ফলে অধিক পরিমাণে গ্রাহক পাওয়ার সুযোগ বেড়ে যায়।
  • Growing brand awareness:- দেশ বিদেশ এবং যেকোনো জায়গাতেই থাকা লোকেদের কাছে আপনি নিজের ব্র্যান্ড ও কোম্পানিকে নিয়ে যেতে পারবেন। পুরনো মার্কেটিং এর তুলনায় সোশ্যাল মিডিয়াতে করা প্রমোশনের অনেক লাভ বা সুবিধা রয়েছে।

আশা করি সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং সম্পর্কে আপনারা বিস্তারিত বুঝতে পেরেছেন। সেই সাথে কিভাবে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করতে হয় এবং ঘরে বসে আরনিং করতে হয় এ সম্পর্কেও জানতে পেরেছেন।

Author

More Reading

Post navigation

Leave a Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

২০০+ সেরা হাসির স্ট্যাটাস – ফেসবুক হাসির স্ট্যাটাস ২০২৪

ইনস্টাগ্রাম একাউন্ট খোলার নিয়ম ও ব্যবহার ২০২৪

গোলাপ ফুল নিয়ে ক্যাপশন, উক্তি ও বাংলা স্ট্যাটাস ২০২৪